Daily Bangladesh :: ডেইলি বাংলাদেশ

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৯ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ৬ ১৪২৭,   ০৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

মুক্তবাক চ্যানেল ২৪ ২৩০০ ঘটিকা ০৩ ডিসেম্বর ২০২০

2020-12-03 23:00:00

সোহরাব হাসানঃ

যে প্রতিবেদন দেখলাম তাতে তো মনে হয় সাধারন মানুষ ভালো নেই। তারা নিরাপদ নয় কিন্তু পার্বত্য চট্টগ্রামে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আছে, বিজিবি আছে, নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরাও আছে এবং সবচেয়ে বেশি নিরাপত্তা ব্যবস্থা তৈরি করা হয়েছে। তারপরও চাঁদাবাজি এবং সন্ত্রাসীর মতো ঘটনা কীভাবে ঘটে, সেটা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যায়। এর পেছনের উৎস কি? অর্থাৎ যে লক্ষ্যে পার্বত্য শান্তি চুক্তি করা হয়েছিলো সেটা বাস্তবায়ন হয়নি। এর বাস্তবায়নের দায়িত্ব রাষ্ট্রের। ১৯৯৭ সালে চুক্তির সময় পাহাড়িদের মধ্যে যে ঐক্য ছিলো সেই ঐক্যের অনেক অভাব দেখা যাচ্ছে। পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রধান সমস্যা ভূমি। (২৩:১০:০৮) সেখানে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে পার্বত্য চট্টগ্রামের জেলা পরিষদ এবং আঞ্চলিক পরিষদের মাধ্যমে শাসিত হওয়ার কথা ছিলো, সেই নির্বাচন ২৩ বছরেও হয়নি। এই যে না হওয়ার মধ্যেই কিন্তু এই চাঁদাবাজি সন্ত্রাসী এর উৎস পাওয়া যাবে(২৩:১০:২৬)। (২৩:৪০:২৪) অর্থনৈতিকভাবে ওখানে বাঙালিরা সবল হচ্ছে এবং সরকার সেটিকে প্রশ্রয় দিয়েছে, কারণ সেখানে পাহাড় দখল করছে কারা? বাঙালিরা যেয়ে, প্রভাবশালীরা যেয়ে, ক্ষমতাবানরা যেয়ে। পাহাড়িদের কথা হচ্ছে যে এটি ঠেকানো(২৩:৪০:৪২)।

 

ব্রি. জে. ড. এম সাখাওয়াত হোসেন (অব)ঃ

পার্বত্য চট্টগ্রামে একটি ভূখণ্ড হলেও এখানে তেরোটি জাতি উপজাতি বাস করেন যাদের আমরা পাহাড়ি বলে থাকি। এর মধ্যে সবচেয়ে বড় চাকমা, ত্রিপুরা এবং মারমা গোষ্ঠী। যার সাথে আরও ছোট ছোট গোষ্ঠী রয়েছে। শান্তি চুক্তি হওয়ার পরে সবাই এই চুক্তিটা মেনে নেয়নি, অনেকেই এটার বিরোধীতা করেছে। বহু বছর এখানে রক্তক্ষরণ হয়েছে। রক্তক্ষরণ শুধু পাহাড়িদের হয়নি, রক্তক্ষরণ বাঙ্গালীদেরও হয়েছে, সেনাবাহিনীর হয়েছে, একই সাথে অন্যান্য সিকিউরিটি ফোর্সের হয়েছে।

যার কারণেই শান্তি চুক্তি প্রতিষ্ঠিত করা হয়েছিলো। আমি খুব কম সময়ে পার্বত্য চট্টগ্রামে কাটিয়েছি, ওই সময় পার্বত্য চট্টগ্রাম যত শান্তিপূর্ণ ছিলো, অন্য কোনো জেলায় এতটা শান্তিপূর্ণ নয়। আজকেও যদি আপনি তুলনা করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম সেই হিসেবে যথেষ্ট শান্তিপূর্ণ রয়েছে। তবে যেটা শুনলাম এখন চাঁদাবাজি হচ্ছে। পাহাড়ি এলাকা দেখেই এখানে চাঁদাবাজি একটু বেশি হচ্ছে।

 

অধ্যাপক ড. মেজবাহ কামালঃ

আঞ্চলিক সংগঠনগুলোকে দায়ী করা হচ্ছে এটা একটা বিশেষ পরিকল্পনার অংশ হিসেবে করা হচ্ছে। বাংলাদেশের কোন জেলা-উপজেলা রয়েছে যেখানে সন্ত্রাস হয় না। খাগড়াছড়ির এসপি যে কথাটি বলেছেন সেটা গুরুত্বপূর্ণ, তিনি বলেছেন সারা দেশে যেভাবে চলছে খাগড়াছড়িতে ঠিক সেরকমই হচ্ছে। চাঁদাবাজি কোথাও গ্রহণযোগ্য নয়, তেমনি পার্বত্য চট্টগ্রামেও গ্রহণযোগ্য নয়। (২৩:১৭:৪৮) কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে সারাদেশে সর্বত্র সন্ত্রাস আছে, সারাদেশে সর্বত্র চাঁদাবাজি আছে। এই অবস্থার মধ্যে দিয়ে আপনার চলে। খামাখা ওই জায়গায় আঞ্চলিক দলগুলোকে দায়ী করে, এটা শান্তিচুক্তি বাস্তবায়ন না হওয়ার জন্য তারাই দায়ী এই রকমভাবে যে বক্তব্য আনা হচ্ছে এই বক্তব্যটা খুবই আপনার অযৌক্তিক। আসলে ব্যাপারটা হচ্ছে চুক্তি বাস্তবায়ন করার দায়িত্ব তো সরকারের, দায়িত্ব রাষ্ট্রের। এমনকি সন্ত্রাস দমনের দায়িত্বও রাষ্ট্রের, চাঁদাবাজি দমনের দায়িত্বও রাষ্ট্রের। তো রাষ্ট্র যদি ফেইল করে বা রাষ্ট্র যদি অপারগ হয়, রাষ্ট্র যদি যথেষ্ট অ্যাক্ট করতে না পারে তার জন্য আপনি দায়িত্বটা স্থানীয় সংগঠনগুলোকে কেনো দেবেন এটাতো যুক্তিপূর্ণ না। আসলে যেটা হচ্ছে যে সমস্যার যে মৌলিক জায়গা, সে মৌলিক জায়গা থেকে দৃষ্টিকে আড়াল করার জন্য এই ধরনের প্রচেষ্টাটা অনেক দিন থেকে নেয়া হচ্ছে(২৩:১৮:৫৫)। (২৩:৩০:৫৭) রাজনৈতিক সমস্যাকে রাজনৈতিকভাবে নিষ্পত্তির জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে চুক্তি করেছেন, সেই অনুযায়ী তাদেরকে তাদের জমিজমা বাড়িঘরে ফেরত নিয়ে যাওয়ার কথা, এখন সেটা করা হচ্ছে না। ফলে এক ধরনের অস্থিরতা ভেতরে ভেতরে কাজ করছে এবং মানুষজনকে যে প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছিলো সে প্রতিশ্রুতি রক্ষা করা হচ্ছে না(২৩:৩১:২৩)। চুক্তিতে যা রয়েছে সেগুলোকে পরিবর্তন করার কোনো সুযোগ নাই। অন্য বিষয় নিয়ে নিশ্চয়ই কথা হতে পারে।

শিরোনাম:

Bulletজাতীয় সংসদের একাদশ অধিবেশন শুরু, ভাষণ দেবেন রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ (ডিবিসি নিউজ) Bulletলালমনিরহাটে ট্রাকের ধাক্কায় এসআই-সহ দুই পুলিশ সদস্য নিহত। (যমুনা টিভি) Bulletশিশু ধর্ষণ মামলায় দুই রকম রিপোর্ট দেয়ায় ব্রাক্ষণবাড়িয়ার পুলিশ সুপারসহ তিনজনকে তলব করেছে হাইকোর্ট, তলব করা হয়েছে সিভিলসার্জনসহ ১০ চিকিৎসককে, আইজিপি ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে তদন্তের নির্দেশ। Bulletদেশে করোনায় একদিনে আরও ২৩ জনের মৃত্যু, এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭,৯০৬ জন। ২৪ ঘণ্টায় ১৩,৪৪৬ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৫৬৯ জনের দেহে ভাইরাস শনাক্ত। মোট আক্রান্ত ৫ লাখ ২৭ হাজার ৬৩২ জন, আরও সুস্থ ৬৮১ জন। Bulletনিজস্ব ব্যস্ততার কারণে ১৯ জানুয়ারি সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বাংলাদেশ সফর স্থগিত ঘোষণা Bulletরাজধানীর কাকরাইলে মা-ছেলে হত্যা মামলায় ৩ আসামির ফাঁসির Bulletসিলেট এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গৃহবধূ গণধর্ষণ মামলায় ৮ আসামির বিরুদ্ধে চার্জশিট গঠন। Bulletগণভবন ও বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র থেকে একযোগে সম্প্রচারিত জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি বক্তব্য রাখছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। Bulletকেরাণীগঞ্জে দুই কিশোর গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত এক, আহত দুই। Bulletসিরাজগঞ্জে সহিংসতায় বিজয়ী কাউন্সিলর প্রার্থী তরিকুল নিহত। Bullet১-১০ এপ্রিল ঢাকাসহ বিভাগীয় শহরে হবে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ গেমস। Bulletপাবনার সাঁথিয়ায় জমি নিয়ে বিরোধের জেরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে ২ জন নিহত। Bulletরাজশাহীর ভবানীগঞ্জ পৌরসভায় ভোট বর্জনের ঘোষণা বিএনপি মেয়র প্রার্থীর। Bulletপি কে হালদারের সঙ্গে ৮৩ জন জড়িত--হাইকোর্টে বিএফআইইউ’র প্রতিবেদন, অর্থ পাচার হয়েছে সিঙ্গাপুর, কানাডা ও ভারতে। Bulletদ্বিতীয় ধাপে ৬০টি পৌরসভায় নির্বাচন: ফেনীর দাগনভূঞায় একটি কেন্দ্রে ককটেল বিস্ফোরণ; এক পুলিশ সদস্যসহ দুই জন আহত। Bulletদেশে করোনায় একদিনে আরও ১৩ জনের মৃত্যু, এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭,৮৬২ জন। ২৪ ঘণ্টায় ১৩,৬৭৮ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৭৬২ জনের দেহে ভাইরাস শনাক্ত। মোট আক্রান্ত ৫ লাখ ২৬ হাজার ৪৮৫ জন; আরও সুস্থ ৭১৮ জন। Bulletখুলনার জিরো পয়েন্টে ট্রাকচাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত। Bulletদেশে করোনায় একদিনে আরও ১৪ জনের মৃত্যু, এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭,৮৩৩ জন। ২৪ ঘণ্টায় ১৫,৭২৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৮৯০ জনের দেহে ভাইরাস শনাক্ত। মোট আক্রান্ত ৫ লাখ ২৪ হাজার ৯১০ জন, আরও সুস্থ ৮৪১ জন। Bulletসারা দেশে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ও ম্যুরালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী- হাইকোর্টে প্রতিবেদন দাখিল। Bulletরাঙ্গামাটিতে পাথরবোঝাই ট্রাকসহ বেইলি ব্রিজ ভেঙে ৩ জন নিহত; রাঙ্গামাটি-খাগড়াছড়ি সড়ক যোগাযোগ বন্ধ।