২৬ দিন পর প্রকাশ্যে এলেন শাবিপ্রবি ভিসি 
15-august

ঢাকা, রোববার   ১৪ আগস্ট ২০২২,   ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯,   ১৫ মুহররম ১৪৪৪

Beximco LPG Gas
15-august

২৬ দিন পর প্রকাশ্যে এলেন শাবিপ্রবি ভিসি 

শাবিপ্রবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:৫২ ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১২:২৪ ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২২

ফরিদ উদ্দিন আহমেদ- ফাইল ছবি

ফরিদ উদ্দিন আহমেদ- ফাইল ছবি

২৬ দিন পর কড়া নিরাপত্তায় প্রকাশ্যে এসেছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ।

শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টা ২৫ মিনিটে শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে ভিসির কনফারেন্স রুমে আসেন অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ।

এর আগে, বিকেল ৩টার দিকে শিক্ষামন্ত্রী সিলেট সার্কিট হাউসে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ে চলমান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন। শিক্ষার্থীদের দাবি দাওয়াগুলো প্রশংসা করেন তিনি। পাশাপাশি তাদের যৌক্তিক দাবিগুলো পূরণ করা হবে বলে জানান তিনি।

ভিসি পদত্যাগের বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্যই একজন ভিসি নিয়োগ বা অপসারণ করে থাকেন। তাই আমরা শিক্ষার্থীদের দাবি সম্পর্কে আচার্যকে অবহিত করবো। তিনি এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন।

এদিকে সার্কিট হাউসে প্রেস ব্রিফিং শেষে শিক্ষামন্ত্রী ক্যাম্পাসে আসেন। ক্যাম্পাসে এসে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন কথা বলেন। শিক্ষার্থীদের অহিংস আন্দোলনের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটানোর কথা বলেন তিনি। সবার আন্তরিক প্রচেষ্টায় উদ্ভূত এ পরিস্থিতির সমাধান হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

জানা যায়, ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল ও ড. ইয়াসমিন হকের আশ্বাসে গত ২৬ জানুয়ারি ১৬৩ ঘন্টা অনশনের পর শিক্ষার্থীরা অনশন ভাঙেন। এ সময় শিক্ষার্থীরা ভিসি পদত্যাগ না করা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেয়। এরপর থেকে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসের প্রধান ফটক ও ভিসি বাসভবনের ফটক থেকে অবরোধ তুলে নেন এবং ক্যাম্পাসের সব ভবনের তালা খুলে দেন। পাশাপাশি শিক্ষার্থীরা আলোচনার মাধ্যমে এ সমস্যার সমাধান করতে ক্যাম্পাসে শিক্ষামন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানান। এরই পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে শিক্ষামন্ত্রী শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সরাসরি আলোচনা করার কথা জানান। 

উল্লেখ্য, বেগম সিরাজুন্নেসা হলের অব্যবস্থাপনা ও বিভিন্ন আনুষঙ্গিক সমস্যা নিয়ে হল প্রভোস্টের অসদাচরণের জেরে শিক্ষার্থীরা গত ১৩ জানুয়ারি মধ্যরাতেই আন্দোলন শুরু করে। পরবর্তীতে শিক্ষার্থীদের তিন দফা দাবি না মানায় ১৬ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের আইআইসিটি ভবনে ভিসিকে অবরুদ্ধ করে রাখেন শিক্ষার্থীরা। পরে ক্যাম্পাসে পুলিশ এসে শিক্ষার্থীদের উপর লাঠিচার্জ, টিয়ারশেল ও সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপ করে ভিসিকে মুক্ত করে নিয়ে যায়। এতে প্রায় অর্ধ শতাধিক শিক্ষার্থী আহত হয়। ঐদিন রাতেই বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয় এবং আবাসিক হলগুলো ছেড়ে দেওয়ার জন্য শিক্ষার্থীদের নির্দেশ দেওয়া হয়। এরপর থেকেই শিক্ষার্থীরা ভিসি পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন শুরু করে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএইচ/জেডএম

English HighlightsREAD MORE »