Daily Bangladesh :: ডেইলি বাংলাদেশ

ঢাকা, সোমবার   ১৭ জানুয়ারি ২০২২,   ৩ মাঘ ১৪২৮,   ১১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

নিউজ আওয়ার এক্সট্রা এটিএন নিউজ ২১৩০ ঘটিকা ২৮ নভেম্বর ২০২১

2021-11-28 21:30:00

অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেনঃ

যখন কোনো নির্বাচন হয় তখন আমাদের দলের পক্ষ থেকে আমরা সেটাকে বিশ্লেষণ করি কোথায় কি হচ্ছে। পরবর্তী ধাপগুলোতে যাতে কোনো রকম সহিংসতা না ঘটে, কোনো রকম বিশৃংখলা না ঘটে এক্ষেত্রে সাংগঠনিকভাবে আমাদের একটা নির্দেশনা থাকে। পাশাপাশি এই বিষয়গুলো যারা অমান্য করবে তাদের জন্য শাস্তির বিধান আছে।  উৎসবমুখরভাবে সারা বাংলাদেশের নির্বাচন হয়েছে। সাধারণ জনগণও ভোট দিতে পেরে খুব খুশি। স্থানীয় পর্যায়ের নির্বাচন একেবারে মোটাদাগে অথবা সরলীকরণ করে, এটি যে লোভনীয় বা আকর্ষণীয় এটি বলা যাবে না। আমাদের একটা স্থানীয় পর্যায়ের মনোনয়ন বোর্ড আছে। সেখান থেকে একটা প্যানেল নির্বাচন করে এখানে পাঠানো হয়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে আমাদের এই মনোনয়ন বোর্ড গঠিত। এখানে আমাদের অনেক সিনিয়র নেতৃবৃন্দ থাকে এখানে কোনো রকম দুর্নীতি করার কোনো সুযোগ নাই।

 

মাসুদ কামালঃ

আমাদের দেশে বিশেষ করে স্থানীয় সরকার নির্বাচনটাকে আমরা বলে থাকি উৎসবমুখর নির্বাচন। কাউকে বলে দেওয়া হয় না তোমরাই স্থানীয় নির্বাচন নিয়ে উৎসব করো। তারা নিজ দায়িত্বেই কিন্তু স্থানীয় নির্বাচনে দায়িত্ব পালন করে। আবার মারামারিও যেটা হয় সেটাও তারা নিজ দায়িত্বেই করে। আওয়ামী লীগ বা বিএনপি তারা বলে না যে তোমরা মারামারি করো। নিজ দায়িত্বেই মারামারি করে কোনো দল তাদেরকে মারামারি করতে বলে না। বিএনপি বলেছে তারা নির্বাচন করবে না, কেন করবে না সেটা তাদের নিজস্ব ব্যাখ্যা, তাদের নিজস্ব অভিমত। বিএনপি যখন এই স্থানীয় নির্বাচনে অনুপস্থিত তখন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী পক্ষ হয়ে গেছে।

 

ড. এম সাখাওয়াত হোসেনঃ

তৃণমূল পর্যায়ের নির্বাচন সবসময় গুরুত্বপূর্ণ ছিল। আর গুরুত্বপূর্ণ ছিল এই কারণে যে স্থানীয় সরকার নির্বাচন থেকে মোটামুটি একটা রাজনৈতিক দল উঠে আসে। গ্রাম পর্যায়ে সরকারের পক্ষ থেকে যে সমস্ত সাহায্য-সহযোগিতা আসে সেগুলোকে অ্যাডমিনিস্ট্রেশন করা হয়। তারপরে গ্রামের ছোট ছোট উন্নয়নগুলো করা হয়। ক্রমেই স্থানীয় সরকার নির্বাচন একটা লাভের পর্যায়ে চলে গেছে। যে জায়গার মানুষ খুন হয়েছে সেটার দায়িত্বটা তো একজনকে অবশ্যই নিতে হবে। ওই ইউনিয়নের পুরো নির্বাচনটা বন্ধ করে দেওয়া উচিত। যেসব এলাকায় স্থানীয় সরকার নির্বাচন নিয়ে মারামারি হয় সেসব এলাকায় নির্বাচন কমিশনের উচিত নির্বাচন বন্ধ করে দেওয়া। আর বলে দেওয়া উচিত যে আমরা ছয় মাসেও নির্বাচন করবো না, তখন সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে।

 

অ্যাডভোকেট এনামুল হক চৌধুরীঃ

যে প্রার্থী তার কেন্দ্রের মধ্যে অর্থাৎ সেটি বিদ্রোহী প্রার্থী হোক আর যেকোনো দলের প্রার্থী হোক ভোটের দিন ভোট কেন্দ্রের মধ্যে তার কর্মী বাহিনীকে বুথের মধ্যে যত বেশি একটিভ করতে পারবেন তার জয় ততখানি সুনিশ্চিত। একসময় ভোট হতো, ভোট দেয়ার পর আঙ্গুল দেখানো হতো। প্রার্থীরা বসে থাকতো আঙুল দিয়ে দেখানো হতো যে অমুক লোককে আমি ভোট দিয়েছি। তারপর আসলো ব্যালট বাক্স। ব্যালট বাক্সে প্রত্যেকের ছবি দেওয়া হতো। তখন আবার বলা হলো ব্যালট বাক্স পরিবর্তন করা হচ্ছে। সেইজন্য সে পরিবর্তন থেকে আমরা চলে আসলাম সিল মারার ক্ষেত্রে।

 

অ্যাডভোকেট সুজিত অধিকারীঃ

সংগঠনের দায়িত্ব প্রাপ্ত যারা তারাই সংগঠন গুছিয়ে থাকে। আর সরকারে যারা থাকে তারা সরকারের কাজ পরিচালনা করে। ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন, এটা একেবারে স্থানীয় পর্যায়ের নির্বাচন। চেয়ারম্যান সাহেবের নির্বাচনের স্বার্থে নিজেকে বিজয়ী করার জন্য ইউপি সদস্যদেরকেও সাথে রাখে। সেক্ষেত্রে দেখা যায় যে হানাহানির ঘটনা ঘটে। এশিয়ার মধ্যে সর্ববৃহৎ দল হচ্ছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাদের জননেত্রী শেখ হাসিনা, তিনি ইতিমধ্যে যে ঘোষণা দিয়েছেন সেটা সারা বাংলাদেশে পরীক্ষিত। যারা বিদ্রোহী প্রার্থী ছিল তাদেরকে এই বছর নমিনেশন দেয়া হয় নাই।

 

অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলামঃ

আমাদের সুনামগঞ্জে ১৭টি ইউনিয়নে নির্বাচন হয়েছে। মোটামুটি উৎসবমুখর পরিবেশেই এই নির্বাচনগুলো হয়েছে। স্থানীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগ বনাম আওয়ামী লীগ হয় নাই। এখানে স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়ী হয়েছে। আওয়ামী লীগেরও অনেক বিদ্রোহী প্রার্থী ছিল, তারাও বিজয়ী হয়েছে। দক্ষিণ সুনামগঞ্জে আওয়ামী লীগের একজন প্রার্থী বিজয়ী হয়েছে। বাকিগুলো স্বতন্ত্র এবং বিএনপিরও তিনজন প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছে। সুনামগঞ্জের ত্যাগী নেতৃবৃন্দ যারা তাদেরকে কোনোভাবেই মূল্যায়ন করা হয় নাই। তারা এখন নীরবে নিস্তব্ধে সাধারণ ভোটার হয়েই বেঁচে আছেন। তারা জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ভালোবাসেন, বঙ্গবন্ধুকে ভালোবাসেন। সেই আশা নিয়ে তারা এখনও বেঁচে আছেন।

শিরোনাম:

Bulletময়মনসিংহে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর দুই কিশোরীকে ধর্ষণের ঘটনায় ৫ আসামি ২ দিন করে রিমান্ডে। Bulletজরুরি প্রয়োজন ছাড়া বর্তমানে ভারত ভ্রমণে নিরুৎসাহিত করেছেন বিক্রম দোরাইস্বামী, স্থলবন্দর খোলা থাকবে। Bulletনওগাঁর সাপাহার সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত। Bulletদেশে করোনায় একদিনে আরো একজনের মৃত্যু, এই নিয়ে মারা গেলেন ২৮ হাজার ৯৮ জন। নতুন শনাক্ত ১ হাজার ১৪৬ জনসহ মোট শনাক্ত ১৫ লাখ ৯১ হাজার ৯৩ জন। মৃত্যু ১.৭৭ শতাংশ, শনাক্ত ৫.৬৭ শতাংশ, সুস্থ ৯৭.৪৫ শতাংশ: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। Bulletকরোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে; সবাইকে দ্রুত টিকা নেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর। Bulletকরোনা সংক্রমণ বাড়ায় রাজনৈতিক, সামাজিক ও ধর্মীয় সমাবেশ বন্ধসহ ৪ দফা সুপারিশ জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির। Bulletদুর্নীতিবাজ যে দলেরই হোক ছাড় দেয়া হচ্ছে না, হবেও না। জুনে পদ্মাসেতু, অক্টোবরে কর্ণফুলী নদীর তলদেশে টানেল চালু, ১৩ বছরে কী করেছি, আপনারাই মূল্যায়ন করবেন। অগ্রযাত্রা রুখতে দেশে-বিদেশে নানা ষড়যন্ত্র চলছে: প্রধানমন্ত্রী। Bulletখুলনা মহানগরে ১১ জানুয়ারি থেকে রাত ৮টার পর দোকান খোলা রাখা যাবে না। ৯ জানুয়ারি থেকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীরে ক্লাস বন্ধ। Bulletমুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় মামলা, গ্রেপ্তার ৭। Bulletসার্ক শীর্ষ সম্মেলনে অংশ নিতে রাজি নয় ভারত। Bulletপ্রকাশ হলো বিপিএলের পূর্ণাঙ্গ সময়সূচি Bulletহাতকড়াসহ ২ যুবক পালানোর ঘটনায় ২ কনস্টেবল প্রত্যাহার Bulletমিক্রনের দাপটে দিশেহারা ইউরোপের বিভিন্ন দেশ; জার্মানি, ফ্রান্স ও আয়ারল্যান্ডে বেড়েই চলেছে সংক্রমণ Bulletসরকারি চাকরিজীবী পাত্র না পাওয়ায় ‘আত্মহত্যা Bulletথার্টি ফার্স্ট নাইট ঘিরে রাজধানীতে যান চলাচলে ডিএমপির নির্দেশনা Bullet৮ জানুয়ারি থেকে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি শুরু Bulletচরম ব্যর্থতাই বিএনপির একমাত্র প্রাপ্তি: ওবায়দুল কাদের। Bulletদেশের ২৩তম প্রধান বিচারপতি হচ্ছেন হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী Bulletএমভি অভিযান-১০ লঞ্চে আগুনের ঘটনায় দগ্ধ এক নারী ঢাকা মেডিকেলে মারা গেছেন, মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ৪৮। Bulletডেল্টা এবং ওমিক্রনের একযোগে প্রাদুর্ভাব সংক্রমণের সুনামি তৈরী করেছে: ডব্লিউএইচও