বিশ্বের ‘সবচেয়ে সাদা রং’ এসির বিকল্প হিসেবে কতখানি কাজ করে

ঢাকা, সোমবার   ১৮ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ৩ ১৪২৮,   ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বিশ্বের ‘সবচেয়ে সাদা রং’ এসির বিকল্প হিসেবে কতখানি কাজ করে

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:১৬ ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১   আপডেট: ১২:১৮ ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১

এসির বিকল্প হিসেবে কাজ করবে বিশ্বের ‘সবচেয়ে সাদা রং’

এসির বিকল্প হিসেবে কাজ করবে বিশ্বের ‘সবচেয়ে সাদা রং’

বিজ্ঞানের উৎকর্ষতা দিন দিন জীবনকে সহজ করছে। আবিষ্কার হচ্ছে নতুন নতুন সব বিকল্প পদ্ধতি। এবার সেই যাত্রায় যুক্ত হলো আরো একটি বিকল্প পদ্ধতি। তা হচ্ছে আপনার ঘরের শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত যন্ত্রের। বিজ্ঞানীরা এসির বিকল্প হিসেবে তৈরি করেছেন সাদা রং। তাও এটি বিশ্বের সবচেয়ে সাদা রং। এই রং ঘরে এসির বিকল্প হিসেবেই জাক করবে বলে দাবি বিজ্ঞানীদের।  

যুক্তরাষ্ট্রের পুরদু বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা ল্যাবে তৈরি করেছেন বিশ্বের 'সবচেয়ে সাদা রং'। ইতোমধ্যেই গিনেজ বুকে 'সবচেয়ে সাদা রং' হিসেবে নাম উঠেছে এটির। কিন্তু আসল চমক হলো, বিজ্ঞানীরা বলছেন, এই রং এয়ার কন্ডিশনার (এসি) ব্যবহারের প্রয়োজনীয়তা কমিয়ে আনবে। 

এটি বিশ্বের সবচেয়ে সাদা রংগবেষকরা জানান, তাদের উদ্দেশ্য ছিল এমন একটি রং তৈরি করা যা সূর্যের বিকিরণ প্রতিফলিত করতে পারবে। এই রংটি ৯৮ দশমিক ১ শতাংশ সূর্যের বিকিরণ প্রতিফলিত করতে পারে। তবে মনে প্রশ্ন আসছে নিশ্চয়,কেন এমন একটি রং তৈরির কথা মাথায় এলো বিজ্ঞানীদের? আর কেনই বা এসির বিকল্প বের করার প্রয়োজন পড়লো। নাহ, বিশ্বরেকর্ড গড়ার জন্য নয়। বরং বৈশ্বিক উষ্ণায়ন কমিয়ে আনাই ছিল তাদের লক্ষ্য।

"সাত বছর আগে আমরা যখন এই প্রজেক্টটা শুরু করি, তখন আমরা জলবায়ু পরিবর্তন ও জ্বালানি বাঁচানোর বিষয়টি মাথায় রেখেই কাজ শুরু করেছিলাম," বলেন পুরদু বিশ্ববিদ্যালয়ের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক জিউলিন রুয়ান। গবেষকরা জানান, তাদের উদ্দেশ্য ছিল এমন একটি রং তৈরি করা যা সূর্যের বিকিরণ প্রতিফলিত করতে পারবে। এই রংটি ৯৮ দশমিক ১ শতাংশ সূর্যের বিকিরণ প্রতিফলিত করতে পারে; যেখানে বাজারের প্রচলিত রংগুলো তা ৮০-৯০ শতাংশ প্রতিফলিত করে।

ইতোমধ্যেই গিনেজ বুকে `সবচেয়ে সাদা রং` হিসেবে নাম উঠেছে এটিরশুধু তাই নয়, নতুন আবিষ্কৃত এই রংটি ইনফ্রারেড তাপও প্রবেশ করতে দিবে না। কোনো ভবনের ছাদে ও দেয়ালে এই রং এর প্রলেপ দেওয়া হলে, প্রাকৃতিকভাবেই ঘর ঠাণ্ডা থাকবে। যেমন, ১০০০ বর্গফুটের ছাদে যদি এই রং ব্যবহার করা হয়, তাহলে তা এয়ারকন্ডিশনারের ১০ কিলোওয়াট বিদ্যুৎ বাঁচাতে পারবে।

পুরদু বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা জানান, দুটি বৈশিষ্ট্যের কারণে এটি সবচেয়ে সাদা রঙে পরিণত হয়েছে- ব্যারিয়াম সালফেট নামক একটি কেমিক্যাল যৌগের নির্দিষ্ট ঘনত্ব এবং ব্যারিয়াম সালফেটের বিভিন্ন আকারের অণু।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, রংটি বাজারে আনার জন্য পুরদু বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা ইতোমধ্যেই একটি কোম্পানির সঙ্গে চুক্তিতে এসেছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/কেএসকে