সিজারের পর বেল্ট ব্যবহারের সুবিধা এবং কিছু নিষেধাজ্ঞা

ঢাকা, সোমবার   ১২ এপ্রিল ২০২১,   চৈত্র ২৯ ১৪২৭,   ২৮ শা'বান ১৪৪২

সিজারের পর বেল্ট ব্যবহারের সুবিধা এবং কিছু নিষেধাজ্ঞা

স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:৪৮ ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

সিজারের পর বেল্ট ব্যবহার

সিজারের পর বেল্ট ব্যবহার

চিকিৎসকেরা দুই উপায়ে সন্তান প্রসব করিয়ে থাকেন। প্রথমত, নরমাল ডেলিভারি এবং সিজার। খুব বেশি সমস্যা না থাকলে চিকিৎসকেরা নরমালেই সন্তান প্রসব করিয়ে থাকেন। কিন্তু মায়ের শারীরিক অবস্থা যদি বেশি খারাপ হয়ে থাকে তবেই সিজার করানোর চিন্তা করেন।

তবে বর্তমানে অধিকাংশ ডেলিভারিই সিজারে হয়ে থাকে। অনেক নারীই কষ্ট সহ্য করতে চান না বলেই সিজারের সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন। নিশ্চয়ই জানেন, সিজারের পর চিকিৎসকেরা বেল্ট ব্যবহারের পরামর্শ দিয়ে থাকেন। বেল্ট ব্যবহারের রয়েছে বেশ কিছু সুবিধা। সঙ্গে রয়েছে কিছু নিষেধাজ্ঞাও। চলুন জেনে নেয়া যাক সেগুলো সম্পর্কে-

বেল্ট ব্যবহারে মিলবে যেসব সুবিধা

> এটি পেটের চারপাশে আরামদায়ক টাইট একটা বন্ধনি হিসেবে কাজ করে। হালকা প্রেশারের কারণে পেটের থলথলে ভাব কমে যায়।

> সিজারের সময় পেটের কয়েক স্তরের মাংসপেশি কেটে যায়। বেল্ট পরার ফলে প্রেশারের কারণে সেই পেশি জোড়া লাগার পদ্ধতি ত্বরান্বিত হয়।

> বেল্ট ব্যবহার করলে নবজাতককে কোলে নিতে, দুধ খাওয়াতে, নাড়াচাড়া করতে সুবিধা হয় এবং ব্যথা কম হয়।

> সিজারের পর নিয়মিত বেল্ট ব্যবহার করলে প্রথম ৪ থেকে ৬ সপ্তাহের মধ্যে জরায়ু পূর্বাবস্থায় ফিরে আসে। ‌

> কোমরের ব্যথা উপশম হয়।

সিজারের পর বেল্ট ব্যবহারের নিয়ম বেল্ট ব্যবহারে রয়েছে যেসব নিষেধাজ্ঞা

> সিজারের পর ইনফেকশন থাকলে বেল্ট ব্যবহার করা যাবে না।

> অতিরিক্ত টাইট করে বেল্ট ব্যবহার করলে হার্নিয়া হতে পারে বা ইন্টারনাল ব্লিডিং হতে পারে। সেক্ষেত্রে বেল্ট ব্যবহারে সাবধান হতে হবে। ‌

> গরমের সময় বেশিক্ষণ বেল্ট ব্যবহার করলে বা ঘাম হলে ইনফেকশন হতে পারে অথবা চুলকানি হতে পারে।

> প্রসবকালীন উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা থাকলে বেল্ট ব্যবহারে সাবধান হতে হবে। অনেকের হার্ট-এ চাপ পড়ে বুকে ধড়ফড় করতে পারে। সেক্ষেত্রে বেল্ট ব্যবহার করা যাবে না।

সূত্র : এনডিটিভি

ডেইলি বাংলাদেশ/এএ