লকডাউন ফিরিয়ে দিয়েছে সাইকেলের স্মৃতি

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৬ মে ২০২২,   ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯,   ২৪ শাওয়াল ১৪৪৩

Beximco LPG Gas

লকডাউন ফিরিয়ে দিয়েছে সাইকেলের স্মৃতি

খায়রুল বাশার আশিক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:১৪ ২৩ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৬:২৯ ২৫ জানুয়ারি ২০২২

সাইকেল যে কতোটা উপকারী তা অনেকেই টের পেয়েছেন লকডাউনে। প্রতীকী ছবি

সাইকেল যে কতোটা উপকারী তা অনেকেই টের পেয়েছেন লকডাউনে। প্রতীকী ছবি

সাইকেল যে কতটা উপকারী তা অনেকেই হয়ত টের পেয়েছেন লকডাউনে। লকডাউনে যখন যানবাহন কমে যায়, দূরে বা কাছাকাছি যেতেও হাতের কাছে পাওয়া যেত না কোনো গাড়ি। তাই পরিবহনের মাধ্যম হিসেবে লকডাউনের সময় থেকেই চাহিদা বাড়ে সাইকেলের। অনেকের জীবনেই লকডাউন ফিরিয়ে দিয়েছে ‘সাইকেল স্মৃতি’।

করোনাভাইরাসের কারণে গণপরিবহন ব্যবহার করতে আতঙ্ক কাজ করে, সাইকেল গণপরিবহনের তুলনায় অনেকটাই নিরাপদ। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে রাজধানী ঢাকায় সাইকেল বেড়েছে তিনগুণ। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে সহায়ক ও একইসঙ্গে সাশ্রয়ী হওয়ায় লকডাউনের সময় সাধারণ চাকরিজীবীদের থেকে শুরু করে যে কারো পছন্দের শীর্ষে থেকেছে এই পরিবেশবান্ধব বাহনটি।

লকডাউনে সাইকেল ব্যবহার বেড়েছে বাধ্যগত। তবে অতিতেও সাইকেল ছিল বাঙালিদের অন্যতম চলাচলের বাহন। সেই নব্বইয়ের দশকের কথা। সাধারণ মানুষের জীবনে মোবাইল, কম্পিউটার-মেইল, কিছুই ছিল না। ছিল চিঠি। ছিল সাইকেল। ছোটবেলায় অনেকেই দেখেছেন, দুই চাকায় সওয়ার হয়ে বাড়ি বাড়ি একজন লোক পৌঁছে দিচ্ছেন চিঠি। সাইকেল চড়ে বাড়ি- ঘরে আসতের হকার, দুধওয়ালারা। অনেকেই খুব ভোরে মফস্বল থেকে শহরে যেতেন চাকরি করতে।

নব্বই দশকের বয়স বেড়ে হলো একুশের দশক। মেট্রো-শহরে তো বটেই, গ্রাম-মফস্বলেও দৈনন্দিন জীবন থেকে ফ্যাকাশে হয়ে যাচ্ছিল সাধের সাইকেল। কারণ ছিল অনেক। বাস- লঞ্চ- ট্রেন যে সহজ করে দিয়েছিল যাত্রাপথ। গ্রামের রাস্তায় রিকশা, ভটভটি, ভ্যান, অটো, মাহিন্দা বেড়েছে অনেক। খরচও তেমন বেশি নয়। তাইতো আলসে হয়ে উঠেছিল অনেকেই। অন্যভাবে বলা যায়, সহজলভ্য যানবাহণ প্রাপ্তিই যেন অলস করে তুলেছিল সবাইকে।

আরো পড়ুন : যেভাবে সূচনা হয় প্রাচীন বাংলার বৃহত্তম টাকশালের

এল ২০২০ সাল। করোনা, লকডাউনের বছর। ২০২১-এও বদলালো না সেই ছবি। লকডাউনে দেখা গেল হু হু করে বেড়ে গেল বিভিন্নরকম সাইকেল কেনার চাহিদা। সাইকেলে দূষণ নেই, এনার্জি ছাড়া তেমন কোনো খরচ নেই। জরুরী দরকারে, শরীর চর্চায় অথবা ফুরফুরে হাওয়ায় মন চাঙ্গা করতে লকডাউনে যেন প্রান ফিরে পেল দৈনন্দিন জীবন থেকে হারিয়ে যাওয়া সাইকেল।

করোনাকালে মফস্বলের কতোশত সাধারণ মানুষ জীবিকার জন্য শহরে আসতে বেছে নিয়েছেন সাইকেল। কেউ অসুস্থ ছেলের ওষুধ আনতে সাইকেল নিয়ে পৌঁছে গিয়েছে দূরের শহরে। কেউ সারিয়ে দিয়েছেন মেয়ের পুরোনো সাইকেলটা। কেউ আবার লকডাউনে শহর থেকে নিজের গ্রামে ফিরতে পরিবহণের মাধ্যম হিসেবে বেছে নিয়েছেন সাইকেল। এ রকম হাজারো খবর মিলবে।

সাইকেল যে কতোটা উপকারী তা অনেকেই টের পেয়েছেন লকডাউনে। তমনি মনে করিয়ে দিয়েছে, আইনস্টাইনের একটি কথা। আইনস্টাইন বলেছিলেন, জীবন হলো বাইসাইকেল চালানোর মতো, সব সময় চালাতে হয়, তা নাহলে পড়ে যেতে পারে!

ডেইলি বাংলাদেশ/কেবি

English HighlightsREAD MORE »