দুই হাত নেই, তবুও তিনি বিশ্বের প্রথম ‘কার রেসার’

ঢাকা, বুধবার   ০৮ ডিসেম্বর ২০২১,   অগ্রহায়ণ ২৪ ১৪২৮,   ০২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

দুই হাত নেই, তবুও তিনি বিশ্বের প্রথম ‘কার রেসার’

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২২:২১ ১৭ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ২২:২৩ ১৭ অক্টোবর ২০২১

দুই হাত নেই, তবুও তিনি বিশ্বের প্রথম কার রেসার। ছবি: সংগৃহীত

দুই হাত নেই, তবুও তিনি বিশ্বের প্রথম কার রেসার। ছবি: সংগৃহীত

মানুষ কঠোর পরিশ্রম আর মনোবল দিয়েই পৃথিবী জয় করেছে। এরকম অনেক নজির রয়েছে আমাদের সমাজে। কেউ জন্মগতভাবে কিংবা দুর্ঘটনাজনিতভাবে শরীরের একটি অঙ্গ হারিয়ে জয় করেছেন পৃথিবী।

তারা স্বাভাবিক মানুষের চেয়েও ভালোভাবে জীবনযাপন করেন। এমন অনেকের কথাই তো জেনেছেন। আজ এমন একজন অদম্য মনোবলের মানুষের কথা জানাবো যিনি মনের জোড়েই নানা প্রতিকূলতা অতিক্রম করে বিশ্ব জয় করেছেন। নাম তার বারটেক ওস্টালোভস্কি।

বারটেক ওস্টালোভস্কিতিনি পোল্যান্ডে বাসিন্দা। বারটেক ওস্টালোভস্কি নামে ঐ ব্যক্তি ২০০৬ সালে এক মারাত্মক মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় দু’হাত হারান। মাত্র ২০ বছর বয়সেই পঙ্গু হয়ে যান তিনি। তবে তিনি থেমে যাননি। বরং নিজেকে নতুন মানুষ হিসেবে গড়ে তুলেছেন। শত বাঁধার সম্মুখীন হয়েও তিনি আজ একজন পেশাদার স্পোর্টস ড্রাইভার। ডজনখানেকেরও বেশি কার রেসিংয়ে জিতে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন তিনি।

জানলে অবাক হবেন, তিনিই বিশ্বের একমাত্র হাতছাড়া পেশাদার স্পোর্টস কার ড্রাইভার। দুই পা দিয়েই স্পোর্টস কার চালিয়ে রেস জিতে নজির সৃষ্টি করেছেন বারটেক ওস্টালোভস্কি। এই পোলিশ ড্রাইভার প্যাডেল নিয়ন্ত্রণে তার ডান পা ব্যবহার করেন। আর বাম পা দিয়ে স্টিয়ারিং ধরেন। 

পোলিশ ড্রাইভার প্যাডেল নিয়ন্ত্রণে তার ডান পা ব্যবহার করেন, আর বাম পা দিয়ে স্টিয়ারিং ধরেন।তিনি জানান, দুর্ঘটনায় দুই হাত হারানোর পর আমার জীবন সম্পূর্ণ বদলে যায়। নিজেকেই প্রশ্ন করি, কীভাবে এগিয়ে যাব আমি? অতঃপর পোল্যান্ডে আমার মতোই একজনের কথা শুনি, যারা দুই হাত ছিল না। তবে তিনি স্বাভাবিকভাবেই গাড়ি চালান। এরপর তার সঙ্গে দেখা করি এবং পা দিয়ে ড্রাইভিং শিখি।

এরপর টানা তিন বছর কঠোর অধ্যাবসায়ের মাধ্যমে দক্ষতার সঙ্গে রেসিং কার চালানো শেখেন বারটেক ওস্টালোভস্কি। একদিন মনের জোর আর প্রবল সাহস নিয়ে রেসিং করার সিদ্ধান্ত নেন বারটেক ওস্টালোভস্কি। পোলিশ রেসিং সার্কিটের তালিকায় নিজের নাম লেখান। জানলে অবাক হবেন, বারটেক ওস্টালোভস্কি বড় এক চ্যালেঞ্জ ‘ড্রিফট রেসিং’ করার সিদ্ধান্ত নেন।

বারটেক ওস্টালোভস্কি বড় এক চ্যালেঞ্জ ড্রিফট রেসিং করার সিদ্ধান্ত নেনযদি আপনি ড্রিফট রেসিংয়ের বিষয়ে জানেন, তাহলে নিশ্চয়ই বুঝবেন সেটি কতটা কঠিন। ট্র্যাকের চারপাশে স্কিড করার সময় গাড়িকে নিয়ন্ত্রণ রাখতে হয়। এক্ষেত্রে চোখ ও হাতের সমন্বয় দরকার হয়। তবে সবাইকে অবাক করে দিয়ে জীবনের প্রথম ড্রিফট রেসিং জেতেন তিনি। ২০১৯ সালে বারটেক ওস্টালোভস্কি পোলিশ ড্রিফট চ্যাম্পিয়নশিপে ৫০ জন চালকের মধ্যে নবম স্থান অধিকার করেন। যা সমগ্র ইউরোপের অন্যতম প্রতিযোগিতামূলক চ্যাম্পিয়নশিপ সিরিজ।

সমগ্র ইউরোপের অন্যতম প্রতিযোগিতামূলক চ্যাম্পিয়নশিপ সিরিজএর আগে ২০১৮ সালে বারটেক ওস্টালোভস্কি আন্তর্জাতিক চেক ড্রিফট সিরিজও জিতেছেন। এছাড়াও ডজনখানেকেরও বেশি রেসে অংশগ্রহণ করে অনেক পুরস্কার ও সম্মান জিতেছেন তিনি। তিনি সত্যিকারের হিরো হিসেবে তকমা পেয়েছেন। সারা বিশ্বের প্রতিবন্ধীদের জন্য অনুপ্রেরণা তিনি। ইচ্ছে থাকলেই যে উপায় হয় তা প্রমাণ করেছেন এই সাহসী ব্যক্তি। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএ

English HighlightsREAD MORE »