বিজ্ঞাপনে ঢাকা বশেমুরবিপ্রবির একমাত্র ফলক! 

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১৯ মে ২০২২,   ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯,   ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩

Beximco LPG Gas

বিজ্ঞাপনে ঢাকা বশেমুরবিপ্রবির একমাত্র ফলক! 

বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:৫১ ১৬ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৩:০৭ ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২

নানা রকমের বিজ্ঞাপনে ঢেকে আছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) মেইন গেট

নানা রকমের বিজ্ঞাপনে ঢেকে আছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) মেইন গেট

নানা রকম বিজ্ঞাপনে ঢাকা পড়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) প্রধান ফলক। প্রতিদিন এই ফলকের সামনে দাঁড়ালেই মনে পড়বে এটি কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফলক নয়। এটি একটি বিজ্ঞাপনী কোনো প্রতিষ্ঠানের প্রধান ফলক। এ কারণে দীর্ঘদিন ধরে প্রায় ঢাকা পড়ে আছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর নামে গড়ে তোলা এই বিশ্ববিদ্যালয়ের নামাঙ্কন। 

গত বছরের মার্চ মাসে শুরু হওয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের মেইন গেটের কাজ চলমান থাকায়, ক্যাফেটেরিয়া সংলগ্ন গেটটি অস্থায়ী মেইন গেট হিসেবে ব্যাবহৃত হয়ে আসছে। তবে বর্তমানে বিভিন্ন কোচিং, টিউশনি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ভাড়া ও পণ্যের প্রচারণায় গেটটির মূল কাঠামোসহ ঢাকা আছে বিশ্ববিদ্যালয়ের নামাঙ্কনের একমাত্র সাইনবোর্ড। 

এদিকে শুরু হওয়ার  প্রায় এক বছর পরও মেইন গেটের কাজ অসমাপ্ত থাকায় বিভিন্ন ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের পরতে হচ্ছে নানা বিড়ম্বনায়৷ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা গেটের ডিজাইন গত সমস্যা হওয়ায় কাজ বন্ধের বিষয়টি জানান।

প্রতিষ্ঠার  দুই দশক পার হলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম খচিত কোন স্থায়ী ফলক না থাকায় আক্ষেপ প্রকাশ করছেন শিক্ষার্থীরা। অন্যদিকে নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের মেইন ফলক ঢাকা এত বিজ্ঞাপনের ছড়াছড়িতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তার ৷ তাদের দাবি দ্রুত এসব বিজ্ঞাপনের উচ্ছেদ করা হোক। 

পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী তারিকুল ইসলাম রিয়াদ বলেন, একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাহ্যিক সৌন্দর্য পড়াশোনায় ব্যাপক প্রভাব ফেলে। বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান অস্থায়ী মেইন গেট দিয়ে প্রবেশের সময়ে বিচ্ছিন্ন পোস্টার ও ফেস্টুন দেখতে দৃষ্টিকটু লাগে। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের গায়েও বিভিন্ন বিজ্ঞাপন সংক্রান্ত পোস্টার দেখলে খারাপ লাগে।এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দৃঢ় পদক্ষেপ কামনা করি। 

আরেক শিক্ষার্থী সাইম রাইয়ান তার ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, জাতির জনকের নামের এই বিশ্ববিদ্যালয়ে নাই কোন বঙ্গবন্ধু ম্যুরাল কিংবা তার কোনো স্মৃতিস্তম্ভ ৷ চোখে পরার মতো একমাত্র অস্থায়ী গেটের সামনে নামে মাত্র  একটা ফলক আছে৷ যা আমাদের জন্য লজ্জাজনক৷  সেটাও যদি বিজ্ঞাপনের ব্যানারে ঢেকে যায় তা হবে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য দুঃখজনক ব্যাপার৷ তাছাড়া বিষয়টি নতুন বর্ষের শিক্ষার্থীদের সামনে নিজেদের সম্মানহানির কারণ হবে ৷ এছাড়াও এ ব্যাপারে  তিনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের জোড়ালো ভূমিকা কামনা করেন। 

এবিষয়ে জানতে চাইলে রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) মো. মোরাদ হোসেন জানান, বিষয়টি জানতে পেরেছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক সংলগ্ন এত বিজ্ঞাপন আসলেই বিশ্ববিদ্যালয়ের সৌন্দর্য নষ্ট করে। বিষয়টি আসলেই আপত্তিকর। আমরা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে দ্রুত ব্যাবস্থা গ্রহণ করবো।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম

English HighlightsREAD MORE »