জাবিতে আমরণ অনশনে শিক্ষার্থীরা

ঢাকা, শনিবার   ১৭ এপ্রিল ২০২১,   বৈশাখ ৫ ১৪২৮,   ০৪ রমজান ১৪৪২

জাবিতে আমরণ অনশনে শিক্ষার্থীরা

জাবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:১৫ ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

রোববার বেলা সাড়ে তিনটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন প্রশাসনিক ভবনের সামনে ৪৬তম ব্যাচের দুই শিক্ষার্থী আমরণ অনশনে বসেন। তাদের সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করে একই ব্যাচের আরো কজন শিক্ষার্থী সেখানে অবস্থান নেন।

রোববার বেলা সাড়ে তিনটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন প্রশাসনিক ভবনের সামনে ৪৬তম ব্যাচের দুই শিক্ষার্থী আমরণ অনশনে বসেন। তাদের সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করে একই ব্যাচের আরো কজন শিক্ষার্থী সেখানে অবস্থান নেন।

স্নাতক তৃতীয় বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষা নেয়ার দাবিতে আমরণ অনশন ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের (৪৬তম ব্যাচ) শিক্ষার্থীরা।

রোববার বেলা সাড়ে তিনটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন প্রশাসনিক ভবনের সামনে ৪৬তম ব্যাচের দুই শিক্ষার্থী আমরণ অনশনে বসেন। তাদের সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করে একই ব্যাচের আরো কজন শিক্ষার্থী সেখানে অবস্থান নেন।

অনশনকারী দুই শিক্ষার্থী হলেন ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের নাঈম শেখ এবং প্রাণিবিদ্যা বিভাগের নুর হোসাইন।

নুর হোসাইন বলেন, আমরা গত ২৬ মাসে তৃতীয় বর্ষ পার করতে পারিনি। পরীক্ষার জন্য উপাচার্যকে স্মারকলিপি দিয়েছি। তবে একমাস অতিবাহিত হলেও কোন উত্তর আসেনি। তাই আজকে উপাচার্যের সাথে কথা বললে তিনি রাষ্ট্রীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে পরীক্ষা নিতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন। আমরা হতাশার মধ্যে দিন কাটাচ্ছি। এ হতাশার কারণে যদি কেউ দুর্ঘটনা ঘটায় তখন এর দায়িত্ব কি বিশ্ববিদ্যালয় নিবে?

এদিকে বিকেল সাড়ে চারটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতি, প্রাধ্যক্ষ কমিটি ও প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে অনশনকারী শিক্ষার্থীদের বুঝিয়ে কর্মসূচি প্রত্যাহারের কথা বলেন। তবে দাবি না মানা পর্যন্ত অনশন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন শিক্ষার্থীরা। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত (সন্ধ্যা ৭টা) অনশন ও অবস্থান কর্মসূচিতে রয়েছেন তারা।

শহীদ রফিক-জব্বার হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক সোহেল আহমেদ বলেন, আমরা উপাচার্যের পক্ষ থেকে শিক্ষার্থীদের বুঝাতে এসেছি। আশাকরি তারা এই অনশন প্রত্যাহার করবে। যেহেতু করোনা পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নেয়া একটি জাতীয় ইস্যু। তাই পরীক্ষার বিষয়ে আমরা আলাপ-আলোচনা করব।

এর আগে তৃতীয় বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষা নেয়ার দাবিতে মানববন্ধন ও উপাচার্যের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৬তম ব্যাচের শিক্ষার্থী।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম