প্রতিবন্ধীদের বন্ধু চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আলী তানবীর 

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০৪ মার্চ ২০২১,   ফাল্গুন ১৯ ১৪২৭,   ১৯ রজব ১৪৪২

প্রতিবন্ধীদের বন্ধু চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আলী তানবীর 

চবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:২০ ২৩ জানুয়ারি ২০২১  

প্রতিবন্ধীদের প্রয়োজনীয় সামগ্রী প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চকরিয়ার ইউএনও সৈয়দ শামসুল তাবরীজ

প্রতিবন্ধীদের প্রয়োজনীয় সামগ্রী প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চকরিয়ার ইউএনও সৈয়দ শামসুল তাবরীজ

পা দুটো জন্মগত বাঁকা। উঠে দাঁড়াতে প্রয়োজন আরেকজনের সহায়তা। ঘরে কেউ না থাকলে সারাদিন মেঝেতে পড়ে থাকতে হয় ১০ বছর বয়সী শাহাবুদ্দিনের। কতো পোকা আক্রমণ করেছে হিসেব নেই। হুইলচেয়ার পেয়ে সব কষ্ট যেন নিমিষেই শেষ হয়ে গেলো শাহাবুদ্দিনের। শুধু শাহাবই নয় এমন আরো ১৩ জন প্রতিবন্ধী পেয়েছেন সহযোগিতা।

প্রতিবন্ধীদের বন্ধু খ্যাত চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আলী তানবীরের উদ্যোগে এবার কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলায় ১৩ প্রতিবন্ধী পেল ২টি ট্রাই সাইকেল, ৪টি হুইলচেয়ার, ২টি স্ট্যান্ডিং টেবল, ৩টি সিপি চেয়ার, একজন প্রতিবন্ধী পেল হাতের সরঞ্জাম এবং আরেকজন পা সুজা করার জুতা। প্রতিবন্ধীদের প্রয়োজনীয় সামগ্রী প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চকরিয়ার ইউএনও সৈয়দ শামসুল তাবরীজ। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিতি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি মনসুর আলম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এইচএম তারিকুল ইসলাম, চবি সাংবাদিক সমিতির সাবেক সভাপতি বায়েজিদ ইমন, চবি শিক্ষার্থী সোহরাব মার্শাল, মুজিবুল হক, ফয়েজ উল্লাহ ও আসিফুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র রাশেদ রনি। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন এসএআরপিভির চকরিয়া শাখা প্রধান কাজী মুহিত ও ইয়াসমিন সুলতানা।

অভিভাবকদের বক্তব্যে সাবিলা নামে একজন বলেন, আমার সন্তান আগে বাড়িতে অযত্নে অবহেলায় পড়ে থাকত। এই চেয়ারটি দেওয়াতে অনেক সুবিধা হয়েছে। অন্যসব শিশুদের মতো সে স্কুলে যেতে পারবে, ছবি আঁকবে, খেলাধুলা করবে। অনেকটাই স্বাভাবিক হবে আমার ছেলে। যাদের সহায়তায় আমাদের বাচ্চাদের জন্য সামগ্রী প্রদান করা হলো তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা। 

আলী তানভীর বলেন, প্রথমেই কৃতজ্ঞতা স্বীকার করছি যারা আমার সব কাজে সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছেন। উনাদের সহায়তা না পেলে হয়তো এসব কাজ করা সম্ভব হতো না। করোনায় বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় আমি চেষ্টা করছি সময়টা কাজে লাগাতে। আমার পক্ষ থেকে যতটুকু সম্ভব তা করছি। আশাকরি আগামী দিনেও এভাবে সবার সহযোগিতা পাবো।

ইউএনও সৈয়দ শামসুল তাবরীজ বলেন, প্রতিবন্ধীরা শারীরিকভাবে অক্ষম হলেও তারা দেশের জন্য নানা ক্ষেত্রে অবদান রাখতে পারে। তাদের দিকে ভালোবাসার হাত বাড়ালে তারাও সক্ষম মানুষদের মতো দেশের জন্য সম্মান বয়ে আনবে।

আলী তানভীরের সঙ্গে বেশ কিছু দিন থেকে পরিচয়। সে তার জায়গা থেকে যা করছে তা নিঃসন্দেহে সমাজের জন্য অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত। আমি তার সব কাজে সহযোগিতার চেষ্টা করছি। আশা করি সবাই নিজের অবস্থান থেকে সমাজের এবং মানুষের জন্য এগিয়ে আসবেন। সুন্দর মানবিক দেশ গড়তে সবার আন্তরিক প্রচেষ্টার বিকল্প নেই। 

আলী তানভীর করোনাভাইরাস মহামারি শুরু থেকে কাজ করে যাচ্ছেন। প্রতিবন্ধী পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী, ঈদসামগী বিতরণ ছাড়াও প্রতিবন্ধীদের প্রয়োজনীয় সহায়তা সামগ্রী প্রদান করে আসছেন। 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম