দ্বিতীয় বিয়ের পর প্রথম স্ত্রীকে পিটিয়ে মারল ইবরাহীম

ঢাকা, শুক্রবার   ০৭ অক্টোবর ২০২২,   ২২ আশ্বিন ১৪২৯,   ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

Beximco LPG Gas

দ্বিতীয় বিয়ের পর প্রথম স্ত্রীকে পিটিয়ে মারল ইবরাহীম

বগুড়া প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:২৯ ৭ আগস্ট ২০২২  

ইবরাহীম মন্ডল

ইবরাহীম মন্ডল

বগুড়ার গাবতলী উপজেলায় যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে স্বামী ইবরাহীম মন্ডলকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার দুপুরে তাকে হত্যা মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে।

এর আগে, শনিবার মধ্যরাতে ওই উপজেলার বালিয়াদিঘী ইউনিয়নের কালাইহাটা গ্রামে মীমের স্বামীর বাড়ি থেকে তার লাশ উদ্ধার করেন স্বজনরা।

গ্রেফতার ইবরাহীম একই গ্রামের বাসিন্দা। তার বাবার নাম করিম মন্ডল। রোববার দুপুরে ওই গ্রাম থেকে তাকে আটক করে পুলিশ। মামলার পর তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

নিহতের নাম মীম খাতুন। ২৫ বছরের মীম বালিয়াদিঘী ইউনিয়নের তল্লাতলা গ্রামের আনোয়ার হোসেনের মেয়ে। তিনি ইবরাহীমের প্রথম স্ত্রী ছিলেন।

রোববার দুপুরে হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ তুলে থানায় মামলা করেন নিহতের বাবা আনোয়ার হোসেন। মামলায় ৩০ বছর বয়সী ইবরাহীম ও তার বাবাসহ তিনজনকে আসামি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বছর সাতেক আগে মীমের সঙ্গে ইবরাহীমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের দাবিতে মীমকে মারধর করতেন ইবরাহীম। অবশেষে যৌতুকের টাকা না পেয়ে পাঁচ মাসেক আগে মীমকে না জানিয়ে আরেকটি বিয়ে করেন ইবরাহীম। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে স্বামীর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন মীম। একইসঙ্গে স্বামীর বাড়ি থেকে চলে গিয়ে বাবার বাড়িতে বসবাস শুরু করেন।

বিষয়টি নিয়ে গত ৪ আগস্ট স্থানীয়ভাবে সালিশ বসানো হয়। সালিশের মাধ্যমে তাদের বিরোধ মীমাংসা করে মীমকে স্বামীর বাড়িতে উঠিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু এরপরই ইবরাহীম মীমের পরিবারের কাছে এক লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। বিষয়টি নিয়ে তাদের পারিবারিক কলহ শুরু হয়। পরবর্তীতে শনিবার মধ্যরাতে স্বামীর বাড়িতে অচেতন অবস্থায় পড়ে ছিলেন মীম। ওই সময় মীমের বাবার বাড়িতে খবর দেওয়া হয়। খবর পেয়ে মীমের বাবা আনোয়ার হোসেনসহ অন্যরা মীমকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে নেন। শজিমেক হাসপাতালের চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। স্বামীর মারধরের শিকার হয়েই মারা গেছেন মীম।

গাবতলী মডেল থানার ওসি মো. সিরাজুল ইসলাম জানান, মামলায় নিহত মীমের বাবা অভিযোগ করেছেন যে যৌতুকের দাবিতে তার মেয়েকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এর আগেও ইবরাহীম যৌতুকের দাবিতে মীমকে মারধর করেছেন।

তিনি আরো জানান, ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়া গেলে মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে। অভিযুক্ত ইবরাহীম এখন পর্যন্ত থানা হেফাজতে আছেন। বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম

English HighlightsREAD MORE »