নতুন মুদ্রানীতিতে প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়নের উপর বিশেষ গুরুত্ব

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ১৩ ১৪২৮,   ১৯ সফর ১৪৪৩

নতুন মুদ্রানীতিতে প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়নের উপর বিশেষ গুরুত্ব

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:৫৭ ২৯ জুলাই ২০২১   আপডেট: ১৬:৩৯ ৩০ জুলাই ২০২১

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

করোনা মোকাবিলায় সরকার ও বাংলাদেশ ব্যাংক ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়নের উপর বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে চলতি অর্থবছরের মুদ্রানীতি ঘোষণা করা হয়েছে। আগের ধারাবাহিকতা বজায় রেখে এবারও বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবাহ বাড়ানোর প্রক্ষেপণ করা হয়েছে ১৪ দশমিক ৮০ শতাংশ। নতুন মুদ্রানীতিকে সম্প্রসারণমূলক ও সংকুলানমূলক বলে উল্লেখ করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংক চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের জন্য মুদ্রানীতি ঘোষণা করে। চলমান করোনা মহামারির কারণে এবার মুদ্রানীতি প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়নি। বাংলাদেশ ব্যাংকের ওয়েবসাইটে সেটি আপলোড করা হয়েছে।

নতুন মুদ্রানীতির বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. ফজলে কবীর তার লিখিত বক্তব্যে বলেছেন, করোনা মহামারির ক্ষতিকর প্রভাব কাটিয়ে দেশীয় অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের পাশাপাশি মানসম্মত নতুন কর্মসংস্থান তৈরিতে সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে সম্প্রসারণমূলক ও সংকুলানমুখী দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে মুদ্রানীতি প্রণয়ন করা হয়েছে। এই মুদ্রানীতি বাস্তবায়নের মাধ্যমে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে আরো গতি সঞ্চার হবে।

তিনি বলেন, করোনার প্রভাব মোকাবিলায় সরকার ও বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রণোদনা প্যাকেজের সফল বাস্তবায়ন নিশ্চিতকরণে কঠোর নজরদারি জোরদার করা হবে। অর্থবছরের সামনের দিনগুলোতে ব্যাংকিং খাতের সার্বিক তারল্য পরিস্থিতি ও অভ্যন্তরীণ অর্থনীতির গতি-প্রকৃতির উপর নির্ভর করে মুদ্রানীতি ও এর হাতিয়ারসমূহের যথাযথ ব্যবহারে বাংলাদেশ ব্যাংক বিশেষভাবে প্রস্তুত রয়েছে।

নতুন মুদ্রানীতিতে সরকারের ঋণ গ্রহণ লক্ষ্যমাত্রার আলোকে ৭৬ হাজার ৫০০ কোটি টাকা ঋণ যোগান বাড়ানোর প্রক্ষেপণ রাখা হয়েছে। আর মোট অভ্যন্তরীণ ঋণের প্রবৃদ্ধি ধরা হয়েছে ১৭ দশমিক ৮০ শতাংশ।

নতুন মুদ্রানীতিতে সবচেয়ে জোর দেওয়া হয়েছে প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়নের ওপর। একইসঙ্গে ঋণ যেন অনুৎপাদনশীল খাতে গিয়ে মূল্যস্ফীতি না বাড়ায় সেদিকে নজর রাখতে বলা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ