মাকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় প্রেমিকার মা-বাবা গ্রেফতার 
15-august

ঢাকা, সোমবার   ১৫ আগস্ট ২০২২,   ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯,   ১৬ মুহররম ১৪৪৪

Beximco LPG Gas
15-august

মাকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় প্রেমিকার মা-বাবা গ্রেফতার 

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৫৮ ৬ জুলাই ২০২২   আপডেট: ১৫:০৫ ৬ জুলাই ২০২২

মাকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় প্রেমিকার মা-বাবা গ্রেফতার। ছবি: সংগৃহীত

মাকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় প্রেমিকার মা-বাবা গ্রেফতার। ছবি: সংগৃহীত

ময়মনসিংহে ছেলের প্রেমের অপরাধে মা লাইলি আক্তারকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় জড়িত প্রেমিকার মা-বাবাকে গ্রেফতার করেছে পিবিআই। গ্রেফতাররা হলেন, খোকন মিয়া ওরফে কাজল ও নাসিমা আক্তার কনা। 

বুধবার রাজধানীর ধানমন্ডিতে পিবিআই সদর দফতরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

পিবিআই-এর অতিরিক্ত ডিআইজি সায়েদুর রহমান সংবাদ সম্মেলনে বলেন, গত ১৯ জুন প্রেমের টানে ঘর ছাড়েন ময়মনসিংহের চর ঈশ্বরদিয়া পূর্বপাড়ার আব্দুর রশিদের ছেলে সিরাজুল ইসলাম ও তার প্রেমিকা একই গ্রামের খুকি আক্তার। মেয়েকে ফিরে পাওয়ার জন্য খুকির বাবা-মা লাইলি বেগমকে চাপ দিতে থাকেন। মেয়েকে ফিরে না পেয়ে খোকন মিয়া ও নাসিমা আক্তার গত ২৮ জুন সকাল ৯টার দিকে ছেলের বাড়িতে প্রবেশ করে গালিগালাজ করতে থাকেন। আব্দুর রশিদের স্ত্রী লাইলি আক্তারের হাত, পা বেঁধে শরীরে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন। এতে তার শরীরের প্রায় ৬০ শতাংশ আগুনে পুড়ে যায়। লাইলি আক্তারকে দ্রুত ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় ঢাকায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।
 
এ ঘটনায় লাইলি আক্তারের স্বামী আব্দুর রশীদ বাদী হয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। 

এর আগে পুলিশ আসামি জাহাঙ্গীর ও আছমাকে গ্রেফতার করলেও মামলার মূল আসামি খোকন মিয়া ওরফে কাজল ও নাসিমা আক্তার কনা আত্মগোপনে ছিলেন। ঘটনাটি ছায়াতদন্তের একপর্যায়ে পিবিআই, ময়মনসিংহ জেলার টিম গোপন তথ্যের ভিত্তিতে ও পিবিআই হেডকোয়ার্টার্সের এলআইসি টিমের সহযোগিতায় মঙ্গলবার ভোরে নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জ থানা এলাকা থেকে খোকন মিয়া ও নাসিমা আক্তার কনাকে গ্রেফতার করে। 

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করেছেন বলে জানিয়েছে পিবিআই।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে

English HighlightsREAD MORE »