প্রশাসনিক কার্যক্রমে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা নিশ্চিতে ঢাবির উদ্যোগ

ঢাকা, সোমবার   ১৯ এপ্রিল ২০২১,   বৈশাখ ৬ ১৪২৮,   ০৬ রমজান ১৪৪২

প্রশাসনিক কার্যক্রমে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা নিশ্চিতে ঢাবির উদ্যোগ

ঢাবি প্রতিনিধি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৪৯ ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১৯:২০ ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১

ঢাবির সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ ভবন।

ঢাবির সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ ভবন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ও শিক্ষা সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যক্রমে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও দক্ষতা ভিত্তিক প্রশাসন নিশ্চিত করতে জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি)।

রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে এ বিষয়ে গঠিত বিভিন্ন কমিটির এক সমন্বয় সভায় এই উদ্যোগ বাস্তবায়নের বিভিন্ন দিক ও করণীয় নিয়ে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান সভায় সভাপতিত্ব করেন।

জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল বাস্তবায়নের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গঠিত হয়েছে তিনটি কমিটি। কমিটিগুলো হলো- নৈতিকতা কমিটি, কোর কমিটি এবং ওয়ার্কিং কমিটি।

জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল হচ্ছে- সেবা প্রার্থীকে তার প্রয়োজনীয় সেবা দেয়ার ক্ষেত্রে কোনো ধরনের কমতি থাকা যাবে না। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি থেকে শুরু করে প্রত্যেকটি কাজে আবাসিক হলে, বিভাগে বা প্রশাসনিক সকল কাজে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা রেখে সেবা দেয়ার লক্ষ্যে কাজ করতে হবে। এটি একটি জাতীয় ইস্যু। শুদ্ধাচার মানে হচ্ছে সেবা যেটি সততা, দক্ষতা ও নিষ্ঠার সঙ্গে করা হবে। সেবা প্রার্থীরা যাতে কোনো ভোগান্তির শিকার না হয় সেটাই মূল লক্ষ্য।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল বাস্তবায়নে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ও শিক্ষা সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যক্রমে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার উপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, এ লক্ষ্যে সার্বিক ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন ঘটাতে হবে এবং সকল কার্যক্রম ডিজিটাল প্রযুক্তির আওতায় আনতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও প্রশাসনিকসহ সকল কর্মকাণ্ডে সততা, নিষ্ঠা, নৈতিকতা ও মূল্যবোধ সমুন্নত রাখতে হবে।

উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল, বিভিন্ন অনুষদের ডিন এবং উল্লেখিত কমিটির সদস্যবৃন্দ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম/এইচএন