বিএইচবিএফসির অনুমোদিত মূলধন হবে ১ হাজার কোটি টাকা: অর্থমন্ত্রী

ঢাকা, শুক্রবার   ২১ জানুয়ারি ২০২২,   ৮ মাঘ ১৪২৮,   ১৬ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

বিএইচবিএফসির অনুমোদিত মূলধন হবে ১ হাজার কোটি টাকা: অর্থমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:২৮ ৭ নভেম্বর ২০২১   আপডেট: ১৮:৫১ ৭ নভেম্বর ২০২১

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল- ফাইল ছবি

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল- ফাইল ছবি

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জানিয়েছেন, দেশবাসীর আবাসন চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফাইন্যান্স কর্পোরেশনের (বিএইচবিএফসি) অনুমোদিত মূলধনের পরিমাণ বৃদ্ধি করে ১ হাজার কোটি টাকা এবং পরিশোধিত মূলধন ৫০০ কোটি টাকা করা হবে।

রোববার পূর্বানী হোটেলে বিএইচবিএফসির ঋণের কিস্তি পরিশোধে সোনালী ই-সেবার অনলাইন জমা ব্যবস্থার উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, বিএইচবিএফসি যখন যাত্রা শুরু করে, তখন প্রতিষ্ঠানটির অনুমোদিত মূলধনের পরিমাণ ছিল ১১০ কোটি টাকা এবং পরিশোধিত মূলধনের পরিমাণ ১১০ কোটি টাকা ছিল।

তিনি বলেন, আবাসন খাতে দিন দিন চাহিদা বাড়ছে, সেই চাহিদা পূরণে মূলধন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। জাতীয় সংসদে এ সংক্রান্ত একটি আইন পাস করার প্রক্রিয়ায় রয়েছে। আশা করা যায়, আইনটি পাশ হলে বিএইচবিএফসির অনুমোদিত মূলধনের পরিমাণ ১ হাজার কোটি টাকা এবং পরিশোধিত মূলধনের পরিমাণ ৫০০ কোটি টাকা হবে।

মুস্তফা কামাল বলেন, বিএইচবিএফসির ঋণের কিস্তি অনলাইনে জমা করার ব্যবস্থা চালু করা নিঃসন্দেহে একটি মহতী উদ্যোগ। এর ফলে গ্রাহক সেবা সহজ ও দ্রুত হবে। সোনালী ই-সেবা পদ্ধতিটি ডিজিটাল বাংলাদেশ প্ল্যাটফর্মের অনন্য সংযোজন বলে তিনি মন্তব্য করেন।

মন্ত্রী আরো বলেন, উপযুক্ত গ্রাহক নির্বাচন করে ঋণ প্রদান ও নিয়মিতভাবে ঋণ আদায়ের সাফল্য বিএইচবিএফসির ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বস্তিবাসীদের জন্য স্বল্পমূল্যে ফ্লাট নির্মাণ, সরকারি কর্মচারীদের জন্য গৃহঋণ এবং গৃহহীন জনসাধারণের জন্য আশ্রয়ণসহ সব স্তরের মানুষের জন্য গৃহ ঋণের সংস্থান করেছেন। প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন, ‘মুজিব বর্ষে আমাদের লক্ষ্য, একজন মানুষও ঠিকানা বিহীন থাকবে না, গৃহহারা থাকবে না’।

বিএইচবিএফসির ঋণের কিস্তি অনলাইনে জমা করার ব্যবস্থা চালু হওয়ায় প্রতিষ্ঠানটির ঋণের কিস্তিসহ সব রকম বিক্রয়যোগ্য ফরমের মূল্য ও সরকার নির্ধারিত ফি এখন যেকোনো স্থান থেকে তাৎক্ষণিক পরিশোধ করা যাবে। সোনালী ব্যাংকের সোনালী ই-সেবা পেমেন্ট গেটওয়ে থেকে গ্রাহকের নিজ অ্যাকাউন্টের টাকা স্থানান্তর, ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ড অথবা মোবাইল ওয়ালেটের মাধ্যমে জমা দেওয়ার সুযোগ তৈরি হয়েছে। জমা পরবর্তীতে জমাকৃত অর্থের তথ্য এবং বিদ্যমান ঋণ স্থিতির তথ্য তাৎক্ষণিকভাবে অটো জেনারেটেড ভাউচার এবং এসএমএস এর মাধ্যমে গ্রাহক জানতে পারবেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএইচ/এইচএন

English HighlightsREAD MORE »