যেসব কারণে গর্ভাবস্থায় গরম পানি পান করা জরুরি

ঢাকা, বুধবার   ২৩ জুন ২০২১,   আষাঢ় ৯ ১৪২৮,   ১১ জ্বিলকদ ১৪৪২

যেসব কারণে গর্ভাবস্থায় গরম পানি পান করা জরুরি

স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:২৪ ২৭ অক্টোবর ২০২০  

ছবি: গর্ভাবস্থায় গরম পানি পান করা জরুরি

ছবি: গর্ভাবস্থায় গরম পানি পান করা জরুরি

গর্ভাবস্থায় নারীদের একটি বেশিই সতর্ক থাকতে হয় সবদিকে। অন্য সমস্যের থেকে এখনকার নিত্যদিনের রুটিনে থাকে খানিকটা পরিবর্তন। খাওয়া ঘম থেকে শুরু করে চলাফেরাতেও বাড়তি সতর্কতা। শুরু থেকেই ডায়েটের দিকে বিশেষ খেয়াল রাখা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, যাতে মা এবং গর্ভের শিশু উভয়ই সুস্থ-সবল থাকে। 

গর্ভাবস্থায় যেমন স্বাস্থ্যকর খাদ্যগ্রহণ জরুরি, ঠিক তেমনই শরীরকে হাইড্রেট রাখাও খুব প্রয়োজনীয়। এক্ষেত্রে সঠিক পরিমাণ পানি পান করা খুবই দরকার। পানি শরীরকে হাইড্রেট রাখার পাশাপাশি এনার্জি সরবরাহ করে। দেহে উপস্থিত বিষাক্ত পদার্থও বাইরে বের করে দেয়। তবে সাধারণ তাপমাত্রার পাশাপাশি সারাদিনে দুই থেকে তিন গ্লাস হালকা গরম পানি পান করা স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই উপকারী। এমনকি গর্ভাবস্থায়ও এই নিয়ম মানতে হবে। তাহলে জেনে নিন এই সময় গরম পানি পান করা কেন জরুরি-

পাচনতন্ত্র ঠিক থাকে 
গর্ভাবস্থায় সাধারণ পানির পাশাপাশি এক থেকে দুই গ্লাস হালকা গরম পানি পান করতে পারেন। এটি গর্ভাবস্থায় পাচনতন্ত্র সম্পর্কিত সমস্যা থেকে রক্ষা করে। শরীরের সমস্ত টক্সিন প্রস্রাবের মাধ্যমে বাইরে বেরিয়ে আসে। গর্ভাবস্থায় ওজন বাড়ার কারণে পাচনতন্ত্রে ফ্যাট জমা হয়। গরম পানি খেলে এই সমস্যাও দূর হবে। 

আরো পড়ুন: কোন বয়সে শিশুর কতটুকু ঘুম প্রয়োজন

ব্লাড সার্কুলেশন ঠিক থাকে 
গরম পানি পান করলে ব্লাড সার্কুলেশন আরো ভালো হয়। এছাড়াও রক্ত ​​সঞ্চালন সঠিকভাবে হলে পর্যাপ্ত পরিমাণে অক্সিজেন এবং পুষ্টি শরীরের প্রতিটি অংশে পৌঁছতে থাকে। 

এনার্জি লেভেল ভালো হয়  
গর্ভাবস্থায় বেশিরভাগ নারীই ক্লান্তি অনুভব করে। তাহলে গরম পানি পান করতে পারেন। এতে শরীর থেকে টক্সিন সহজেই বাইরে বেরিয়ে যাবে। এতে পেশী এবং স্নায়ু সক্রিয় হয়ে যায়, যার ফলে ক্লান্তি অনুভব হয় না।

কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যার সমাধান হবে  
গর্ভাবস্থায় অনেক নারী কোষ্ঠকাঠিন্যে ভোগেন। এটি পানি কম পান করার কারণেও ঘটে। তাই কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে মুক্তি পেতে প্রতিদিন এক গ্লাস হালকা গরম পানি পান করুন, বিশেষত রাতে শোওয়ার আগে। সকালে ঘুম থেকে ওঠার পরেও যদি আপনি এক কাপ হালকা গরম পানি পান করেন তবে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন। 

গর্ভাবস্থায় গরম পানি পান করার সময় সতর্ক থাকুন
> গর্ভাবস্থায় বেশি গরম পানি পান করা থেকে বিরত থাকুন। 
> হালকা গরম পানি পান করুন। 
> দিনে দুই থেকে তিন গ্লাসের বেশি হালকা গরম পানি পান করবেন না।  
> পানি হালকা গরম খেতে পারবেন। তবে এর পরিবর্তে চা কফি কিন্তু এই সময় খাওয়া যাবে না।  

ডেইলি বাংলাদেশ/কেএসকে