ইউজিসির শর্ত উপেক্ষা করে জাবিতে ফের অনলাইনে নিয়োগ বোর্ড

ঢাকা, শনিবার   ৩১ জুলাই ২০২১,   শ্রাবণ ১৬ ১৪২৮,   ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

ইউজিসির শর্ত উপেক্ষা করে জাবিতে ফের অনলাইনে নিয়োগ বোর্ড

জাবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৩৫ ১৮ জুন ২০২১  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) দর্শন বিভাগের পর এবার মাইক্রোবায়োলজি বিভাগে পাঁচ শিক্ষক নিয়োগের সাক্ষাৎকার অনলাইনে নেয়া হবে।

আগামীকাল শনিবার নিয়োগের সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠিত হবে বলে নিশ্চিত করেছেন মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক শুভ্র কান্তি দে।

তিনি বলেন, ‘আমাদের বিভাগের শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তিটি দেড় বছর আগের। প্রায় সাত বছর বিভাগে নতুন কোন শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হয়নি। এদিকে বিভাগের কয়েকজন শিক্ষক উচ্চ শিক্ষার জন্য ছুটিতে যাচ্ছেন। ফলে বিভাগে শিক্ষকের সংকট দেখা দিয়েছে। এখন আমরা অনলাইনে ক্লাস ও পরীক্ষা নিতে হিমশিম খাচ্ছি। তাই জরুরি প্রয়োজনে নতুন শিক্ষক নিয়োগ দিতে হচ্ছে।’

তবে অনলাইনে শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) আরোপিত শর্ত জাহাঙ্গীরনগরে মানা হচ্ছে না। শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখার স্বার্থে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীরে উপস্থিতির পাশাপাশি অনলাইনেও শর্ত সাপেক্ষে নিয়োগ পরীক্ষা ও সাক্ষাৎকার গ্রহণের অনুমতি দিয়েছে ইউজিসি।

গত শনিবার ইউজিসির জরুরি সভায় পাঁচটি শর্ত মেনে বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে শিক্ষক নিয়োগ দেয়া যাবে বলে সিদ্ধান্ত হয়।

এই শর্তের একটিতে (তৃতীয়) বলা হয়, ‘অনলাইনে নিয়োগ পরীক্ষা ও সাক্ষাৎকার গ্রহণের ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাপর্ষদের সুপারিশ অনুযায়ী সিন্ডিকেট অনুমোদিত একটি নীতিমালা থাকতে হবে।’

ইউজিসির সচিব (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ড. ফেরদৌস জামানের স্বাক্ষরিত এ-সংক্রান্ত একটি চিঠি গত রোববার পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও রেজিস্ট্রারদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

কিন্তু খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অনলাইনে নিয়োগ পরীক্ষার জন্য ইউজিসির তৃতীয় শর্ত অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষাপর্ষদের কোনও সভা অনুষ্ঠিত হয়নি।

এ বিষয়ে ইউজিসির সদস্য অধ্যাপক মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, ‘আমরা আমাদের নির্দেশনা জানিয়েছি। নির্দেশনা অনুসরণ করে স্বচ্ছতার মাধ্যমে অনলাইনে শিক্ষক নিয়োগ হবে বলে আশা করি।’

এর আগে অনলাইনে দর্শন বিভাগে শিক্ষক নিয়োগের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে গত ১০ জুন একই বিভাগের চার শিক্ষক হাইকোর্টে রিট করেন। ১৫ জুন রিটের প্রাথমিক শুনানি হয়। শুনানিতে ২০ জুন পর্যন্ত নিয়োগ কার্যক্রম স্থগিত রাখতে নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট।

তবে এরই মাঝে মাইক্রোবায়োলজি বিভাগে নিয়োগের বিষয়ে আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করা আইনজীবী সৈয়দা নাসরিন বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগে অনলাইনে সাক্ষাৎকার নেয়া হবে কিনা- এই পুরো বিষয়টিই আদালতে আলোচনায় এসেছে। আমরা অনলাইন পদ্ধতিটিকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছি। আর ওইসময় শুধু দর্শন বিভাগের শিক্ষক নিয়োগের বিষয়টিই সামনে ছিল। আদালত যেহেতু অনলাইন প্রক্রিয়াটির জন্যই স্থগিতাদেশ দিয়েছে তাই সেই প্রক্রিয়া অনুসরণ করে এর মাঝেই আবারও শিক্ষক নিয়োগ ঠিক নয়।

এসব বিষয়ে জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) রহিমা কানিজকে একাধিকবার মুঠোফোনে কল দেয়া হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম