শেষ হলো ঢাবিতে ভর্তি আবেদন, সাড়ে ৩ লাখ জমা

ঢাকা, সোমবার   ১৭ মে ২০২১,   জ্যৈষ্ঠ ৩ ১৪২৮,   ০৪ শাওয়াল ১৪৪২

শেষ হলো ঢাবিতে ভর্তি আবেদন, সাড়ে ৩ লাখ জমা

ঢাবি প্রতিনিধি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০০:৪২ ১ এপ্রিল ২০২১   আপডেট: ০০:৪৪ ১ এপ্রিল ২০২১

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিল গত ৮ মার্চ। বুধবার (৩১ মার্চ) রাত ১১টা ৫৯ মিনিট শেষ হয়েছে আবেদন গ্রহণ। 

আবেদন শেষ হলে কতটি আবেদন পড়েছে ডেইলি বাংলাদেশকে সেটি নিশ্চিত করেছেন অনলাইন ভর্তি কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজুর রহমান।  

তিনি বলেন, এবার সব ইউনিট মিলে আবেদন পড়েছে প্রায় তিন লাখ ৪০ হাজারের উপরে। এদের মধ্যে ফি পরিশোধ করেছে প্রায় ৩ লাখ ২০ হাজারের উপরে। তাছাড়া  ১ এপ্রিল রাত ১১টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত যারা ফি পরিশোধ করবে, তাদের আবেদন চূড়ান্ত হবে। 

অনলাইন ভর্তি কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, যারা আবেদন করেছে তারাই কেবল ফি পরিশোধ করতে পারবে। ক-ইউনিটে মোট আবেদন জমা পড়ে ১ লাখ ২৩ হাজারের একটু কম, খ-ইউনিটে ৪৮ হাজারের একটু বেশি, গ-ইউনিটে ২৭ হাজারের উপরে, ঘ-ইউনিটে ১ লাখ ২০ হাজারের কাছাকাছি এবং চ-ইউনিটে ২১ হাজারের মতো। 

তিনি আরো বলেন, শুধু আবেদনের উপর নির্ভর করে সংখ্যাটা বলা যাচ্ছে না। কেউ ফি জমা না দিলে তার আবেদন গ্রহণ করা হবে না। তাই এই আবেদন শেষে আগামীকাল পর্যন্ত তো আবেদন ফি পরিশোধ করা যাবে। তারপর হয়তো কিছুটা নিশ্চিত হতে পারা যাবে যে, ভর্তি পরীক্ষায় কতজন বসছে। তাছাড়া আগামী ৮ এপ্রিল পর্যন্ত যেকোনো সমস্যার জন্য সংশোধন করা যাবে। 

আবেদন সময়সীমা কেন বাড়ানো হলো সে বিষয়ে তিনি বলেন, প্রথমদিকে আমাদের কিছু যান্ত্রিক জটিলতার জন্য কিছুদিন আবেদন বন্ধ রাখতে হয়েছিল। তখন আমরা বলেছিলাম যে আমরা পরে সময় বাড়িয়ে দিবো। কিন্তু এখন দেখতে পাচ্ছি আবেদন প্রক্রিয়ায় তেমন চাপ নেই। এমনিতেই রেকর্ড সংখ্যক আবেদন পড়েছে। শেষ সময়ে এসে আবেদন পড়ছে না বললেই চলে। তাই সময় না বাড়িয়ে আজকেই শেষ হবে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন। 

আগামী ১ মে শনিবার বিকেল ৩টা থেকে শিক্ষার্থীরা তাদের নিজ নিজ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার প্রবেশপত্র সংগ্রহ করতে পারবে। প্রবেশপত্র পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগ পর্যন্ত ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করা যাবে। 

আসন সংখ্যা :

চলতি সেশনে মোট ৭১৩৩ টি আসন রয়েছে। এর মধ্যে ক-ইউনিটে ১৮১০টি আসন থাকবে, যেখানে গত বছরে এ ইউনিটে ১৭৯৫টি। আবহাওয়া বিজ্ঞান বিভাগের জন্য ১৫ টি আসন বাড়ানোর ফলে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা পাবে অতিরিক্ত এ ১৫টি আসন। 

এছাড়া বাকি ইউনিটগুলোতে পূর্বের বছরের মতোই আসন বরাদ্দ থাকবে। অর্থাৎ খ-ইউনিটে ২৩৭৮টি, গ-ইউনিটে ১২৫০টি, ঘ-ইউনিটে ১৫৬০টি এবং চ-ইউনিটে ১৩৫টি আসন থাকবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর