কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে কোন বিষয় পড়বেন

ঢাকা, মঙ্গলবার   ৩০ নভেম্বর ২০২১,   অগ্রহায়ণ ১৬ ১৪২৮,   ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে কোন বিষয় পড়বেন

শিক্ষাঙ্গন প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:০২ ১৯ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ২০:০২ ১৯ অক্টোবর ২০২১

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

চাকরির বাজারের সঙ্গে মিল রেখে কোন কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে কি কি বিষয় পড়ানো হয়। অথবা মাধ্যমিক আর উচ্চমাধ্যমিকের পাঠ চুকিয়ে একজন শিক্ষার্থী যখন উচ্চশিক্ষার স্বপ্ন নিয়ে ভর্তিযুদ্ধে লড়াইয়ের পর ভর্তি হয় তখনই তাকে ভেবেচিন্তে বিষয় নির্বাচন করতে হয়। তবুও বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স-মাস্টার্স শেষে আক্ষেপ থেকে থেকে যায় ক্যারিয়ার নিয়ে। তাই পড়াশোনা শুরুর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আগেই জেনে নেয়া যাক দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ে কোন কোন বিষয় পড়ানো হয়।    

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে ব্যবসায় শিক্ষা শাখা ও প্রকৌশল শাখা কমবেশি সব বিশ্ববিদ্যালয়েই দেখা যায়। এর মধ্যে কিছু বিষয় কমন, যেমন—বিবিএ ও ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ারিং। 

এরমধ্যে কিছু বিশ্ববিদ্যালয় শুধু প্রকৌশল বিষয়নির্ভর। যেমন—আহছানউল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। এ বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যাচেলর ইন আর্কিটেকচার, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ারিং, টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং, ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং, মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক ডিগ্রি দেয়া হয়ে থাকে।
ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে স্কুল অব সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, কম্পিউটার অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশনস ইঞ্জিনিয়ারিং, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ারিং, ইলেকট্রনিকস অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশনস ইঞ্জিনিয়ারিং।

সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয় সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং, মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ারিং, নেভাল আর্কিটেকচার অ্যান্ড মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং, টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং, অ্যাপারেল ম্যানুফ্যাকচার অ্যান্ড টেকনোলজি, আর্কিটেকচার বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রি দিচ্ছে।

এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ফার্মাসি, আর্কিটেকচার, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক ডিগ্রি অফার করা হয়।

ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রকৌশল বিভাগের আন্তর্জাতিক নানা স্বীকৃতি রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়টিতে বিজ্ঞান ও প্রকৌশলের যে বিষয়গুলোতে স্নাতক পড়ার সুযোগ আছে তা হলো অ্যাপ্লাইড ফিজিকস ও ইলেকট্রনিকস, আর্কিটেকচার, বায়োটেকনোলজি, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, কম্পিউটার সায়েন্স, ইলেকট্রনিকস অ্যান্ড কমিউনিকেশনস ইঞ্জিনিয়ারিং, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ারিং, গণিত, পদার্থবিজ্ঞান ও মাইক্রোবায়োলজি।

চাকরির বাজার

স্থাপত্য: বাংলাদেশে চলমান উন্নয়ন ও নগরায়ণের কারণে স্থাপত্য ক্ষেত্রে বড় জনবলের চাহিদা তৈরি হয়েছে। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে আর্কিটেকচারের বিষয়ে কথা বলতে হলে আহছানউল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম আলাদা করে বলতেই হবে। এ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পর থেকে প্রকৌশলের ছাত্রদের অন্যতম পছন্দ হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেছে। ব্র্যাক, এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয়েও আর্কিটেকচার পড়ানো হয়। বিষয়টিতে পড়ার সুযোগ আছে সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয়েও।

বিষয়টিতে লেখাপড়ার পদ্ধতি ও ভবিষ্যৎ নিয়ে কথা হয়েছে আহছানউল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্কিটেকচার বিভাগের প্রভাষক জায়েদী আমানের সঙ্গে। 

তিনি বলেন, আর্কিটেকচার হচ্ছে অনেকটা স্টুডিওবেজড। এখানে আমরা যা কিছু শেখাই তার অনেকটাই স্টুডিওনির্ভর। অন্য কথায় বলতে গেলে একেবারে হাতে-কলমে শিক্ষা। ধরুন, আমি একজন ছাত্রকে একটা দালানের নকশা তৈরি করতে দিলাম। তখন ছাত্ররা ওই দালানটি কেমন হবে তা নিয়ে গবেষণা করে। যেমন—ঢাকার জন্য একরকম, খুলনার জন্য আরেক রকম, আর্থিক অবস্থার ওপর নির্ভর করেও আবার নকশায় পরিবর্তন আসে। এটা বের করার পর তারা সিদ্ধান্ত নেয় যে আসলে এই কনটেক্সটে দালান হওয়া উচিত। এরপর তারা পরিকল্পনা আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের জুরি বোর্ডের সামনে উপস্থাপন করে। গতানুগতিক থিওরি থেকে আমরা ডিজাইনের ওপরই বেশি ফোকাস করি। পাশাপাশি আমরা ফটোগ্রাফি, গ্রাফিকস আর্ট, পেইন্টিং, ইন্টেরিয়র।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম