প্রশ্ন ফাঁস, মাউশির নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল

ঢাকা, রোববার   ০২ অক্টোবর ২০২২,   ১৭ আশ্বিন ১৪২৯,   ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

Beximco LPG Gas

প্রশ্ন ফাঁস, মাউশির নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২৩:০৭ ১৯ মে ২০২২   আপডেট: ২৩:২২ ১৯ মে ২০২২

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) গত ১৩ মে বিকেল ৩টা হতে ৪টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হওয়া অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক পদের লিখিত পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই পদের (এম সি কিউ) পরীক্ষা অনিবার্য কারণে বাতিল করা হয়েছে বলে জানায় মাউশি।

গত শুক্রবার অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক পদের পরীক্ষা ঢাকার ৬১টি কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হয়। এতে ৫১৩টি পদের জন্য পরীক্ষার্থী ছিলেন ১ লাখ ৮৩ হাজার। রাজধানীর ইডেন মহিলা কলেজ কেন্দ্রে পরীক্ষা চলাকালে প্রশ্নপত্র ফাঁস করার অভিযোগে সুমন জোয়ার্দ্দার নামে একজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এই কেন্দ্রের দায়িত্বে ছিলেন মাউশির শিক্ষা কর্মকর্তা চন্দ্র শেখর হালদার এবং তার সঙ্গী ছিলেন মাউশির কর্মচারী বেলাল। তবে নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র কীভাবে ও কখন ফাঁস হয়েছে তা নিয়ে অনেকের মধ্যেই মতভেদ রয়েছে।

দায়িত্বশীল একটি সূত্র জানায়, নিয়ম অনুসারে একটি পরীক্ষাকেন্দ্রের দায়িত্ব একজন নির্বাচনী প্রিজাইডিং কর্মকর্তার মতো হয়ে থাকে। এ ক্ষেত্রে ওএমআর পত্র ঢাকা শিক্ষাবোর্ডে জমা দিতে হয়। এরপর আনুষঙ্গিক যা থাকে তা মূল পরিচালনা কেন্দ্রে জমা দেওয়ার পর সেখান থেকে ঐ কর্মকর্তাকে রিলিজ করা হয়। এর মধ্যে কিছু হলে তার দায়ভার সম্পূর্ণ কর্মকর্তার উপর বর্তায়।

তদন্ত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ঐ শিক্ষা কর্মকর্তার প্রশ্নপত্র নিয়ে রাজধানীর ইডেন মহিলা কলেজ কেন্দ্রে যাওয়ার কথা ছিল। অ্যাম্বুলেন্সে করে তিনি প্রশ্নপত্র নিয়ে যাওয়ার পথে তা ফাঁস করেন। এরপর চক্রের সদস্যরা প্রশ্নপত্র সমাধান করে নির্ধারিত চাকরি প্রার্থীদের মুঠোফোনে পাঠিয়েছিলেন।

অন্য একটি সূত্রে জানা যায়, ওএমআর জমা দেওয়ার জন্য অ্যাম্বুলেন্স ছিল চন্দ্র শেখরের। কিন্তু তিনি ঐ গাড়িতে না গিয়ে একটি রিকশায় সাড়ে ৫টার দিকে ঢাকা শিক্ষাবোর্ডে যান। এর কিছুক্ষণ পর ওএমআর বহনকারী গাড়িটি শিক্ষাবোর্ডে উপস্থিত হয়। সূত্রের দাবি ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের সিসিটিভি ফুটেজ পর্যালোচনা করলে এগুলো জানা যাবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এইচএন

English HighlightsREAD MORE »