খুলে দেয়া হয়েছে হল, উচ্ছ্বসিত শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীরা

ঢাকা, রোববার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২১,   অগ্রহায়ণ ২২ ১৪২৮,   ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

খুলে দেয়া হয়েছে হল, উচ্ছ্বসিত শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীরা

নাঈম আহমদ শুভ, শাবিপ্রবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:৩৪ ২৫ অক্টোবর ২০২১  

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) চেতন্য ৭১ ভাস্কর্য।

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) চেতন্য ৭১ ভাস্কর্য।

উনিশ মাস পর শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল খুলে দেয়া হয়েছে। হলে উঠতে পেরে উচ্ছ্বসিত শিক্ষার্থীরা। 

‘শিক্ষার্থীদের পেয়ে হলগুলো আবার প্রাণ ফিরে পেয়েছে। শিক্ষার্থীদের সার্বিক দিক বিবেচনা করে আমরা নতুন করে হলে সংস্কার করেছি। যাতে তারা একটা সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন পরিবেশ পায়। সৌন্দর্য বর্ধনে হলের বিভিন্ন জায়গায় ফলজ গাছ লাগানো হয়েছে। এছাড়া শিক্ষার্থীদের সকল ধরনের সমস্যা সমাধানে আমরা সর্বদা সচেষ্ট আছি’ বলে মন্তব্য প্রকাশ করেন প্রথম ছাত্রী হলের প্রাধ্যক্ষ ড. জায়েদা শারমিন।

এদিকে সোমবার (২৫ অক্টোবর) সকাল ১০টা থেকে হলে উঠা শুরু করেছে শিক্ষার্থীরা। বৈধ শিক্ষার্থী ব্যতীত অন্য কাউকে হলে উঠতে দেয়া হচ্ছে না। যারা অন্তত এক ডোজ টিকা নিয়েছে তাদেরকে হলে উঠতে দেয়ার অনুমতি দেয়া হচ্ছে। 

সকাল থেকে শিক্ষার্থীদের হলে উঠাতে প্রস্তুত হল কর্তৃপক্ষ। শিক্ষার্থীদের ফুল, কলম ও মাস্ক দিয়ে সাদরে বরণ করে নেয়া হয়েছে। অনেক দিন পর শিক্ষার্থীদের কাছে পেয়ে উৎফুল্ল প্রকাশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। 

শাহপরান হলের সামনে শিক্ষার্থীদের বরণ করে নেওয়া হয়েছে

এদিকে দীর্ঘ সময় বাড়িতে কাটিয়ে একটি বিরক্তিকর মনমানসিকতা তৈরি হয়ে গিয়েছিল এবং অনেক দিন পর ক্যাম্পাসে ফিরে আসতে পেরে খুবই উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন বঙ্গবন্ধু হলের শিক্ষার্থী মো. সাইফুল ইসলাম। 

জানা গেছে, সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী ১২ সেপ্টেম্বর থেকে দেশের প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুলগুলো খুলে দেয়া হয়েছে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের হল খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার আদেশ দেয়া হয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে। 

গত ৫ অক্টোবর শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৬৭তম একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় ২৫ অক্টোবর থেকে আবাসিক হল খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। প্রথমদিন ২৫ অক্টোবর মাস্টার্সের আবাসিক শিক্ষার্থীরা হলে উঠতে পারবেন। পরের দিন ২৬ অক্টোবর স্নাতক ৪র্থ বর্ষ, ২৭ অক্টোবর স্নাতক ৩য় বর্ষ ও ২৮ অক্টোবর স্নাতক ২য় বর্ষের বৈধ শিক্ষার্থীরা হলে উঠতে পারবেন।

শাহপরান হলের প্রাধ্যক্ষ ড. মিজানুর রহমান খান বলেন, হল খোলা নিয়ে আমাদের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন। আজ থেকে আবাসিক শিক্ষার্থীরা হলে উঠতে পারবে। তাদের জন্য সকল সুযোগ সুবিধার ব্যবস্থা করা হয়েছে। হলের ডাইনিং রুম, ক্যান্টিনে স্বাস্থ্যসম্মত খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। বাথরুমে টাইলস লাগিয়ে নতুনভাবে সংস্কার করা হয়েছে। 

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রাধ্যক্ষ সামিউল ইসলাম বলেন, অনেকদিন পর শিক্ষার্থীদের পেয়ে আমরা আনন্দিত। আমরা শিক্ষার্থীদের জন্য যথাযথ নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছি। হলের সবকিছু পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করেছি। শিক্ষার্থীরা একটি সুন্দর পরিবেশে আবার নতুন করে তাদের পড়ালেখা চালিয়ে যেতে পারবে।

প্রথম ছাত্রী হলের শিক্ষার্থী নাবিলা মাঈশা বলেন, মা বাবার শাসনের বাইরে এসে আবার নতুন পথচলা শুরু করেছি। হলের বন্ধুদের পেয়ে বাড়ি ছাড়ার কষ্টটা অনেক হালকা হয়ে গেছে। তাছাড়া হলের নতুন পরিবেশ আমাদের মুগ্ধ করেছে। 

শাবিপ্রবির প্রথম ছাত্রী হলের সামনে সেলফিতে বন্ধি করে নিচ্ছেন ছাত্রীরা

প্রথম ছাত্রী হলের আরেক শিক্ষার্থী সানজিদা নওরিন বলেন, দীর্ঘ সময় ছুটি কাটিয়ে নতুন করে আবার হলে উঠেছি এবং বন্ধুবান্ধবদের সাথে অনেকদিন পর দেখা করতে পারছি। এটা সত্যিই ভালোলাগার বিষয়। আগামী মাস থেকে ক্লাস শুরু হবে। আমরা নতুন করে আবার নিজেদেরকে মানিয়ে নেবো আশাকরি।

হল খোলা নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, আজ থেকে আমরা হলগুলো খুলে দিচ্ছি। শুধু বৈধ শিক্ষার্থীরাই হলে উঠতে পারবেন। এক্ষেত্রে তাদের অন্তত এক ডোজ টিকা নিতে হবে। শতভাগ টিকা নিশ্চিত করার জন্য যারা টিকা এখনো দিতে পারে নাই তাদের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে হলে উঠতে হবে।

টিকা দেওয়া প্রসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল প্রশাসক অধ্যাপক ড. কবির হোসেন বলেন, আগামী ২৭ অক্টোবরের মধ্যে সবাইকে টিকা দিতে হবে। এর পরে টিকা কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। হলে উঠার আগে অন্তত শিক্ষার্থীদের এক ডোজ টিকা নিশ্চিত করতে হবে। এজন্য যাদের এনআইডি কার্ড নেই তাদের জন্মনিবন্ধন কার্ড দিয়ে টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম