পর্তুগালে বাংলাদেশ দূতাবাসে বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল’র জন্মবার্ষিকী পালিত

ঢাকা, শুক্রবার   ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ৯ ১৪২৮,   ১৫ সফর ১৪৪৩

পর্তুগালে বাংলাদেশ দূতাবাসে বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল’র জন্মবার্ষিকী পালিত

পর্তুগাল প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২২:৫৬ ৫ আগস্ট ২০২১   আপডেট: ২৩:০৬ ৫ আগস্ট ২০২১

বক্তব্য রাখছেন রাষ্ট্রদূত তারিক আহসান

বক্তব্য রাখছেন রাষ্ট্রদূত তারিক আহসান

যথাযথ মর্যাদায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর জ্যেষ্ঠ পুত্র বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল-এর ৭২তম জন্মবার্ষিকী পালন করেছে বাংলাদেশ দূতাবাস, লিসবন, পর্তুগাল। 

৪ আগস্ট বাংলাদেশ দূতাবাস প্রাঙ্গণে আলোচনা সভা, প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন এবং বিশেষ দোয়া ও মোনাজাতের আয়োজন করা হয়। কোভিড-১৯ মহামারির প্রেক্ষিতে পর্তুগীজ সরকার কর্তৃক আরোপিত বিধি-নিষেধ অনুসরণ করে যথাযথ মর্যাদায় দিবসটি উদযাপন করা হয়। 

আলোচনা পর্বে রাষ্ট্রদূত তারিক আহসান তার বক্তব্যের শুরুতেই সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দ্বিতীয় সন্তান ও জ্যেষ্ঠ পুত্র বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। 

শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের স্মৃতিচারণ করে রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘তিনি বঙ্গবন্ধুর মতই ছিলেন বাঙ্গালির অধিকার আদায়ে সোচ্চার আর নির্ভীক। ৬ দফা ও ১১ দফা আন্দোলন এবং ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন আর ছাত্রসমাজকে সংগঠিত করে শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। স্বাধীন বাংলাদেশের ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক আন্দোলনে শেখ কামালের অবদান চিরস্মরণীয়। 

রাষ্ট্রদূত আরো বলেন, মাত্র ২৬ বছরের সংক্ষিপ্ত জীবন ছিল তার অসামান্য অর্জনে সমৃদ্ধ। বহুগুণের অধিকারী শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের জীবন ও আদর্শ সবসময় আমাদের কাছে, বিশেষ করে যুব সমাজের কাছে অনুপ্রেরণার উৎস হয়ে থাকবে।  

আলোচনা শেষে শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ওপর নির্মিত প্রামাণ্যচিত্র, ‘শেখ কামাল: এক কিংবদন্তির কথা’ প্রদর্শন করা হয়। 

সবশেষে, বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালসহ জাতির পিতা, তার পরিবারের অন্যান্য শহিদ সদস্য ও শহিদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে এবং দেশের অব্যাহত উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির জন্য বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে