মাধ্যমিকে ৭৭ হাজার আসনে ভর্তির আবেদন পৌনে ৬ লাখ

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৮ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ১৪ ১৪২৭,   ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

মাধ্যমিকে ৭৭ হাজার আসনে ভর্তির আবেদন পৌনে ৬ লাখ

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:১২ ১১ জানুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১৯:১৫ ১১ জানুয়ারি ২০২১

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

দেশব্যাপী ৩৯০টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ১ম শ্রেণি থেকে ৯ম শ্রেণি পর্যন্ত ভর্তির লক্ষ্যে মোট ৭৭ হাজার ১৪০ টি শূন্য আসন রয়েছে। এই আসনগুলোর বিপরীতে ৫ লাখ ৭৪ হাজার ৯২৯ আবেদন জমা পড়েছে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর (মাউশি) সূত্রে জানা গেছে, ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের অনলাইনে ভর্তির আবেদন গত বছরের ১৫ ডিসেম্বর থেকে শুরু হয়ে ৭ জানুয়ারি শেষ হয়েছে। 

এসব আবেদনগুলো থেকে ভর্তির লক্ষ্যে শ্রেণিভিত্তিক বণ্টন কার্যক্রমে শিক্ষার্থী নির্ধারণে ডিজিটাল লটারি পদ্ধতি ব্যবস্থা করা হয়। লটারিতে নির্বাচন প্রক্রিয়ায় সরকারি নিয়মে ভর্তি নীতিমালা অনুসরণ করা হয় বলে জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে, এরই ধারাবাহিকতায় সাধারণ, ক্যাচমেন্ট, মুক্তিযোদ্ধা, পোষ্য কোটা, প্রতিবন্ধী, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কোটাসহ নিয়মানুযায়ী সব কোটা বিবেচনা করা হয়েছে। শূন্য আসন থাকা সাপেক্ষে এবং প্রার্থীর স্ব-স্ব ক্ষেত্রে ক্লাস, শিফট ও পছন্দের ক্রমানুযায়ী বাছাই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়। ডিজিটাল অনলাইন লটারি কার্যক্রমে সফটওয়্যারের মাধ্যমে রেনডম (দৈবচয়ন) পদ্ধতিতে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ছাত্র-ছাত্রী নির্বাচন করা হয়।

সোমবার রাজধানীর আন্তজার্তিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ডিজিটাল অনলাইন লটারি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ছাত্র-ছাত্রী নির্বাচন কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে শতভাগ স্বচ্ছতা নিশ্চিত করা হয়েছে বলে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

অনুষ্ঠানে অনলাইনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মাহবুব হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. সৈয়দ গোলাম ফারুক।

ওয়েব ও এসএমএস এর মাধ্যমে ভর্তিচ্ছু প্রার্থীরা আবেদন করেন ও আবেদনের ফি জমা দেয়। ডিজিটাল অনলাইন লটারির মাধ্যমে বিভিন্ন রাউন্ডে ভর্তির ফলাফল প্রস্তুত করা হয় এবং ওই রাউন্ডের মধ্যে আবারও লটারি করে ১টি রাউন্ড বাছাই করা হয় ও চূড়ান্ত ফলাফল নির্ধারণ করা হয়। এছাড়া চূড়ান্ত ফলাফলের পাশাপাশি একটি ‘অপেক্ষমান’ তালিকা প্রস্তুত করা হয় ।

ভর্তি কার্যক্রমের মোট ৩৯০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মোট ৭৭ হাজার ১৪০ শূন্য আসনের বিপরীতে আবেদন পড়েছে ৫ লাখ ৭৪ হাজার ৯২৯টি।

বিভাগভিত্তিক আবেদনের সংখ্যা ঢাকায় ১,৬৭,৬১০, চট্টগ্রাম ১,৩৩,৫৫৮, বরিশাল ১৬,২৮৭, ময়মনসিংহ ৪৯,০৬০, রাজশাহী ৭০,৮১২, খুলনা ৪৩,৫০৬, সিলেট ২৪,৫৭৩, রংপুরে ৬৯,৫২৩।

এর মধ্যে প্রথম শ্রেণিতে ৪২,৩৭২, দ্বিতীয় শ্রেণিতে ১২,৬৮৫, চতুর্থ শ্রেণিতে ২২,৯৬৮, পঞ্চম শ্রেণিতে ৩৬,৭৩৪, সপ্তম শ্রেণিতে ১১,৫৩১, অষ্টম শ্রেণিতে ২১,৩৯৩, তৃতীয় শ্রেণিতে ১,৪৮,১৯৪, ষষ্ঠ শ্রেণিতে ২,৪৩,৫১৬ ও নবম শ্রেণিতে ৩৫,৫৩৬।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর