জেনে নিন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে কোন বিভাগে কত আসন

ঢাকা, শুক্রবার   ১৮ জুন ২০২১,   আষাঢ় ৬ ১৪২৮,   ০৬ জ্বিলকদ ১৪৪২

জেনে নিন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে কোন বিভাগে কত আসন

চবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৪১ ৯ মে ২০২১   আপডেট: ১৫:০২ ৯ মে ২০২১

এবারো তার ব্যতিক্রম হয় নি। ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে ভর্তির জন্য আবেদন করেছেন ১ লাখ ৯৫ হাজার ৭৯২ ভর্তিচ্ছু

এবারো তার ব্যতিক্রম হয় নি। ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে ভর্তির জন্য আবেদন করেছেন ১ লাখ ৯৫ হাজার ৭৯২ ভর্তিচ্ছু

বরাবরের মতো ভর্তিচ্ছুদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়। এবারো ব্যতিক্রম হয়নি। পাহাড়ের বাঁকে হাজারো স্বপ্নের ঠিকানা চট্টগ্রামের এই পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে ভর্তির আবেদন করেছেন ১ লাখ ৯৫ হাজার ৭৯২ ভর্তিচ্ছু। ৪৮টি বিভাগ ও ৬টি ইনস্টিটিউটে রয়েছে ৪ হাজার ৯২৬ আসন। 

কোন বিভাগে কত আসন রয়েছে সে সম্পর্কে আরো বিস্তারিত... 

‘এ’ ইউনিটে পদার্থবিদ্যা, রসায়ন, গণিত ও পরিসংখ্যান বিভাগে রয়েছে ১১০টি করে আসন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১০০টি করে আসন রয়েছে প্রাণিবিদ্যা ও উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগে। এছাড়া কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগে ৬৫টি, ট্রিপলই বিভাগে ৫৫টি ও মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিভাগে আসন রয়েছে ৫০টি।

৪০টি করে আসন রয়েছে প্রাণ রসায়ন ও অনুপ্রাণ, মাইক্রোবায়োলজি, ফরেস্ট্রি, ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা, ইনস্টিটিউট অব মেরিন সায়েন্সেস, ওশানোগ্রফি ও ফিশারিজ বিভাগে। জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং ও বায়োটেকনোলজি এবং পরিবেশবিজ্ঞানে রয়েছে ৩৫টি করে আসন। ৩০টি করে আসন রয়েছে ফলিত রসায়ন ও কেমিকৌশল এবং ফার্মেসি বিভাগে। আর মনোবিজ্ঞান বিভাগে আসন রয়েছে ২২টি।

‘বি’ ইউনিটে দর্শন, ইতিহাস, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি, আরবি ও ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগে রয়েছে ১২০টি করে আসন। ১১০টি করে আসন রয়েছে বাংলা ও ইংরেজি বিভাগে। ইনস্টিটিউট অব এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চে (আইইআর) রয়েছে ১০৫টি আসন।

এছাড়া পালি বিভাগে ৮৫টি, সংস্কৃত বিভাগে রয়েছে ৭০টি আসন। ৫০টি করে আসন রয়েছে ফারসি ভাষা ও সাহিত্য এবং বাংলাদেশ স্টাডিজ বিভাগে। আধুনিক ভাষা ইনস্টিটিউটে রয়েছে ৪১টি আসন। এর বাইরে বি-১ উপ-ইউনিটে নাট্যকলা ৩৫টি, সংগীতে ৩০টি ও চারুকলায় ৬০টি আসন রয়েছে।

‘সি’ ইউনিটে অ্যাকাউন্টিংয়ে ৮৭টি, ম্যানেজমেন্টে ৬৫টি, ফাইন্যান্সে ৯৫টি, মার্কেটিংয়ে ৭৭টি, ব্যাংকি অ্যান্ড ইনস্যুরেন্সে ৬৭টি এবং হিউম্যান রিসোর্স অ্যান্ড ম্যানেজমেন্টে ৫০টি আসন রয়েছে।

‘ডি’ ইউনিটে সমাজবিজ্ঞান অনুষদের সব বিভাগ, আইন অনুষদের আইন বিভাগ, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদভুক্ত সব বিভাগ (উচ্চ মাধ্যমিকে বিজ্ঞান/মানবিক শাখা) এবং জীববিজ্ঞান অনুষদের ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা এবং মনোবিজ্ঞান বিভাগ (উচ্চ মাধ্যমিকে মানবিক শাখা)। এই বিভাগগুলোতে আসন সংখ্যা মানবিক, বিজ্ঞান ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে আসা শিক্ষার্থীদের মধ্যে ভাগ করে দেয়া আছে।

এরমধ্যে- অর্থনীতি (মানবিক ৪০টি, বিজ্ঞান ৬৬টি ও ব্যবসায় ২৬টি মিলিয়ে ১৩২টি), রাজনীতি বিজ্ঞান (মানবিক ৫৩টি, বিজ্ঞান ৫৩টি ও ব্যবসায় ২৬টি মিলিয়ে ১৩২টি), সমাজতত্ত্ব (মানবিক ৫৩টি, বিজ্ঞান ৫৩টি ও ব্যবসায় ২৬টি মিলিয়ে ১৩২টি), লোকপ্রশাসন (মানবিক ৫৩টি, বিজ্ঞান ৫৩টি ও ব্যবসায় ২৬টি মিলিয়ে ১৩২টি), নৃবিজ্ঞান (মানবিক ৩৪টি, বিজ্ঞান ৩৪টি ও ব্যবসায় ১৭টি মিলিয়ে ৮৫টি), আন্তর্জাতিক সস্পর্ক (মানবিক ৩৪টি, বিজ্ঞান ৩৪টি ও ব্যবসায় ১৭টি মিলিয়ে ৮৫টি), যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা (মানবিক ২৪টি, বিজ্ঞান ২৪টি ও ব্যবসায় ১২টি মিলিয়ে ৬০টি), ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ (মানবিক ১২টি, বিজ্ঞান ১২টি ও ব্যবসায় ৬টি মিলিয়ে ৩০টি), ক্রিমিনোলজি ও পুলিশ সায়েন্স (মানবিক ১২টি, বিজ্ঞান ১২টি ও ব্যবসায় ৬টি মিলিয়ে মোট ৩০টি আসন)।

এই ইউনিটে আইন বিভাগের ১১৫টি আসন সবার জন্য উন্মুক্ত। বাকি বিভাগগুলোর মধ্যে অ্যাকাউন্টিংয়ে বিজ্ঞান শাখার শিক্ষার্থীদের জন্য ২০টি ও মানবিক শাখার শিক্ষার্থীদের জন্য তিনটি, ম্যানেজমেন্টে বিজ্ঞান শাখার জন্য ৪০টি ও মানবিক শাখার জন্য পাঁচটি, ফাইন্যান্সে বিজ্ঞান শাখার জন্য ১০টি ও মানবিক শাখার জন্য পাঁচটি, মার্কেটিংয়ে বিজ্ঞান শাখার জন্য ৩০টি ও মানবিক শাখার জন্য তিনটি, ব্যাংকিং অ্যান্ড ইনস্যুরেন্সে বিজ্ঞান শাখার জন্য ৩০টি ও মানবিক শাখার জন্য তিনটি, হিউম্যান রিসোর্স অ্যান্ড ম্যানেজমেন্টে বিজ্ঞান শাখার শিক্ষার্থীদের জন্য ৪৭টি ও মানবিক শাখার শিক্ষার্থীদের জন্য তিনটি আসন রয়েছে। এর বাইরে মানবিক শাখার শিক্ষার্থীদের জন্য ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যায় ১০টি ও মনোবিজ্ঞানে ১৮টি আসন রয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম