বাধভাঙা উল্লাস সাত কলেজ শিক্ষার্থীদের 

ঢাকা, শনিবার   ১৭ এপ্রিল ২০২১,   বৈশাখ ৫ ১৪২৮,   ০৪ রমজান ১৪৪২

বাধভাঙা উল্লাস সাত কলেজ শিক্ষার্থীদের 

ঢাবি প্রতিনিধি ও ঢাকা কলেজ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:১৪ ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১৯:৩৭ ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১

আন্দোলন সফল হওয়ার আনন্দে আত্মহারা শিক্ষার্থীরা

আন্দোলন সফল হওয়ার আনন্দে আত্মহারা শিক্ষার্থীরা

চলছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের বিভিন্ন বর্ষের পরীক্ষা। এরই মধ্যে গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঘোষণা আসে সাত কলেজের সব ধরনের পরীক্ষা বন্ধের। বিপাকে পড়ে যায় দূরদূরান্ত থেকে পরীক্ষা দিতে আসা শিক্ষার্থীরা। দিশেহারা হয়ে পথ না পেয়ে পরীক্ষা নেয়ার দাবিতে আন্দোলনে নামেন তারা। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে স্থগিত হওয়া পরীক্ষা চলমান রাখার সিদ্ধান্ত নেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। 

বুধবার শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির সভাপতিত্বে এক বৈঠকে পরীক্ষা স্থগিতের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে করার পর শিক্ষার্থীরাও আন্দোলন প্রত্যাহার করে বাধভাঙ্গা উল্লাসে নেমে পড়েন। আন্দোলন উঠিয়ে নেয়ায় দীর্ঘ প্রায় সাত ঘণ্টা পর রাজধানীর নিউমার্কেট সায়েন্সল্যাবের সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়৷ এর আগে সকাল ৯টা থেকে অবরোধের জেরে অচল ছিল যান চলাচল। 

পরীক্ষা চালু রাখার বিষয়ে প্রশাসনের সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে আন্দোলন প্রত্যাহার করে সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা।সাত কলেজের আন্দোলনের সমন্বয়ক ও ঢাকা কলেজ শিক্ষার্থী আবু বকর বলেন, আমাদের দাবি প্রশাসন মেনে নিয়েছে। সেজন্য আমরা প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। 

চলমান পরীক্ষা অব্যাহত রাখার ঘোষণা আসার সাথে সাথে নীলক্ষেত মোড়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা উল্লাসে মেতে উঠেন এবং ‘উইন’, ‘উইন’ স্লোগানে মুখরিত হয় পুরো নিউমার্কেট, নীলক্ষেত এলাকা। নিজেদের আন্দোলন সফল হওয়ার আনন্দে আত্মহারা শিক্ষার্থীরা। 

সাত কলেজ শিক্ষার্থীদের আনন্দ মিছিল

উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী হামিম মাহবুব বলেন, আমরা সফল হয়েছি, আমাদের দাবি মেনে নেয়া হয়েছে। আমাদের দাবি মেনে নেয়ার জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। মেনে না নেয়া হলে আমাদের ভোগান্তি হতো। তাই আমরা খুশি যে চলমান পরীক্ষাগুলো নেয়া হবে। 

ঢাকা কলেজের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী হাসান তামিম বলেন, নগরবাসীর দুর্ভোগ হলেও শিক্ষার স্বার্থে আমাদের এ ধরনের কর্মসূচি নিতে হয়েছে। আমাদের যৌক্তিক দাবি মেনে নেয়ায় শিক্ষামন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ। 

ইডেন মহিলা কলেজের চতুর্থ বর্ষের মার্কেটিং বিভাগের শিক্ষার্থী শাহনাজ আক্তার বলেন, হুট করেই চলমান পরীক্ষা স্থগিত করার প্রতিবাদে আমরা নীলক্ষেত মোড়ে শান্তিপূর্ণ ভাবে অবস্থান নিই। হল খোলা ছাড়াই আমরা পরীক্ষা দিচ্ছিলাম। আমাদের আন্দোলন সফল হয়েছে তাই আমরা অন্তত খুশি।

সাত কলেজের প্রধান সমন্বয়ক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক এএসএম মাকসুদ কামাল বলেন, শিক্ষামন্ত্রীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ভার্চুয়াল বৈঠকে সাত কলেজের চলমান পরীক্ষাগুলো অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। পূর্বের রুটিন অনুযায়ীই পরীক্ষা হবে। তবে মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) এবং বুধবারের (২৪ ফেব্রুয়ারি) পরীক্ষাগুলোর বিষয়ে পরবর্তী তারিখ ঘোষণা করা হবে। শিগগিরই সেগুলোর তারিখ জানিয়ে দেয়া হবে। 

উল্লেখ্য, সরকারি সাত কলেজের ২০১৯ সালের অনার্স চতুর্থ বর্ষ ও ২০১৯ সালের অনার্স তৃতীয় বর্ষ এবং ২০১৭ সালের মাস্টার্স শেষ পর্বের মৌখিক পরীক্ষা চলমান ছিল। এছাড়া পূর্বঘোষিত পরীক্ষার সময়সূচি অনুযায়ী ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ডিগ্রি তৃতীয় বর্ষ ও ১০ মার্চ থেকে অনার্স ২য় বর্ষের (বিশেষ) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম