গেস্টরুমে ডেকে নির্যাতন, জ্ঞান হারিয়ে হাসপাতালে ঢাবি শিক্ষার্থী

ঢাকা, রোববার   ০৩ জুলাই ২০২২,   ১৯ আষাঢ় ১৪২৯,   ০৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

Beximco LPG Gas

গেস্টরুমে ডেকে নির্যাতন, জ্ঞান হারিয়ে হাসপাতালে ঢাবি শিক্ষার্থী

ঢাবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:২৪ ২৭ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৬:১৯ ২৭ জানুয়ারি ২০২২

নির্যাতনে অভিযুক্ত ৬ শিক্ষার্থী

নির্যাতনে অভিযুক্ত ৬ শিক্ষার্থী

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) বিজয় একাত্তর হলের গেস্টরুমে এক শিক্ষার্থীকে নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। অভিযোগ রয়েছে হলের দ্বিতীয় বর্ষের ৬ শিক্ষার্থী জুনিয়র (প্রথম বর্ষের) এক শিক্ষার্থীকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করে। এতে জ্ঞান হারায় ওই শিক্ষার্থী। 

গতকাল বুধবার (২৬ জানুয়ারি) রাত ১১টার দিকে হলের গেস্টরুমে এই নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। নির্যাতনের শিকার এই শিক্ষার্থীর নাম মো. আকতারুল ইসলাম। তিনি গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। নির্যাতনের কারণে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী জ্ঞান হারালে পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করানো হয়। নির্যাতনের ঘটনায় আজ বৃহস্পতিবার সকালে হল প্রশাসন বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী। 

আরো পড়ুন: চলমান পরীক্ষা সশরীরে নিতে পারবে ঢাবি

নির্যাতনে অভিযুক্তরা হলেন– বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী কামরুজ্জামান রাজু, মনোবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী শুভ, ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থী হৃদয় আহমেদ কাজল, সমাজ কল্যাণ বিভাগের শিক্ষার্থী ইয়ামিন, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী সাইফুল ইসলাম ও লোক প্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী সাইফুল ইসলাম রোহান। অভিযুক্ত সবাই ২০১৯-২০ সেশনের (দ্বিতীয় বর্ষের) শিক্ষার্থী বলে জানা যায়। 

প্রত্যক্ষদর্শী শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী (আখতার) কয়েক দিন থেকে খুব অসুস্থ ছিল। এক সপ্তাহ আগে তার বাবা ব্রেন স্ট্রোক করে হাসপাতালে ভর্তি থাকায় সে মানসিকভাবেও বিপর্যস্ত ছিল। অসুস্থতার মধ্যেও তাকে আজকে রাত দশটার দিকে গেস্টরুমে ডেকে আনে অভিযুক্তরা (রাজু ও কাজল, ইয়ামিম, শুভ, সাইফুল, রোহান)। তখন আখতারকে অভিযুক্তরা জিজ্ঞেস করে যে সে কেন গতকাল গেস্টরুমে ছিলো না। তখন ভুক্তভোগী (আখতার) বলে, আমি খুব অসুস্থ কয়েকদিন থেকে। এছাড়া আমার বাবা স্ট্রোক করে হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

আরো পড়ুন: ঢাবিতে হল ছাড়ছেন শিক্ষার্থীরা

একথা বলার পরেও তাকে অভিযুক্তরা অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে তাকে বলে, বৈদ্যুতিক বাল্বের দিকে ১ ঘণ্টা তাকিয়ে থাকতে বলা হয়। ১০ মিনিট তাকানোর পর তিনি অজ্ঞান হয়ে যান। অজ্ঞান হয়ে পড়লে তারা সহপাঠীরা তাকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে আসে। পরবর্তীতে তার ইসিজি করানো হয়। চিকিৎসা নেয়ার পরে তাকে ভয় দেখিয়ে অভিযুক্তরা বলে, 'এ তোরে যে আমরা হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে নিয়ে আসছিলাম এটা কাউকেই বলবি না।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী বলেন, আমি খুব ভয়ে আছি। এখন যদি আমাকে হল থেকে বের করে দেয়। আমাকে বলতে নিষেধ করেছে তারা (অভিযুক্তরা)। 

আরো পড়ুন: ঢাবির দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের জন্য বৃত্তি চালু

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আবু ইউনুস বলেন, তারা যে গেস্টরুম নিচ্ছে সে বিষয়ে আমরা কিছুই জানি না। হল প্রশাসনের প্রতি উদাত্ত আহ্বান দোষীদের যেনো সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা হয়। 

এ ঘটনায় সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করার কথাও জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন। 

আরো পড়ুন: ঢাবি ছাত্রলীগের হল সম্মেলন ৩০ জানুয়ারি

এ বিষয়ে হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক আবদুল বাছির বলেন, এটা খুবই দুঃখজনক ঘটনা। আমি রাত ৩টার সময় হলে গিয়েছিলাম। ভুক্তভোগীর সঙ্গে কথা বলেছি, সাপোর্ট দিয়েছি। এরইমধ্যে আমরা আবাসিক শিক্ষক জাহিদুল ইসলাম সানার নেতৃত্বে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছি। তারা তিন কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেবে। সেই আলোকে অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি দেওয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম

English HighlightsREAD MORE »