যেভাবে গুগলে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হলেন ববির সিফাতুল্লাহ

ঢাকা, শনিবার   ০২ জুলাই ২০২২,   ১৮ আষাঢ় ১৪২৯,   ০২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

Beximco LPG Gas

যেভাবে গুগলে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হলেন ববির সিফাতুল্লাহ

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:০৯ ১৮ এপ্রিল ২০২২  

আবু সায়েম সিফাতুল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। 

আবু সায়েম সিফাতুল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। 

বিশ্বের সর্ববৃহৎ টেক জায়ান্ট গুগলে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে ডাক পেয়েছেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) শিক্ষার্থী আবু সায়েম সিফাতুল্লাহ। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। 

গত নভেম্বর মাসে ইন্টারভিউ শুরু হয় তার। এই চার-পাঁচমাসে অনেকগুলো রাউন্ড, প্রসেস পার করে গত ৯ এপ্রিল জব অফার লেটার হাতে পান সিফাতুল্লাহ। তার স্থায়ী ঠিকানা ঝালকাঠি জেলা নলছিটি উপজেলায়। বাবা ফারুক হোসেন তালুকদার আর্মি রিটায়ার্ড পারসন। মা গৃহিণী।

গুগলার হয়ে ওঠা আবু সায়েম সিফাতুল্লাহর সাক্ষাৎকার নিয়েছেন শফিকুল ইসলাম

আপনার ‘এইম ইন লাইফ’ কি ছিলো? 
-ছোটবেলা থেকে নির্দিষ্ট কিছু ছিলো না। যখন বুঝতে শুরু করি তখন থেকে সফটওয়ার ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ক্যারিয়ার গড়ার ইচ্ছে ছিলো। 

গুগল লোকবল নিয়োগ দেবে, এটা জানলেন কীভাবে?
-গুগল সারাবছর ই হায়ার করে। ওদের ক্যারিয়ার পেজ Goolge Career এ যেয়ে পছন্দমত পজিশনে এপ্লাই করা যায়। এছাড়া লিংকডইনে নিয়মিত জব পোস্টিং হয়।

আপনি কীভাবে প্রস্তুতি নিয়েছিলেন?
-যেহেতু সব টেক কোম্পানিই প্রব্লেম সলভিং স্কিলে জোর দেয় তাই প্রথম থেকেই প্রগ্রামিং কন্টেস্ট করতাম যেনো আলগোরিদম ও ডাটা স্ট্রাকচারের সম্পর্কে ভালো ধারণা পাই।

আপনি গুগলে কতবার আবেদন করে চাকরি পেয়েছেন?
-গুগলে আবেদন করার কোনো লিমিট নাই তাই ৩য় বর্ষ থেকে বিভিন্ন পজিশনে অনলাইনে এপ্লাই করতাম। এবারই ফুল অনসাইট লুপ এর ডাক পাই।

আবেদন কি অনলাইনে করতে হয়? আপনি কীভাবে আবেদন করেছেন?
-হ্যা, Google Career সাইটে গিয়ে আমার ব্যাকগ্রাউন্ড ও এক্সপেরিয়েন্স এর সঙ্গে মিল রেখে তিনটি ভিন্ন লোকেশন আবেদন করি (Google Career সাইট এ প্রতিমাসে ম্যাক্সিমাম তিনটি পজিশনে এপ্লাই করা যায়)। এর মধ্যে পোল্যান্ড থেকে কল আসে।

গুগলে চাকরিতে কয়টি ধাপ আছে?
-কি ধরনের পজিশনে আবেদন করা হয়েছে তার উপর নির্ভর করে। সাধারণত ৫-৮ টার মতো।

গুগলে কয়টা ইন্টারভিউ দিতে হয়েছে? কী প্রক্রিয়ায় দিতে হয়েছে?
-আমাকে প্রাথমিক বাছাই থেকে টিম ম্যাচিং পর্যন্ত মোট ৮টি ধাপ পার করতে হয়েছে। সবগুলো ধাপে গুগল মিট এ ভিডিও ইন্টারভিউ হয়।

সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে কতো সময় লাগতে পারে?
-লোকেশন ও পজিশনের উপর নির্ভর করে। সাধারণত ২-৪ মাস এর মতো সময় লাগে।

গুগলে কোন বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য জব রয়েছে?
-গুগলে অনেক ধরনের পজিশন আছে। নির্দিষ্ট স্কিল থাকলে যে কোনো বিভাগের শিক্ষার্থীরাই আবেদন করতে পারবে।

কীভাবে একজন নতুন গ্র্যাজুয়েট গুগলে চাকরির জন্য আবেদন করবেন?
-পরিচিত কেউ গুগলে থাকলে রেফারেন্স নিয়ে অথবা রেফারেন্স ছাড়া Google Career সাইটে আবেদন করতে হবে। রেফারেন্সের মাধ্যমে এপ্লাই করলে আপনার ইন্টারভিউ কল পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে যদি আপনার সিভি ভালো হয়। 

গুগল বা আইটি ইন্ডাস্ট্রিগুলোতে জব পেতে হলে তরুণ শিক্ষার্থীদের প্রতি আপনার কি পরামর্শ রয়েছে?
-প্রথম থেকেই আলগোরিদম, ডাটা স্ট্রাকচার এবং প্রোব্লেম সলভিং এ বেশি টাইম দিতে হবে এবং স্কিল ডেভেলপমেন্টে ফোকাস করতে হবে।

আপনার গুগলে চাকরি পাওয়ার নেপথ্যে কার অবদান সবচেয়ে বেশি?
-মা-বাবা এবং আমার কাছের মানুষজন যারা ছিলো সবাই অনেক উৎসাহ দিতো। এছাড়া কিছু সিনিয়র ভাই ছিলো যারা বড় টেক কোম্পানিতে জব করতেছে তারা নিয়মিত দিকনির্দেশনা দিতেন কিভাবে প্রিপারেশন নিতে হবে এইসব বিষয়ে। যা অনেক সাহায্য করে।

আন্তর্জাতিক এসব প্রতিষ্ঠানে বাংলাদেশিদের সুযোগ কেমন?
-খুব ভালো সু্যোগ আছে। আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান কখনো দেখবে না আপনি কোন দেশ অথবা কোন প্রতিষ্ঠান থেকে এসেছেন এবং তাদের এপ্লিকেশন প্রসেস ও সবার জন্য সমান। তাই কোম্পানি খুঁজতেছে এমন কোনো বিষয়ে পারদর্শী হলে খুব সহজেই ইন্টারভিউ কল পাওয়া যায়।

আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন, আপনার অনুভূতি কেমন?
-যে কোনো জায়গায় নিজের দেশকে প্রতিনিধিত্ব করার আনন্দ অনেক বেশি। অন্যরকম একটা ভালোলাগা কাজ করে। আশা করবো একই ভাবে দেশের জন্য ও কিছু করতে পারি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম

English HighlightsREAD MORE »