বিদেশে উচ্চশিক্ষায় যে প্রস্তুতিগুলো জানা দরকার 

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১,   ফাল্গুন ১৩ ১৪২৭,   ১২ রজব ১৪৪২

বিদেশে উচ্চশিক্ষায় যে প্রস্তুতিগুলো জানা দরকার 

চবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:৫৪ ১৭ জানুয়ারি ২০২১  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বাইরের দেশে পড়াশোনা করতে যাওয়ার স্বপ্ন থাকে অনেকেরই। কিন্তু সাধ থাকলেও, সাধ্য না থাকায় অনেকেই বাধ্য হন স্বপ্ন ত্যাগ করতে। কিন্তু আপনি হয়তো জানেন না যে, বিদেশে বিনা খরচে পড়াশোনা করার সুযোগ আছে অনেকের জন্যেই।

আসলে, বিদেশে পড়তে যাওয়া মানেই একগাদা টাকা খরচ নয়, অন্তত সবসময় নয়। যদি আপনি একটু বুদ্ধি খাটান, একটু পরিশ্রম করতে রাজি থাকেন। সত্যিই আপনি যদি একটু আলাদা, নতুন কিছু করতে উৎসাহী হয়ে থাকেন, তবে খুবই অল্প খরচে, এমন কি বিনা খরচেও পড়াশোনা করতে চলে যেতে পারেন দেশের বাইরে। যারা বিদেশে পড়তে যেতে আগ্রহী তাদেরকে যাওয়ার আগে ভালোভাবে জানার, বুঝার বিকল্প নেই। বিদেশে পড়াশোনা করতে চাইলে দরকার প্রাথমিক কিছু প্রস্তুতি, যা আপনাকে এগিয়ে রাখবে অন্যদের থেকে। আসুন জেনে নিই সেগুলো-

প্রাথমিক শর্ত: 
পড়াশোনার মাধ্যমে নিজেকে প্রস্তুত করাই প্রধান কাজ। ইংরেজিতে দক্ষতা থাকতে হবে। যে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে চাচ্ছেন তার খরচ বহন করা আপনার পক্ষে সম্ভব কি-না, সেটাও মাথায় রাখুন। আর -GRE, SAT, GMAT এবং IELTS বা TOFEL-এ ভালো স্কোর না থাকলে বিদেশে পড়াশোনার চেষ্টা না করাই ভালো। কারণ ভালো স্কোর না থাকলে ভালো স্কলারশিপ পাবেন না- এটি মোটামুটি নিশ্চিত।

সঠিক কোর্স নির্ধারণ:
পেশাগত উন্নতি ও লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য বর্তমান গ্লোবালাইজেশনের যুগে উচ্চশিক্ষার অনেক কোর্সের মধ্যে আপনাকে এমন একটি কোর্স বেছে নিতে হবে যা আপনার ভবিষ্যৎ পেশাগত দক্ষতার পূর্ব প্রস্তুতি হিসাবে গণ্য হবে।

এছাড়া বিদেশে উচ্চশিক্ষার জন্য আপনি একেবারে একটি নতুন বিষয়ও বেছে নিতে পারেন। আমাদের দেশে প্রচলিত নয় কিন্তু বিশ্ব প্রেক্ষাপটে গুরত্বপূর্ন এবং চাহিদা সম্পন্ন এরকম কোন বিষয়কেও আপনি পছন্দ করতে পারেন। তবে সাধারণত বিদেশের পাশাপাশি আমাদের দেশও যথেষ্ট চাহিদা আছে এরকম কোন কোর্সকে উচ্চশিক্ষার নির্বাচন করাই শ্রেয়।

ক্রেডিট ট্রান্সফার: 
দেশের কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে কোনো একটি সাবজেক্টে কিছুদিন পড়াশোনা করেছেন। এখন আপনি ওই সাবজেক্টেই বিদেশের কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করতে আগ্রহী। সে ক্ষেত্রে দেশে সম্পন্নকৃত সাবজেক্টের ক্রেডিট গ্রহণের জন্য বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে এক্সেমশন দাবি করতে পারেন। আপনার কোর্সটির জন্য কতটুকু ক্রেডিট পাবেন তা নির্ধারণ করবে ওই বিশ্ববিদ্যালয়।

দেশ ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নির্বাচন:
বিদেশে পড়াশোনার জন্য দেশ নির্বাচনের ক্ষেত্রে অবশ্যই গভীরভাবে ভেবেচিন্তে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। কারন প্রতিটি দেশে পড়াশোনার সুযোগ-সুবিধা এক রকম নয়। যেমন- কোন দেশে টিউশন ফি বেশি, কোন দেশে কম, আবার টিউশন ফি আদৌ লাগে না আবার কোন দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একই মানের কোর্সের মেয়াদ কম, কোন দেশে আবার বেশি। কোথাও পার্ট টাইম জব করা যায়, কোথাও পার্টটাইম জব হয়তো পাওয়া যায় না, আবার কোথাও কঠোর ভাবে নিষিদ্ধ। কোন দেশে সহজেই স্কলারশিপ পাওয়া যায়, আবার কোন কোন দেশে স্কলারশিপ পাওয়া বেশ কঠিন। কোন দেশের আবহাওয়া খুবই বিরূপ, আবার কোন দেশের আবহাওয়া নান্দনিক ও স্বাস্থকর। আবার এমনও দেশ আছে যেখানে পড়াশোনাকালীন সময়েই নাগরিকত্ব পাওয়ার সম্ভাবনা থকে। 

স্কলারশিপের খোঁজখবর: 
অনেক দেশের বিশ্ববিদ্যালয়েই স্কলারশিপ দেয়া হয়। সেসব বিশ্ববিদ্যলয়ের খোঁজ খবর নিন। তাছাড়া বিভিন্ন দেশের সরকারও বিদেশি শিক্ষার্থীদের স্কলারশিপ দিয়ে থাকে।
 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম