জাবির হল খুলছে ১১ অক্টোবর, যারা উঠতে পারবেন

ঢাকা, বুধবার   ০৮ ডিসেম্বর ২০২১,   অগ্রহায়ণ ২৫ ১৪২৮,   ০২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাবির হল খুলছে ১১ অক্টোবর, যারা উঠতে পারবেন

জাবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:৪২ ৪ অক্টোবর ২০২১  

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রীতিলতা হল।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রীতিলতা হল।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল আগামী ১১ অক্টোবর খুলে দেয়া হবে। এছাড়া ২১ অক্টোবর থেকে অনলাইন ক্লাসের পাশাপাশি শিক্ষার্থীরা নিজেদের সুবিধামতো সশরীরে ক্লাস-পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবেন।

সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আ স ম ফিরোজ উল হাসান এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

গত শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সভা শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ জানান, ১১ অক্টোবর হলের পাশাপাশি লাইব্রেরিও খুলে দেয়া হবে। বর্তমানে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা হলে উঠতে পারবেন এবং লাইব্রেরিতে যেতে পারবেন। হলে উঠার আগে করোনার এক ডোজ টিকা নিতে হবে শিক্ষার্থীদের। তবে ৪৯তম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের হলে উঠার আগে অনলাইনে প্রথম বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষা সম্পন্ন করতে হবে। প্রথম বর্ষের পরীক্ষা শেষে তারা স্ব স্ব হলের প্রাধ্যক্ষের সঙ্গে কথা বলে হলে উঠবে।

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন হলে আর গণরুম রাখা হবে না। শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিতে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে যেসব শিক্ষার্থীর স্নাতকোত্তর শেষ হয়েছে তাদের হল ছাড়তে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এভাবে হলে সিট খালি হওয়া সাপেক্ষে নতুন ছাত্র তোলা হবে।

এর আগে গত ২৯ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিল থেকে আবাসিক হলসমূহ আগামী ২১ অক্টোবর থেকে খুলে দেয়ার সুপারিশ করা হয়।

এই সুপারিশ প্রত্যাখান করে ছাত্র সংগঠনগুলো বিবৃতি দেয়। এছাড়া শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট হলে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় সাংবাদিক ও ছাত্র নেতারা হল খোলার তারিখ ৫ অক্টোবরের মধ্যে নিয়ে আসার দাবি জানান।

এই সভায় উপস্থিত শিক্ষকরা ছাত্র নেতাদের দাবিগুলো বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের নিকট তুলে ধরবেন বলে আস্বস্ত করেন। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট হল খোলার এ তারিখ ঘোষণা করে।

এদিকে হল খুললেও শিক্ষার্থীদের মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধি। এ সময় শিক্ষার্থীরা হলে থেকেই অনলাইনে ক্লাস-পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবেন। শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় হলে প্রবেশের ক্ষেত্রে তাপমাত্রা পরিমাপের জন্য থাকবে থার্মাল স্কেনার, দেয়া হবে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাস্ক। হলে স্থাপন করা হয়েছে বেসিন ও বিশুদ্ধ পানির ফিল্টার। আবাসিক শিক্ষকদের দ্বারা গঠিত কমিটি শিক্ষার্থীদের সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণ করবেন।

হল খোলার পরও বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীন দোকানপাট বন্ধ থাকবে। তবে হলের ডাইনিং ও ক্যান্টিনের পাশাপাশি ক্যাফেটেরিয়ায় খাবার সরবরাহ করা হবে। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আ স ম ফিরোজ উল হাসান বলেন, হল খোলার পর স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে বহিরাগতদের প্রবেশ নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। এক্ষেত্রে শিক্ষার্থী ও সংশ্লিষ্টদের দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখতে হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম

English HighlightsREAD MORE »