আগের মানদণ্ডে ভর্তি পরীক্ষা নিতে ঢাবি উপাচার্যকে স্মারকলিপি

ঢাকা, শুক্রবার   ২৩ এপ্রিল ২০২১,   বৈশাখ ১০ ১৪২৮,   ১০ রমজান ১৪৪২

আগের মানদণ্ডে ভর্তি পরীক্ষা নিতে ঢাবি উপাচার্যকে স্মারকলিপি

ঢাবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০১:১৯ ৩ মার্চ ২০২১  

রাজু ভাস্কর্যের সামনে ‘২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি ইচ্ছুক শিক্ষার্থী’র ব্যানারে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন শিক্ষার্থীরা

রাজু ভাস্কর্যের সামনে ‘২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি ইচ্ছুক শিক্ষার্থী’র ব্যানারে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন শিক্ষার্থীরা

আগের মানদণ্ড বহাল রেখে ভর্তি পরীক্ষা নেয়ার দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছেন ভর্তিচ্ছুরা।

মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য কার্যালয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের পক্ষে স্মারকলিপি গ্রহণ করেন সহকারী প্রক্টর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ বদরুজ্জামান ভূঁইয়া এবং সীমা ইসলাম। স্মারকলিপির বিষয়ে উপাচার্যকে জানানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী।

তিনি বলেন, দুজন সহকারী প্রক্টর উপাচার্যের পক্ষে ভর্তিচ্ছুদের স্মারকলিপি গ্রহণ করেছেন। এ বিষয়ে আমরা উপাচার্যকে জানিয়েছি।

স্মারকলিপি দেয়ার আগে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে ‘২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি ইচ্ছুক শিক্ষার্থী’র ব্যানারে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন শিক্ষার্থীরা।

সিলেটের মদন মোহন কলেজের শিক্ষার্থী এবং ভর্তিচ্ছুদের মুখপাত্র সানোয়ার হোসেনের পরিচালনায় সমাবেশে শিক্ষার্থীদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন নারায়ণগঞ্জের সরকারি তোলারাম কলেজে শিক্ষার্থী মো. তানজিম, চট্টগ্রাম সিটি কলেজের শিক্ষার্থী শাহাদাত হোসেন প্রমুখ।

সমাবেশে শিক্ষার্থীরা বলেন, করোনার কারণে প্রায় এক বছর ধরে শিক্ষা কার্যক্রম স্থবির রয়েছে। ফলে স্বাস্থ্য ঝুঁকির কথা বিবেচনা করে সব ক্লাস-পরীক্ষা স্থগিত রাখা হয়। এ প্রক্রিয়ায় ২০২০ সালের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষাও বাতিল ঘোষণা করে অটোপাস দেয়া হয়। অটোপাসের কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে সমস্যা হতে পারে। এ আশঙ্কায় আমাদের অনেকেই অটোপাসের বিরোধিতা করলেও শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, অটোপাসের জন্য উচ্চশিক্ষায় কোনো প্রভাব পড়বে না। আমরা সেই হিসেবে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য প্রস্তুতি নেই।

তারা আরো বলেন, আটোপাসের সিদ্ধান্তের কারণে আমরা আমাদের মেধার সক্ষমতা যাচাই করতে পারিনি। আমরা ভেবেছিলাম উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় না হলেও অন্তত বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় নিজেদের মেধা যাচাইয়ের সুযোগ পাবো। শিক্ষার্থীদের শৈশবের লালিত স্বপ্ন থাকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া। কিন্তু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনের ক্ষেত্রে নূন্যতম জিপিএ বাড়ানো হয়েছে। ফলে অনেকেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনের সুযোগ পাচ্ছেন না।

সমাবেশ শেষে ভর্তিচ্ছুরা একটি মিছিল বের করেন। বিক্ষোভ মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হল, উপাচার্যের বাসভবন হয়ে উপাচার্য কার্যালয়ে গিয়ে উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দেন। স্মারকলিপি দেয়া শেষে আগামী ৪ মার্চ বিকেল চারটায় শাহবাগে সংহতি সমাবেশের ঘোষণা দেন তারা।

স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, করোনা মহামারি একটি বৈশ্বিক বিষয়ের জন্য শুধু আমরা কেন ভুক্তভোগী হবো? আমরা উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশ নিতে পারলাম না, এখন যদি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে না পারি তবে কোথায় কি করবো? আমরা শুধুমাত্র ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ চাই।

উপাচার্যকে অনুরোধ জানিয়ে তারা স্মারকলিপিতে জানান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসেবে আপনার কাছে আকুল আবেদন, ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনের নূন্যতম জিপিএ না বাড়িয়ে আগের জিপিএ বহাল বাখার বিশেষ অনুরোধ জানান তারা।

এর আগে ১৮ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবন মিলনায়তনে উপাচার্য আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তি বিষয়ক সাধারণ ভর্তি কমিটির সভায় এবারের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার মানদণ্ড বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এ সিদ্ধান্তের পর থেকেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে আগের মানদণ্ডে ভর্তি পরীক্ষা নেয়া এবং গুচ্ছ পদ্ধতিতে প্রাথমিক বাছাই পদ্ধতি বাতিলের দাবিতে আন্দোলন করে আসছেন ভর্তিচ্ছুরা।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর