‘উচ্চপদে আসীনদের সমাজে শুদ্ধাচারের দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হয়’

ঢাকা, সোমবার   ১২ এপ্রিল ২০২১,   চৈত্র ২৯ ১৪২৭,   ২৮ শা'বান ১৪৪২

‘উচ্চপদে আসীনদের সমাজে শুদ্ধাচারের দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হয়’

শিক্ষাঙ্গণ প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:৫৯ ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

ভিসি প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদ

ভিসি প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদ

ভবিষ্যতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য করণীয় এমন ২১টি সুপারিশ উল্লেখ করে ভিসি প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদ বলেছেন, আমাদের প্রতিনিয়ত স্মরণে রাখা দরকার, পদ-পজিশন ভোগের জন্য নয়, ত্যাগ ও সেবার মধ্যেই স্বার্থকতা। 

তিনি আরো বলেন, উচ্চপদে আসীনদের সমাজে শুদ্ধাচারের দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হয়। আমি বিশ্বাস করি, সততা ও নিষ্ঠা থাকলে মানুষের পক্ষ্যে অসম্ভব কিছু নয়। 

শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টায় ভার্চুয়াল জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০ সালের দ্বিতীয় বিশেষ সিনেট অধিবেশনে তিনি এসব কথা বলেন। 

অধিবেশনে সিনেট চেয়ারম্যান জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. হারুন-অর-রশিদ দীর্ঘ দুই টার্ম অর্থাৎ ৮ বছর পুরন শেষে তার প্রশাসন আমলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আইটিভিত্তিক পরিচালন ব্যবস্থা, আঞ্চলিক কেন্দ্রের মাধ্যমে প্রশাসনের বিকেন্দ্রীকরণ, অবকাঠামোগত উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ, নতুন নতুন একাডেমিক কার্যক্রম প্রবর্তন, কলেজ শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের বিশেষ আয়োজন, বৈশ্বিক করোনা পরিস্থিতিকালিন শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের জন্য গৃহীত কার্যক্রম, মুজিববর্ষ উদযাপন উপলক্ষ্যে গৃহীত পদক্ষেপ, কলেজ পারফরমেন্স র‌্যাংকিং, মডেল কলেজ প্রকল্প, ১৩টি শতবর্ষী কলেজ প্রকল্প, শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য পরিবহন সুবিধা সম্প্রসারণ, প্রশাসনকে অধিকতর দক্ষ স্বচ্ছ গতিশীল ও জবাবদিহিমূলক করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে একাধিক নতুন দফতর ও সেল সৃষ্টি, সিন্ডিকেট সিনেট একাডেমিক কাউন্সিলসহ বিভিন্ন বডির সভা, কলেজ ও প্রফেশনাল প্রতিষ্ঠানের অধিভুক্তি, শিক্ষার্থীদের এমফিল ও পিএইচডি ডিগ্রি প্রদান, স্পেনভিত্তিক শিক্ষা গবেষণা প্রতিষ্ঠান ওয়েবমেট্রিকস এর র‌্যাংকিং এ বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৩তম স্থান অর্জন ইত্যাদি সংশ্লিষ্ট তথ্য ও পরিসংখ্যান তুলে ধরেন।  

এ সিনেট অধিবেশনে সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, বেগম আরমা দত্ত এমপি, সাংবাদিক মুহাম্মদ শফিকুর রহমান এমপি, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি মীজানুর রহমান, বিশিষ্ট নাট্যজন রামেন্দু মজুমদার, সব বিভাগীয় কমিশনারসহ মোট ৫৬ জন সদস্য উপস্থিত ছিলেন। 

উল্লেখ্য, ১৯৯২ সালে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ পর্যন্ত ১০ জন ভিসির মধ্যে একমাত্র বর্তমান ভিসিই পরপর দুইটার্ম সফলভাবে সম্পন্ন করেন। সিনেটে কয়েকটি নতুন দফতর ও শাখা সৃষ্টি ও তফসিল সংবিধিবদ্ধ করা হয়। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযুদ্ধ, বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ গবেষণা ইনস্টিটিউটের নাম সংশোধন করে ‘বঙ্গবন্ধু মুক্তিযুদ্ধ বাংলাদেশ গবেষণা ইনস্টিটিউট’ নামে নামকরণ করা হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম