গৃহিণী থেকে নকশা’র শীলা

ঢাকা, শনিবার   ১৯ জুন ২০২১,   আষাঢ় ৭ ১৪২৮,   ০৭ জ্বিলকদ ১৪৪২

গৃহিণী থেকে নকশা’র শীলা

ফিচার প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:০২ ৮ এপ্রিল ২০২১   আপডেট: ২৩:৪২ ৮ এপ্রিল ২০২১

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

মন এবং মস্তিষ্কের সৃজনশীলতা একজন নারীকে সফল উদ্যোক্তা হতে সহায়তা করতে পারে, এর অন্যতম উদাহরণ শীলা আহমেদ। নিজের ক্যারিয়ার দাঁড় করানোর আগে বিয়ে হয়ে গেলেও একজন সু-গৃহিণী থেকে সফল নারী উদ্যোক্তা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হয়েছেন এক ছেলে এক মেয়ের মা শীলা।

এখন তার ডিজাইন করা সব বয়সী নারীদের যে কোনো ধরনের পোশাক কিংবা শাড়ির কদর ঢাকা ছাড়িয়ে সারাদেশে। শীলার প্রতিষ্ঠানের নাম ‘নকশা’। শীলা জানিয়েছেন, নানা প্রতিবন্ধকতা ও চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি দাঁড়িয়েও তিনি এগি‌য়ে নি‌য়ে গেছেন প্ল্যাটফর্ম‌টিকে।

এভাবেই নিজের ‘নকশা’ নামের পেজে পণ্যের বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকেন শীলা

শুরুটা বেশ ক‌য়েকবছর আগে। অবসর সময় কাটা‌নোর জন্যই শ‌খের ব‌সে তি‌নি ‘নকশা’ চালু করে‌ছি‌লেন। পেইজ‌টি সাড়া জাগাতে খুব বেশি সময় লাগে‌নি। কারণ শীলা সবসময় তার প‌ণ্যে বৈ‌চিত্র্য আনার চেষ্টা কর‌তেন। ধী‌রে ধী‌রে বেশ ভা‌লো সাড়া পে‌তে থা‌কেন তি‌নি।

শীলা আহ‌মেদ বলেন, শখের বসে এই কাজে জড়িত হয়েছিলাম; কিন্তু এখন এটা আমার নেশা থেকে পেশায় পরিণত হয়েছে। আগে আমি এটার কথা বলতে বলতে সংকোচ বোধ করতাম। খুব একটা প্রকাশ করতাম না। কিন্তু এখন গ‌র্বের স‌ঙ্গে প‌রিচয় দিই।

শীলা নিজেই জা‌নিয়েছেন, একসময় তি‌নি নি‌জে‌কে গৃহিণী বলতেই বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ কর‌তেন। কোথাও কোনো কাজে ফর্ম পূরণ করতে হলে পেষা হি‌সে‌বে গৃহিণী উল্লেখ কর‌তেন। কিন্তু হুট করে একদিন তার মে‌য়ে বললো, তুমি গৃহিণী লিখছো কেন? ব্যবসায়ী লিখো! তুমি একজন ব্যবসায়ী।

নি‌জের মে‌য়েই শীলা‌কে ব্যবসায়ী হি‌সে‌বে প্রথম স্বীকৃতি দেয়। এরপর থে‌কে শীলা পেশ‌ায় নিজে‌কে ব্যবসায়ী হি‌সেবে প‌রিচয় দেন। তি‌নি গ‌র্বের স‌ঙ্গে ব‌লেন, আমি একজন উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ী।

‘নকশা’ পেজে নিজের পণ্যের বিজ্ঞপন দেন শীলা

নিজস্ব ডিজাইনে শীলা আহ‌মেদ নারীদের সব ধরনের থ্রি পিস, শাড়ি, ফতুয়াসহ নানা পণ্য তৈরি করেন। ঢাকা ছাড়িয়ে সারাদেশেই রয়েছে নকশা’র রিপিটেড গ্রাহক। স্বতন্ত্র এবং নান্দনিক ডিজাইনকে প্রাধান্য দিয়েই স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট নিয়ে পোশাক তৈরি করেন তারা। ফলে রিপিটেড ক্রেতার পরিমাণ দিন দিন বাড়ছে বলে জানান শীলা।

বিদেশি পোশাকের আধিপত্যের কারণে দেশীয় পোশাক নিয়ে কাজ করা পুরোপুরি চ্যালেঞ্জিং একটা ব্যাপার। একদম স্রোতের বিপরীতে কাজ করার মতো। সেই দিক থেকে নিজের মনোবল ধরে রেখে কাজ করে যাচ্ছেন তি‌নি। স্বপ্ন রয়েছে এর পরিসর আরো অনেক বড় হবে। ঢাকাতে নকশা'র বড় শো-রুম করার পরিকল্পনা রয়েছে শীলা আহমে‌দের।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে/এমআর