অনশনরত শিক্ষার্থীদের চিকিৎসার খরচ দিলো শাবিপ্রবি

ঢাকা, শুক্রবার   ২০ মে ২০২২,   ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯,   ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩

Beximco LPG Gas

অনশনরত শিক্ষার্থীদের চিকিৎসার খরচ দিলো শাবিপ্রবি

শাবিপ্রবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:৩১ ২৭ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৭:৩৬ ২৭ জানুয়ারি ২০২২

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) শিক্ষার্থীরা যখন অনশনে ছিলেন।

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) শিক্ষার্থীরা যখন অনশনে ছিলেন।

টানা ১৬৩ ঘণ্টা অনশনরত শিক্ষার্থীদের চিকিৎসার যাবতীয় খরচ দিয়েছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বুধবার রাত ১১টার দিকে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পক্ষে রোমিও নিকোলাস রোজারিও ও মোহাইমিনুল বাশার রাজ এ তথ্য জানান।

এসময় তারা বলেন, বুধবার সকালে অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালের অনুরোধে আমরা অনশন ভ্ঙ্গ করেছি। আমাদের এ আশ্বাস দেওয়া হয়েছে যে আমাদের দাবি মেনে নেওয়া হবে। আমাদের অনশনরত শিক্ষার্থীদের চিকিৎসা সংক্রান্ত যাবতীয় ব্যয় নির্বাহ করা হবে। পাশাপাশি ১৬ জানুয়ারি পুলিশের হামলায় আহত শিক্ষার্থীদের চিকিৎসা ব্যয় বহন করা হবে। এরইমধ্যে আমাদের অনশনরত শিক্ষার্থীদের চিকিৎসা ব্যয় মিটিয়ে দেওয়া হয়েছে।

শিক্ষার্থীরা আরো বলেন, আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক ও ভিসি ভবনের সামনের অবরোধ তুলে নিয়েছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনসহ অন্যান্য ভবন গুলোর তালা খুলে দিয়েছি। আমরা ক্যাম্পাসে অহিংস আন্দোলন করে যাবো।

কিভাবে অহিংস আন্দোলন চালিয়ে যাবে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে শিক্ষার্থীরা বলেন, আমরা ক্যাম্পাসে কর্মসূচি পালন করবো, বিক্ষোভ মিছিল করবো এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রতিবাদী গানের মাধ্যমে আন্দোলন চালিয়ে যাবো। অন্য কোনো কর্মসূচি গ্রহণ করলে আমরা পরে জানাবো। এছাড়া অনশনস্থলে রোড পেইন্টিং করবো।

আরো পড়ুন: অনশন ভাঙলেও আন্দোলন চালিয়ে যাবেন শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীরা

শিক্ষার্থীরা আরো বলেন, ড. জাফর ইকবাল স্যারের মাধ্যমে আমরা ভার্চ্যুয়ালি শিক্ষামন্ত্রীর সাথে কথা বলেছি। তিনি আমাদের সাথে সরাসরি দেখা করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। আলোচনার মাধ্যমে আমাদের সমস্যার সমাধান করতে চান। আমাদের দাবিসমূহও আদায় করবেন বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত ১৩ জানুয়ারি হল প্রভোস্টের পদত্যাগের দাবিতে উদ্ভূত আন্দোলনের জেরে পরবর্তীতে ভিসি পদত্যাগের আন্দোলনের ডাক দেয় শিক্ষার্থীরা। ক্যাম্পাসে পুলিশের হামলায় ভিসিকে দায়ী করে শিক্ষার্থীরা এক দফা দাবিতে আন্দোলন শুরু করে। ভিসির মদদ ছাড়া পুলিশ ক্যাম্পাসে ঢুকতে পারে না এ অভিযোগ করেন শিক্ষার্থীরা। যদি ঢুকেও থাকে তাহলে তিনি একজন ব্যর্থ ভিসি। ব্যর্থ ভিসি ক্যাম্পাসে থাকার দরকার নেই এ বলে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। পুলিশের লাঠিচার্জ, টিয়ারশেল ও সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপে প্রায় অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থীরা আহত হয়। 

গত ১৯ জানুয়ারি দুপুর ১২ টা পর্যন্ত ভিসিকে স্বেচ্ছায় পদত্যাগের আল্টিমেটাম দেয়। ঐ সময়ে ভিসি পদত্যাগ না করায় ২৪ শিক্ষার্থী অনশন শুরু করেন। পরে গণঅনশনের অংশ হিসেবে আরো পাঁচজন শিক্ষার্থী অংশগ্রহন করেন। বুধবার (২৬ জানুয়ারি) অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালের অনুরোধে শিক্ষার্থীরা অনশন ভাঙতে সম্মত হন। এসময় শিক্ষার্থীরা অনশন ভাঙলেও তাদের এক দফা দাবি না মানা হলে আন্দোলন চালিয়ে যাবেন বলে জানান।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম

English HighlightsREAD MORE »