কুবিতে ব্যায়ামাগার উদ্বোধনের দুই বছর পরও নিয়োগ হয়নি প্রশিক্ষক

ঢাকা, রোববার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২১,   অগ্রহায়ণ ২১ ১৪২৮,   ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

কুবিতে ব্যায়ামাগার উদ্বোধনের দুই বছর পরও নিয়োগ হয়নি প্রশিক্ষক

কুমিল্লা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:৫১ ১৬ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ১৮:৫১ ১৬ অক্টোবর ২০২১

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়: ফাইল ফটো

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়: ফাইল ফটো

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে উদ্বোধনের দুই বছর পরেও প্রশিক্ষক নিয়োগ না হওয়ায় নষ্ট হতে চলেছে ৫ লাখ টাকার মূল্যের যন্ত্রপাতি। এ নিয়ে ক্ষোভের অন্ত নেই শিক্ষার্থীদের।

কুবি সূত্র জানায়, কুবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী ২০১৯ সালের ২৮ অক্টোবর শিক্ষার্থীদের জন্য ব্যায়ামাগার উদ্বোধন করেন। ব্যায়ামাগারের জন্য চার লাখ ৭০ হাজার ৬৭৪ টাকা ব্যয়ে ১৮ ধরনের ২৮টি যন্ত্র কেনা হয়। কিন্ত এখনো কোনো প্রশিক্ষক না থাকায় এর সুফল পাচ্ছে না শিক্ষার্থীরা। দীর্ঘদিন ব্যবহার না হওয়ায় অকেজো হয়ে পড়েছে বিভিন্ন যন্ত্র। এরই মধ্যে ব্যায়ামাগারের ৭০ হাজার টাকা ব্যয়ের তিনটি যন্ত্র একেবারে অকেজো হয়ে গেছে।

হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী শিহাব উদ্দিন বলেন, প্রায় সকাল বেলায় ব্যায়ামাগার বন্ধ থাকে। কার হাতে চাবি থাকে সেটা জানি না। কোনো প্রশিক্ষক বা লোক না থাকায় এর সঠিক নিয়মকানুনও জানি না আমরা। নিয়ম না জেনে শারীরিক অনুশীলন করলে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

শারীরিক শিক্ষা বিভাগের সহকারী পরিচালক মনিরুল আলম বলেন, আমার কাছে ব্যায়ামাগারের একটি চাবি আছে। শিক্ষার্থীরা প্রয়োজন অনুযায়ী নিয়ে যায় এবং পরে জমা দেয়। যন্ত্রাংশের সঠিক ব্যবহার না হওয়ায় তা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

কুবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী বলেন, ব্যায়ামাগারে প্রশিক্ষক নিয়োগ দেওয়ার ক্ষেত্রে আমাদের কিছু সীমাবদ্ধতা আছে। ব্যায়ামাগার প্রশিক্ষক পদের জন্য শিগগিরই আমরা ইউজিসি বরাবর আবেদন করব।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ