এমএসসিএফপিতে নির্বাচিত প্রথম বাংলাদেশি মেয়ে

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২১,   অগ্রহায়ণ ১৮ ১৪২৮,   ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

এমএসসিএফপিতে নির্বাচিত প্রথম বাংলাদেশি মেয়ে

শিক্ষাঙ্গন প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:১০ ১৯ অক্টোবর ২০২১  

নুজহাত জাহিন, স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থী (অনকোলজি), মেডিসিন অনুষদ, টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি অব মিউনিখ, জার্মানি।

নুজহাত জাহিন, স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থী (অনকোলজি), মেডিসিন অনুষদ, টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি অব মিউনিখ, জার্মানি।

টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি অব মিউনিখ বিশ্বের অন্যতম সেরা বিশ্ববিদ্যালয় এবং বর্তমানে ইউরোপে তৃতীয় স্থানে রয়েছে। আমি ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগ থেকে স্নাতক সম্পন্ন করার পর ২০২০ সালে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস্টার্সে আবেদন করি। বিশ্ববিদ্যালয়টিতে মাস্টার্স প্রোগ্রামে ভর্তির সুযোগের পাশাপাশি প্রথম বাংলাদেশি মেয়ে হিসেবে মেরি স্কোডোভস্কা-কুরি ফেলোশিপ প্রোগ্রামের (এমএসসিএফপি) জন্য নির্বাচিত হই। 

বৃত্তির পরিচিতি

মেরি স্কোডোভস্কা-কুরি ফেলোশিপ প্রোগ্রামের (এমএসসিএফপি) লক্ষ্য হচ্ছে, নিউক্লিয়ার সেক্টরে নারীদের সংখ্যা বৃদ্ধির পাশাপাশি প্রযুক্তিগত ও বৈজ্ঞানিক উদ্ভাবনে তাঁদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা। পাশাপাশি নারী ও পুরুষের কর্মশক্তির উন্নয়ন সাধন করা। এই বৃত্তি বা ফেলোশিপের নামকরণ করা হয়েছে বিখ্যাত পদার্থবিজ্ঞানী ও দুবার নোবেল বিজয়ী মেরি স্কোডোভস্কা-কুরির নামানুসারে। এই ফেলোশিপ প্রোগ্রামটি নারীদের পারমাণবিক বা নিউক্লিয়ার সেক্টরে ক্যারিয়ার গড়তে অনুপ্রাণিত করে। এই ফেলোশিপের অধীনে মাস্টার্স প্রোগ্রামের জন্য বৃত্তি এবং আইএইএর মাধ্যমে ইন্টার্নশিপ করার সুযোগ দেওয়া হয়।
 
আবেদনের তথ্য ও যোগ্যতা
এ ফেলোশিপ প্রোগ্রামটি আইএইএ সদস্যভুক্ত রাষ্ট্রের শিক্ষার্থীদের জন্য প্রযোজ্য। নারী শিক্ষার্থীরা যেকোনো স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস্টার্স প্রোগ্রামে ভর্তি হলে বা ভর্তির জন্য নির্বাচিত হলে এই ফেলোশিপে আবেদন করতে পারবেন। তবে যাঁদের একাডেমিক নম্বর ৭৫ শতাংশের ওপরে বা সিজিপিএ ৪ স্কেলে ৩ আছে, তাঁদের অগ্রাধিকার দেওয়া হয়। 

কীভাবে আবেদন করবেন?
যাঁরা আবেদনের যোগ্যতার শর্তাবলি পূরণ করতে পারবেন, তাঁরা মেরি স্কোডোভস্কা-কুরি ফেলোশিপ প্রোগ্রামে (এমএসসিএফপি) অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। অনলাইনে আবেদন ফরম পূরণের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র–

জাতীয় পরিচয়পত্র/পাসপোর্ট
মাস্টার্স প্রোগ্রামে ভর্তিকৃত  বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অফিশিয়াল ভর্তির চিঠি যেখানে পারমাণবিক-সম্পর্কিত বিষয়ে পড়ার তথ্য থাকবে এবং প্রোগ্রামটির সময়কাল ও টিউশন ফির মোট খরচ উল্লেখ থাকবে।  
ছবি
দুটি রেফারেন্স  
এই সবকিছু [email protected]তে পাঠাতে হবে। 


যেসব বিষয়ে পড়তে পারবেন
এই ফেলোশিপের আওতায় নিউক্লিয়ার-সম্পর্কিত বিষয়ে পড়তে পারবেন, যেমন পারমাণবিক প্রকৌশল, পারমাণবিক পদার্থবিজ্ঞান ও রসায়ন, পারমাণবিক ওষুধ, আইসোটোপিক কৌশল, বিকিরণ জীববিজ্ঞান, পারমাণবিক নিরাপত্তা ইত্যাদি। 

সুযোগ-সুবিধা

এই ফেলোশিপে নির্বাচিত শিক্ষার্থীরা স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় পারমাণবিক-সম্পর্কিত গবেষণায় মাস্টার্স প্রোগ্রামের জন্য বৃত্তি পেয়ে থাকেন। নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের টিউশন খরচের জন্য ২০ হাজার ইউরো এবং তাঁদের মাস্টার্স প্রোগ্রামের সময়কালের জন্য ২০ হাজার ইউরো পর্যন্ত জীবনযাত্রার খরচ দেওয়া হয়। শিক্ষার্থীদের আইএইএ দ্বারা ১২ মাস পর্যন্ত একটি ইন্টার্নশিপ করার সুযোগ দেওয়া হয়।

আরও বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন-https://www.iaea.org/about/overview/gender-at-the-iaea/iaea-marie-sklodowska-curie-fellowship-programme।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম