বাস্তুহারা শিশুরা শীতবস্ত্রের সঙ্গে উপহারও পেল

ঢাকা, শনিবার   ২৫ জুন ২০২২,   ১১ আষাঢ় ১৪২৯,   ২৫ জ্বিলকদ ১৪৪৩

Beximco LPG Gas

বাস্তুহারা শিশুরা শীতবস্ত্রের সঙ্গে উপহারও পেল

জবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:৪৪ ১৩ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১২:৪৫ ১৩ জানুয়ারি ২০২২

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

কেরানীগঞ্জের বাস্তুহারায় এক জীর্ণ ঘরে বাবা-মা আর ফুটফুটে ছোট বোনকে নিয়ে আসিফের সংসার। পাশের প্রাইমারি স্কুলে ভর্তি হতে না পারলেও সেই স্কুলের মাঠেই কাটে তার দিনের অধিকাংশ সময়। কিছুক্ষণ আগে সেখান থেকে সরে সে এসেছে পাশের ডকইয়ার্ডের দিকে। হঠাৎই মাঠে স্মাইল শাটেলের সদস্যদের হাতে শীতবস্ত্র দেখে উৎসুক আরও অনেকের মতো সেও আবার ছুটে এসেছে মাঠে। গতবারের দুই পরিচিত ভাইয়ের সঙ্গে এবার এসেছে আরও ১০জন ভাইয়া-আপু। সবার হাতেই রঙিন কম্বল। কাছে গিয়ে জানতে পারে এবার ভাইয়া আপুরা শুধু কম্বলই আনেনি; এনেছে সবার জন্য উপহার।

মূলত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু শিক্ষার্থীর একটি দল এসেছে তাদের জন্য শীতবস্ত্র (কম্বল) নিয়ে। পুরান ঢাকা ও কেরানীগঞ্জের স্বল্প সংখ্যক অসহায় মানুষদের শীত নিবারণের জন্য টানা দ্বিতীয়বারের মতো এই ছোট্ট প্র‍য়াস সংগঠণটির সদস্যদের। এই উদ্যোগ সমাজসেবা মূলক সংগঠন স্মাইল শাটেল ফাউন্ডেশনের।

বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া এক ঝাঁক তরুণ তরুণীর নিরলস পরিশ্রমের ফলে গড়ে ওঠা এই স্মাইল শাটেল সংগঠনটি এরই মধ্যে সফলতার সঙ্গে সম্পন্ন করেছে ৭টি প্রজেক্ট। পথ শিশু থেকে শুরু করে সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের পাশে থেকে তাদের মুখে হাসি ফোটানোর চেষ্টা করে যাচ্ছে সংগঠনটি। তাদের সঙ্গে আছে কানাডাধীন এলডিএফ ফাউন্ডেশনও, বিভিন্ন সময় আর্থিক অনুদান ও পরামর্শ দিয়ে স্মাইল শাটেলের সাথে কাজ করে যাচ্ছে ভিনদেশী সংগঠনটি।

এবার শীত বস্ত্র বিতরণ কর্মসূচি পালনের লক্ষ্যে ১২ জানুয়ারি  সংগঠনটি সকাল ও সন্ধ্যায় দুইভাগে নিজেদের কাজ ভাগ করে নেয়। সকালে পুরান ঢাকার জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা ও কেরানীগঞ্জের বাস্তুহারায় শীতার্ত মানুষের মাঝে শীত বস্ত্র বিতরণ করে সংগঠনটি। বাস্তুহারার শিশুদের সঙ্গে কুশল বিনিময় শেষে তাদের ছোট উপহারও দেয় তারা।

পরবর্তীতে সন্ধ্যায় সদরঘাট ও পার্শ্ববর্তী এলাকার বিভিন্ন শ্রেণি পেশার অসহায় মানুষদের মাঝে শীত বস্ত্র বিতরণ করে স্মাইল শাটেল ফাউন্ডেশন। করোনা পরবর্তী সময়ে এই প্রজেক্টেই সর্বোচ্চ সংখ্যক সেচ্ছাসেবি অংশ নিয়েছে সংগঠনটির, বর্তমানে এর সদস্য সংখ্যা ৩৫ জন। কেবল শীতবস্ত্র বিতরণ ই নয়, পাশাপাশি খাদ্য সামগ্রী বিতরণ, পথশিশুদের শিক্ষা কার্যক্রম ও স্বাস্থ্য সচেতনতা নিয়েও কাজও করছে স্মাইল শাটেল।

উল্লেখ্য, করোনাকালীন সময়ে গোটা বিশ্ব স্থবির হয়ে পড়লেও ‘স্মাইল শাটেল ও এলডিএফের’ কার্যক্রম থেমে থাকেনি। বিভিন্ন সময়ে নানা ধরনের ভার্চুয়াল অনুষ্ঠান আয়োজনের মধ্য দিয়ে মহামারি সম্পর্কে জনগণকে সচেতন করেছে সংগঠনটি। উদ্বুদ্ধ করেছে স্বাস্থ্যবিধি মানতে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে

English HighlightsREAD MORE »