বৃষ্টিতে ভিজলে অনেক উপকার, মানতে হবে নিয়ম

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৯ জুলাই ২০২১,   শ্রাবণ ১৪ ১৪২৮,   ১৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

বৃষ্টিতে ভিজলে অনেক উপকার, মানতে হবে নিয়ম

স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:২৯ ১৯ জুন ২০২১  

বৃষ্টিতে ভেজার নিয়ম না মানলে কিন্তু শরীর বিদ্রোহ করলেও করতে পারে। ছবি: সংগৃহীত

বৃষ্টিতে ভেজার নিয়ম না মানলে কিন্তু শরীর বিদ্রোহ করলেও করতে পারে। ছবি: সংগৃহীত

বর্ষপঞ্জিকায় বর্ষা এলো পাঁচদিন আগেই। তবে আবহাওয়ায় বর্ষার আনাগোনা ছিল আরও দুই সপ্তাহ আগে। গত কয়েকদিন ধরে সারাদিনই বৃষ্টি হচ্ছে। কখনও টুপটাপ করে, কখনও-বা একেবারে ঝেঁপে। কাজের খাতিরে হোক বা আয়েশে হোক—অনেকেই বৃষ্টিতে ভিজছেন।

অনেকেই মনে করেন, বৃষ্টিতে ভিজলে রোগ শরীরকে আক্রমণ করে। অথচ বিজ্ঞান এবং গবেষণা যা বলছে, তা এর ঠিক বিপরীত। তবে হ্যাঁ, একটানা ১০-১২ মিনিটের বেশি বৃষ্টিতে ভিজবেন না যেন, তাহলে কিন্তু শরীর বিদ্রোহ করলেও করতে পারে। আর বৃষ্টিতে ভেজার পর মনে করে এক কাপ ধোঁয়া ওঠা লিকার চা অথবা গ্রিন টি খেয়ে নেবেন, তাহলেই দেখবেন শরীর খারাপ কাছেও ঘেঁষতে পারবে না।

বিশুদ্ধ বৃষ্টিতে অনেক উপকার

বৃষ্টির পানির মতো বিশুদ্ধ আর বোধহয় কিছুই নেই। তাই বৃষ্টির পানি শরীরে লাগলে কোনো অসুখ হওয়ার আশঙ্কা থাকে না। বিশ্বের অনেক দেশে বৃষ্টির পানি জমিয়ে রাখা হয়। পরে প্রয়োজন মতো তা পান করা হয়ে থাকে।

অনেক গবেষকের মতে, বৃষ্টির পানি পান করলে শরীরের অন্দরে জমে থাকা টক্সিক উপাদান বেরিয়ে যায়। সেই সঙ্গে হজম ক্ষমতার উন্নতি ঘটে। এখানেই শেষ নয় অ্যালকালাইন রক্তের পি এইচ লেভেলকে স্বাভাবিক মাত্রায় নিয়ে আসে। ফলে শরীরে অ্যাসিডির মাত্রা কমে যাওয়ার কারণে একাধিক রোগের প্রকোপ হ্রাস পায়।

প্রতিদিন সকালে খালি পেটে ৩ চামচ বৃষ্টির পানি খেলে অ্যাসিডিটি এবং গ্যাস-অম্বল হওয়ার সম্ভাবনা একেবারে কমে যায়। সেই সঙ্গে হজম ক্ষমতারও উন্নতি ঘটে।

ভিজতে না চাইলে ছাতা হাতের কাছেই রাখুন। ছবি: সংগৃহীত

বৃষ্টির মাটি থেকে সোঁদা গন্ধ বেরোয়। গবেষকরা এই গন্ধকে ‘পেট্রিকোর’ নামে ডেকে থাকেন। এই গন্ধটাকে মন-প্রাণ দিয়ে শরীরে অন্দের নিয়ে যাবেন, দেখবেন নিমেষে মন ভাল হয়ে যাবে। এছাড়া তুমুল বৃষ্টিতে ৫ মিনিট ভিজলে স্ট্রেস লেভেল একেবারে কমে যায়। সেই সঙ্গে শরীরের ক্লান্তিও দূর হয়।

এই সময়ে হাওয়া-বাতাস খুব বিশুদ্ধ হয়ে যায়, একাধিক গবেষণায় এমনটাই বলা হয়েছে। এমনকি এসময় পরিবেশের টক্সিক উপাদানের ক্ষতি করার ক্ষমতাও খুব কমে যায়। ফলে এই সময় বাড়ির বাইরে থাকলে সব দিক থেকে শরীরের ভালোই হয়।

বৃষ্টির পানি বিশুদ্ধ আগেই বলেছি। এ কারণে বৃষ্টির পানি দিয়ে চুল ধুলে মাথার ত্বকে থাকা একাধিক ব্যাকটেরিয়া এবং ময়লা ধুয়ে যায়। ফলে চুলের সৌন্দর্য যেমন বৃদ্ধি পায়, তেমনি খুশকি সহ নানাবিধ রোগের প্রকোপও কমে। এমনকি বৃষ্টিতে ভেজার পর আমাদের ত্বক আরও সুন্দর হয়ে যায়। অল্প সময়েই ত্বক তার হারিয়ে যাওয়া ঔজ্জ্বল্য ফিরে পায়।

সাবধান থাকতে হবে

বৃষ্টির পানি খাওয়ার আগে দেখে নেবেন যেখানে রেখেছেন, সেটি পরিষ্কার কি-না। না হলে কিন্তু কোনো উপকারই পাবেন না। উল্টো শরীরের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পাবে। এছাড়া গর্ভবতী মহিলারা ভুলেও বৃষ্টিতে ভিজবেন না যেন! এমনটা করা এই সময় শরীরের পক্ষে একেবারেই ভালো হবে না।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে