চুল থেকে চশমা, উত্তর কোরিয়ায় কিছু অদ্ভুত নিষেধাজ্ঞা

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৮ জানুয়ারি ২০২২,   ৫ মাঘ ১৪২৮,   ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

চুল থেকে চশমা, উত্তর কোরিয়ায় কিছু অদ্ভুত নিষেধাজ্ঞা

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:৫৬ ২৭ নভেম্বর ২০২১   আপডেট: ১৭:১১ ২৭ নভেম্বর ২০২১

চুল থেকে চশমা, উত্তর কোরিয়ায় কিছু অদ্ভুত নিষেধাজ্ঞা। ছবি সংগৃহীত

চুল থেকে চশমা, উত্তর কোরিয়ায় কিছু অদ্ভুত নিষেধাজ্ঞা। ছবি সংগৃহীত

অনেক দেশের রক্ষণশীল শাসনব্যবস্থায় অনেক পোশাক পরা নিষিদ্ধ। কারণটা মোটামুটি একই। ঐ পোশাকগুলো দেশের সংস্কৃতির পরিপন্থী। উত্তর কোরিয়াতেও অনেক ধরনের পোশাকই নিষিদ্ধ। যদিও তার সব কয়টির কারণ এক নয়। তবে শুধু পোশাক নয়, অনেক ধরনের সাজেও রয়েছে কিছু অদ্ভুত নিষেধাজ্ঞা উত্তর কোরিয়ায়। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক সেই তালিকা। 

নামজাদা কোম্পানির টিশার্ট

নামজাদা কোম্পানির টিশার্টপ্রতিদিনের জীবনে অনেক পুরুষই টি-শার্ট পরেন। টি-শার্ট বেশ আরামদায়ক হওয়ায় সব মৌসুমেই এর কদর আছে। অফিস থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় কিংবা বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা সব জায়গায়ই টি-শার্ট যেন দিব্যি মানিয়ে যায়। তবে উত্তর কোরিয়ায় নামজাদা টিশার্ট প্রস্তুতকারী কোম্পানিগুলোর অনেকগুলোই ইউরোপ এবং আমেরিকার। সেই সব কোম্পানির টিশার্ট বাদ। তবে দেশে তৈরি টিশার্ট পরা যেতে পারে।

অবিবাবিত মেয়েদের বড় চুল

অবিবাবিত মেয়েদের বড় চুল
উত্তর কোরিয়ায় যার যেমন খুশি চুল কাটবেন সে উপায় নেই। বিয়ে হয়নি? তা হলে বড় চুল রাখা যাবে না। মেয়েদের জন্য এমন নিয়ম উত্তর কোরিয়ায়। স্বৈরশাসক কিম জং উন ক্ষমতায় আসার পর পরই ঠিক করে দিয়েছেন, দেশের সব পুরুষকে বিশেষ ১০টি আর মেয়েদের ১৮টি হেয়ার স্টাইলের মধ্যেই যে কোনো একটি বেছে নিতে হবে। আর কিম জং উন যেভাবে চুল কাটান সেভাবে দেশের আর কেউ কাটাতে পারবেন না৷

চামড়ার ট্রেঞ্চ কোট

চামড়ার ট্রেঞ্চ কোট
ফ্যাশন বিশ্বের নস্টালজিয়া সম্প্রতি রেকর্ড স্তরে পৌঁছেছে। নব্বই এর দশকের সঙ্গে আমাদের সংযোগটি বিশেষত দৃঢ় - এমনকি ২০০০ এর দশকের ফিরে আসার পরেও, আমরা স্লিপ পোশাক, পুরুষালি জ্যাকেট এবং অবশ্যই, প্রধান টাইমস্ট্যাম্পগুলোর মধ্যে একটি। তবে চামড়ার ট্রেঞ্চ কোটটি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পরা গেলেও উত্তর কোরিয়ায় এই বিশেষ ধরনের কোট পরেন খোদ কিম জং নিজে। ফলে দেশের আর কারও এই ধরনের কোট পরার অধিকার নেই।

নাক বা ঠোঁট ফুটো করানো

নাক বা ঠোঁট ফুটো করানো
বড় হয়ে মেয়েরা কানে পরবে দুল, বাহারি গয়না। তাই কান ফোঁড়াতে হবে আগেই। আগে দেখা যেত গ্রামের নানি-দাদিরা কাঁথা সেলাইয়ের সুই দিয়ে কান ফুঁড়িয়ে দিতেন। তবে উত্তর কোরিয়ায় নাক বা ঠোঁট ফুটো করানো একেবারে নিষিদ্ধ। খুব বেশি হলে কানে ফুটো করানো যেতে পারে। তাও একটির বেশি নয়।

আঁটো জিন্স ও ছেঁড়া জিন্স

আঁটো জিন্স ও ছেঁড়া জিন্স
ফ্যাশনের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলা বড়োই কঠিন। কাল যেটা ফ্যাশনে ছিল, আজ আর নেই। নতুন জিনিস নিয়ে আবার হইহই শুরু হয়েছে। যারা ফ্যাশনের সঙ্গে সঙ্গে চলতে পারেন তাদের অবশ্যই সাধুবাদ জানাই। তবে সব দেশে নিজেদের খুশি মতো পোশাক পরলেও উত্তর কোরিয়ায় পরা যাবে না। উত্তর কোরিয়ার শাসকের মতে, এটি দেশের সংস্কৃতির পরিপন্থী। একেবারেই পশ্চিমী সংস্কৃতির অঙ্গ এই ধরনের পোশাক। তাই উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং এই ধরনের প্যান্ট নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছেন। এটি পশ্চিমের সংস্কৃতির অঙ্গ।

চুলে রং

চুলে রং
উত্তর কোরিয়ায় যার যেমন খুশি চুলে রং করার উপায় নেই। স্বৈরশাসক কিম জং উন ক্ষমতায় আসার পর পরই ঠিক করে দিয়েছেন, ২৮ রকমের চুলের কায়দা বলা আছে দেশের নিয়মে। তার মধ্যে থেকেই পুরুষদের যে কোনো একটি বাছতে হয়। এর বাইরে নতুন কোনো রকমের কায়দায় চুল কাটা যায় না। রং তো মোটেই নয়।

মাও জে দংয়ের মতো স্যুট

মাও জে দংয়ের মতো স্যুট
উত্তর কোরিয়ায় যে কোনো মানুষ মাও জে দংয়ের মতো স্যুট পরতে পারবে না। কারণ এই ধরনের স্যুটও কিম জং পরেন। তাই দেশের বাকি কারও মাও জে দংয়ের মতো স্যুট পরার অনুমতি নেই। 

চশমা

চশমা
উত্তর কোরিয়ায় যে কোনো চশমার উপর নিষেধাজ্ঞা নেই, তবে সেই চশমার সঙ্গে যেন কিম জংয়ের চশমার কোনো মিল না থাকে। বিশেষ করে রঙে। কিম জংয়ের চশমার রঙে চশমা পরা যাবে না। 

সূত্র: আনন্দবাজার 

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএ

English HighlightsREAD MORE »