আজকের এই দিনে বাংলাদেশকে স্বাধীন দেশ হিসেবে স্বীকৃতি দেয় গিনি-বিসাউ

ঢাকা, শনিবার   ৩১ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ১৬ ১৪২৭,   ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

আজকের এই দিনে বাংলাদেশকে স্বাধীন দেশ হিসেবে স্বীকৃতি দেয় গিনি-বিসাউ

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৯:৩৪ ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ০৯:৩৫ ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

আজ ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, বুধবার, ১৫  আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১২ সফর ১৪৪২।  গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জী অনুসারে, বছরের ২৭৩  তম (অধিবর্ষে ২৭৪ তম) দিন। বছর শেষ  হতে আর বাকি মাত্র ৯২ দিন।    

আজকের দিনটি সময়ের হিসাবে অতি অল্প সময়। আবার একটি ঘটনার জন্য যথেষ্ট সময়। ইতিহাস ঘেঁটে দেখা যায় বছরের প্রতিটি দিনেই ঘটেছে নানা উল্লেখযোগ্য ঘটনা। অনেকের আজ জন্মবার্ষিকী আবার কেউ মৃত্যুবরণ করেছিলেন এই দিনেই। চলুন এক নজরে দেখে নেয়া যাক আজকের দিনের ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য কিছু বিষয়-    

ইতিহাসের পাতায় আজকের দিনটি:   
১৬৬৭ - অওরঙ্গজেব-এর সাম্রাজ্যে সংযোজিত হল গোলকুণ্ডা।
১৮৬০ - ব্রিটেনে প্রথম ট্রাম চালু হয়।
১৮৮২ - প্রথম থমাস এডিসনের উদ্ভাবিত হাইড্রো-ইলেকট্রিক পাওয়ার প্লান্ট চালু হয়।
১৯২২ - বেনিতো মুসোলিনি ইতালিতে প্রথম ফ্যাসিবাদী সরকার গঠন করেন।
১৯২৮ - পেনিসিলিনের আবিষ্কারের কথা প্রথম ঘোষিত হয়।
১৯৩৮ - জার্মানিতে ঐতিহাসিক মিউনিখ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
১৯৩৯ - পোল্যান্ডের বিভক্তি স্বীকার করে জার্মানি ও সোভিয়েত ইউনিয়ন একটি চুক্তিতে উপনীত হয়।
১৯৩৯ - ব্রিটেনে পরিচয়পত্র প্রথা চালু হয়।
১৯৩৯ - পোল্যাণ্ডের বিভাজন নিয়ে জার্মানি ও রাশিয়া সহমত পোষণ করে।
১৯৪৭ - পাকিস্তান ও ইয়েমেন জাতিসংঘে যোগদান করে।
১৯৬৬ - বোতসোয়ানা ব্রিটিশ উপনিবেশের কবল থেকে মুক্ত হয়ে স্বাধীনতা অর্জন করে এবং এ দিনটিকে তারা জাতীয় দিবস হিসেবে উদযাপন করে।
১৯৭৩ - বাংলাদেশকে স্বাধীন দেশ হিসেবে স্বীকৃতি দেয় গিনি-বিসাউ।
১৯৯২ - বাংলাদেশে কার্ড ফোন ব্যবস্থা চালু হয়।
১৯৯৩ - ভারতের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য মহারাষ্ট্রে প্রচণ্ড ভূমিকম্পে ২০ হাজারেরও বেশি লোকের প্রাণহানি ঘটে। 

আজ যাদের জন্মদিন:
১২০৭ - জালাল উদ্দিন মুহাম্মদ রুমি, পারস্যের কবি। (মৃ. ১২৭৩)
১৪৪৪ - ডোনাটো ব্রামান্তে, তিনি ছিলেন ইতালির প্রখ্যাত স্থাপত্য শিল্পী।
১৭০০ - স্টানিস্লাও কনারস্কি, তিনি ছিলেন পোলিশ সন্ন্যাসী, কবি ও নাট্যকার।
১৮২৮ - যোগীরাজ শ্যামাচরণ লাহিড়ী বা লাহিড়ী মহাশয়, ভারতীয় যোগী ও গুরু । 
১৮৬৪ - সুনীতি দেবী, ব্রিটিশ ভারতীয় দেশীয় রাজ্য কোচবিহারের মহারাণী। 
১৮৭০ - জঁ-বাতিস্ত পেরাঁ, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী ফরাসি বংশোদ্ভূত আমেরিকান পদার্থবিদ।
১৯০৫- নেভিল ফ্রান্সিস মট, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী ইংরেজ পদার্থবিদ।
১৯০৫- মাইকেল পাওয়েল, ইংরেজ চলচ্চিত্র পরিচালক, প্রযোজক ও চিত্রনাট্যকার।  
১৯২২ - হৃষিকেশ মুখার্জী , হিন্দি চলচ্চিত্রের প্রখ্যাত ভারতীয় বাঙালী পরিচালক। 
১৯২৮ - এলি ওয়িইয়েসেল, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী রোমানিয়ান বংশোদ্ভূত আমেরিকান লেখক, অধ্যাপক ও সমাজ কর্মী।
১৯৩১ - জ্যাঁ মারি লেঁ, তিনি ছিলেন নোবেলজয়ী ফরাসি রসায়নবিদ।
১৯৩৩ - অজিতেশ বন্দোপাধ্যায়, তিনি বাঙালি নাট্যকার ও অভিনেতা। 
১৯৩৯ - জাঁ মারি লেহন, তিনি নোবেল পুরস্কার বিজয়ী ফরাসি রসায়নবিদ।
১৯৪৩ - যোহান ডেইসেনহফের, তিনি নোবেল পুরস্কার বিজয়ী জার্মান প্রাণরসায়নী।
১৯৪৪ - আবুল কাসেম ফজলুল হক, বাংলাদেশী প্রাবন্ধিক ও রাষ্ট্রচিন্তাবিদ।
১৯৫১ - ব্যারি মার্শাল, তিনি নোবেল পুরস্কার বিজয়ী অস্ট্রেলিয়ান চিকিত্সক।
১৯৬২ - প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, ভারতীয় বাঙালি চলচ্চিত্র অভিনেতা।
১৯৭২ - শান্তনু মুখার্জী শান, তিনি একজন খ্যাতিমান ভারতীয় গায়ক।
১৯৮৫ - টি-পেইন, আমেরিকান রাপার, প্রযোজক ও অভিনেতা।  

এই দিনে মৃত্যুবরণ করেন যারা:
১৮৭৫ - প্যারীচরণ সরকার,ভারতীয় বাঙালি শিক্ষাবিদ, সমাজসংস্কারক ও ঊনিশ শতকের বাঙলার পাঠ্যপুস্তক রচয়িতা। 
১৯১৯ - শিবনাথ শাস্ত্রী, ভারতীয় বাঙালি শিক্ষাবিদ, সমাজসংস্কারক, দার্শনিক, লেখক, অনুবাদক, ঐতিহাসিক। 
১৯৪৩ - রামানন্দ চট্টোপাধ্যায়, ব্রিটিশ ভারতীয় শিক্ষাবিদ ও সাংবাদিক। 
১৯৫৩ - আবদুল করিম, তিনি ছিলেন সাহিত্য বিশারদ উপাধিতে ভূষিত পুঁথি সংগ্রাহক ও লেখক।
১৯৫৫ - জেমস ডিন, তিনি ছিলেন আমেরিকান অভিনেতা।
১৯৮৫ - সিমন সিগ্নরেট, তিনি ছিলেন জার্মান বংশোদ্ভূত ফরাসি অভিনেত্রী।
১৯৯০ - প্যাট্রিক হোয়াইট, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী ইংরেজ বংশোদ্ভূত অস্ট্রেলিয়ান লেখক।
১৯৯৮ - রবার্ট লুইস টেলর, তিনি ছিলেন আমেরিকান লেখক।
১৯৯৯- শেখ ইশতিয়াক, বাংলাদেশের একজন গুণী সঙ্গীতশিল্পী।
২০০৪ - মাইকেল রেলফ, তিনি ছিলেন ইংরেজ পরিচালক, প্রযোজক ও চিত্রনাট্যকার।
২০১৩ - রাম্বলিন ‘টমি স্কট’, তিনি ছিলেন আমেরিকান গায়ক ও গিটার।

ছুটি ও অন্যান্য
আন্তর্জাতিক অনুবাদ দিবস
জাতীয় কন্যা শিশু দিবস (বাংলাদেশ)।

ডেইলি বাংলাদেশ/কেএসকে