পাবিপ্রবির বাসে ভেহিকল ট্র্যাকিং নিয়ে যা ভাবছেন শিক্ষার্থীরা

ঢাকা, বুধবার   ০৫ অক্টোবর ২০২২,   ২০ আশ্বিন ১৪২৯,   ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

Beximco LPG Gas

পাবিপ্রবির বাসে ভেহিকল ট্র্যাকিং নিয়ে যা ভাবছেন শিক্ষার্থীরা

পাবিপ্রবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:৩৯ ১৩ আগস্ট ২০২২   আপডেট: ১৭:৫৪ ১৩ আগস্ট ২০২২

মতামত জানানো পাবিপ্রবি শিক্ষার্থীরা। ছবি: প্রতিনিধি

মতামত জানানো পাবিপ্রবি শিক্ষার্থীরা। ছবি: প্রতিনিধি

সম্প্রতি পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পাবিপ্রবি) পরিবহনগুলোতে ভেহিকল ট্র্যাকিং সিস্টেম (ভিটিএস) প্রযুক্তি ব্যবহারের ঘোষণা দিয়েছেন। আগামী সপ্তাহে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহনে ভেহিকল ট্র্যাকিং সিস্টেম (ভিটিএস) প্রযুক্তি উদ্বোধনের কথা রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহনে এই প্রযুক্তি ব্যবহার নিয়ে শিক্ষার্থীদের ভাবনা জানতে চেষ্টা করেছে ডেইলি বাংলাদেশের পাবিপ্রবি প্রতিনিধি আবদুল্লাহ মামুন। 


আলী হাসান রাফি 
শিক্ষার্থী- সম্মান চতুর্থ বর্ষ
সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ

৩০ একরের একটি ছোট ক্যম্পাস পাবিপ্রবি। বিশ্ববিদ্যালয়ে মাত্র দুইটি হল থাকায় প্রায় ৭৫ শতাংশের বেশি ছাত্র-ছাত্রীদেরকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে মেসে বা বাসা ভাড়া করে থাকতে হয়। যে কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে ক্যাম্পাসে পৌঁছতে হয়। বাসে আসতে আমাদের নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। যেমন- বাসের সিডিউল, বাসের লোকেশন, নির্দিষ্ট রুটে কয়টা বাস, একটি বাস চলে গেলে ঐ রুটে পরে আর কোনো বাস আছে কিনা এগুলো জানা যায় না। এর ফলে আমাদের অনেক ভোগান্তি পোহাতে হয়। বাসে ট্র্যাকিং সিস্টেমটা ব্যবহার করলে আমাদের এই ভোগান্তি কমে যাবে। আমরা ঠিক সময়ে ঠিক জায়গায় বাস পাব। এতে করে আমাদের গুরুত্বপূর্ণ সময় বাঁচবে, সেই সঙ্গে বাসের সিডিউল এবং অবস্থান নিয়ে আমাদের চিন্তায় থাকা লাগবে না।

 

মো. শামীম মিয়া
শিক্ষার্থী- সম্মান তৃতীয় বর্ষ
কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগ

পাবিপ্রবির বাসগুলো ট্র্যাক করার জন্য বাসে ভেহিকল ট্র্যাকিং সিস্টেম চালু করা হচ্ছে এটি নিঃসন্দেহে ভালো একটি উদ্যোগ। এতে করে শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি অনেকাংশে কমে যাবে। এই ট্র্যাকিং সিস্টেম চালু হলে প্রত্যেক শিক্ষার্থী তার নিজস্ব স্থান থেকে জানতে পারবে কোন রোডে কোন বাস রয়েছে এবং সেটি কোথায় অবস্থান করছে যার ফলে শিক্ষার্থীদের মূল্যবান সময় নষ্ট হবে না। মাঝেমধ্যে বাস নির্দিষ্ট সময়ের আগে কিংবা পরে চলে আসত, যার ফলে বাস মিস করে ফেলতাম। এখন বাসে ট্র্যাকিং সিস্টেম চালু করলে এই সমস্যাগুলো দূর হবে। আমি ধন্যবাদ জানাচ্ছি, পাবিপ্রবি প্রশাসনকে শিক্ষার্থীদের কথা চিন্তা করে এত গুরুত্বপূর্ণ একটি সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য।

 

ইসরাত জাহান
শিক্ষার্থী- সম্মান তৃতীয় বর্ষ
অর্থনীতি বিভাগ

পাবিপ্রবির ভালোবাসার বড় একটা অংশ এখানকার সাদা-খয়েরি বাসের সঙ্গে মিশে আছে। অতি সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন পুল বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহনগুলোতে ভেহিকল ট্র্যাকিং সিস্টেম (ভিটিএস) ব্যবহারের ঘোষণা দিয়েছেন। আমার কাছে মনে হয় এটা ভালো একটা উদ্যোগ। এতে করে আমরা অ্যাপের মাধ্যমে বাসের নির্দিষ্ট অবস্থান জানতে পারব। ফলে আমাদের বাস মিস হওয়ার সম্ভাবনা কমবে। শিক্ষার্থী বান্ধব এই উদ্যোগকে স্বাগত জানাই। তবে এর ব্যবহার যাতে সব সময় চলতে থাকে, কয়েকদিন পরে যেন আবার এই সিস্টেম ব্যবহার বন্ধ না হয়ে যায়, সফটওয়্যার জনিত কোনো সমস্যা হলে সেটি সমাধান করতে পরিবহন পুল যেন গাফিলতি না করেন এতটুকুই প্রত্যাশা থাকবে। 


 

অয়ন আলমাস
শিক্ষার্থী- সম্মান দ্বিতীয় বর্ষ
বাংলা বিভাগ 

ভেহিকল ট্র্যাকিং সিস্টেম বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন সেক্টরের জন্য বড় সফলতা। এর ফলে যানবাহনের অবস্থান, কোন কোন স্থানে থেমেছে, যানবাহনের গতির মাত্রা, যানবাহনের ইঞ্জিন চালিয়ে রেখে থেমে আছে কিনা তার সম্পর্কে বিস্তারিত রিপোর্ট পাওয়া যাবে। এতে যেমন গাড়ির মেয়াদ বৃদ্ধি পাবে তেমনি তেল, ব্যাটারি, ইঞ্জিন এমনকি ড্রাইভারের সুষ্ঠু ড্রাইভিং তদারকি করে যাবে। সব মিলিয়ে এটা একটা ভালো উদ্যোগ, আশা করি আমরা সবাই এর উপকার ভোগ করতে পারব।

 

আহসান উল্লাহ আলিফ
শিক্ষার্থী- সম্মান প্রথম বর্ষ 
পরিসংখ্যান বিভাগ

এই ভেহিকল ট্র্যাকিং সিস্টেম চালু নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয় উদ্যোগ। এরই মধ্যে অনেকদিন বাসের সিডিউল বিপর্যয় হতে দেখেছি। তখন নির্দিষ্ট সময়ে ক্লাসে পৌঁছাতে সমস্যা হত, ক্লাসে ঢুকতে দেরি হত। বাসে ট্র্যাকিং সিস্টেম লাগালে সহজেই আমরা বাসের লোকেশন দেখতে পারব, বাসের সিডিউল বিপর্যয় হলে আমরা আগে থেকেই জানতে পারব। বাস কোথায় আছে, কখন আসবে সব আপডেট জানতে পারব। এতে করে আমাদের সময় ও ভোগান্তি কিছু হলেও লাঘব হবে।

 

মাধুরী আক্তার মায়া
শিক্ষার্থী- সম্মান প্রথম বর্ষ 
ইতিহাস ও বাংলাদেশ স্টাডিজ বিভাগ

বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসগুলোতে ভেহিকল ট্র্যাকিং সিস্টেম লাগানো নিঃসন্দেহে একটি ভালো উদ্যোগ। বিগত দিনে যানজট বা অন্যান্য কারণে বাস আসতে দেরি হলে শিক্ষার্থীদের অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য দাঁড়িয়ে থাকত। ট্র্যাকিং সিস্টেম লাগানোর ফলে আমরা খুব সহজেই বাসের অবস্থান জানতে পারব। ফলে আমাদের সময় বাঁচবে এবং ভোগান্তি কমবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ এমন কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়ার জন্য।

ডেইলি বাংলাদেশ/কেবি

English HighlightsREAD MORE »