গর্ভাবস্থায় পায়ে আংটি পরলে যেসব উপকার মেলে

ঢাকা, শুক্রবার   ৩০ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ১৫ ১৪২৭,   ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

গর্ভাবস্থায় পায়ে আংটি পরলে যেসব উপকার মেলে

স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:১৫ ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০  

ছবি: গর্ভবতী নারী

ছবি: গর্ভবতী নারী

গর্ভাবস্থায় পায়ে আংটি পরার প্রচলন রয়েছে প্রাচীন কাল থেকে। ভাবছেন হয়তো কুসংস্কার এটি। না এমন কিছুই না। পায়ে আংটি পরার রয়েছে অনেক স্বাস্থ্য উপকারিতা। গর্ভবতী নারীরা পায়ে রিং পরালে মা এবং বাচ্চার দারুন উপকার হয়। সেই সঙ্গে প্রসবের সময় কোনো ধরনের জটিলকা হওয়ার আশঙ্কাও হ্রাস পায়।

চলুন আরো উপকারিতাগুলোসম্পর্কে জেনে নেই-

মন শান্ত থাকে
প্রেগন্যান্সির সময় মায়ের শরীরের অন্দরে এত মাত্রায় পরিবর্তন হতে শুরু করে যে তার প্রভাবে স্ট্রেস লেভেলও খুব বেড়ে যায়। ফলে নানা ধরনের জটিলতা মাথা চাড়া দিয়ে ওঠার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়। তাই তো এই সময় পায়ে আংটি পরার পরামর্শ দেয়া হয়ে থাকে। কারণ এমনটা করলে স্ট্রেস লেভেল কমতে শুরু করে। সেই সঙ্গে মনও শান্ত হয়। ফলে ধীরে ধীরে শরীর, ভিতর এবং বাইরে থেকে চাঙ্গা হয়ে ওঠে। 

ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণে থাকে 
পায়ে আংটি পরলে স্ট্রেস লেভেল কমতে শুরু করে। সেই সঙ্গে মনও শান্ত হয়। ফলে ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণে চলে আসে। এতে করে  প্রসবকালে কোনো ধরনের সমস্যা হওয়ার আশঙ্কা একেবারে কমে যায়।

পায়ে আংটি পরাশরীরে রক্তের প্রবাহ বেড়ে যায়
পায়ে আংটি পরলে নির্দিষ্ট একটি আঙুলে চাপ পরতে শুরু করে। যার প্রভাবে ইউটেরাসে রক্তের সরবরাহ বেড়ে যায়। এমনটা হওয়ার কারণে একদিকে যেমন বাচ্চার স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটে, তেমনি মায়ের সঙ্গে বাচ্চার সম্পর্কও আরো গভীর হতে শুরু করে। যার সুফল বাচ্চা জন্ম নেয়ার পর পাওয়া যায়।

আরো পড়ুন: ক্যান্সার প্রতিরোধ করবে কামরাঙা

আকুপ্রেসারের সুফল মেলে
এরইমধ্যে জেনেছেন যে শরীরকে চাঙ্গা করে তুলতে আকুপ্রেসারের ভূমিকাকে অস্বীকার্য। তাই তো পায়ে আংটি পরার প্রয়োজন আরো বৃদ্ধি পয়েছে। কারণ এমনটা করলে পায়ের বিশেষ কিছু অংশে চাপ পরতে শুরু করে। যার প্রভাবে বাচ্চার স্বাস্থ্যের মারাত্মক উন্নতি ঘটে। 

পজেটিভ এনার্জির ঘাটতি দূর হয়
গর্ভাবস্থায় পায়ে অংটি পরলে মন এবং মস্তিষ্ক পজেটিভ শক্তিতে ভরে ওঠে। ফলে মায়ের শরীরের এনার্জির ঘাটতি কমে যায়। এতে করে প্রসবকালীন ঝুঁকি হ্রাস পায়। 

হরমোনাল ইমব্যালেন্স হওয়ার আশঙ্কা কমে
গর্ভাবস্থায় মায়ের শরীরে হরমোনের ক্ষরণ ঠিক মতো হয় না বলেই তো নানা সব সমস্যা ঘিরে ধরে। তাই যদি হরমোনের ক্ষরণ একবার ঠিক মতো হতে শুরু করে, তাহলে আর কোনো চিন্তাই থাকে না। আর এই সময় পায়ে আংটি পরলে হরমোনাল ইমব্যালেন্স হওয়ার আশঙ্কা কমে যায়।

ডেইলি বাংলাদেশ/কেএসকে