ঢাকা থেকে সাড়ে ৫ ঘণ্টায় ঝালকাঠিতে 
15-august

ঢাকা, শুক্রবার   ১২ আগস্ট ২০২২,   ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯,   ১৩ মুহররম ১৪৪৪

Beximco LPG Gas
15-august

স্বপ্নের পদ্মাসেতু

ঢাকা থেকে সাড়ে ৫ ঘণ্টায় ঝালকাঠিতে 

আতিকুর রহমান, ঝালকাঠি   ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৪৩ ২৮ জুন ২০২২   আপডেট: ১৫:৫০ ২৮ জুন ২০২২

পদ্মাসেতু। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

পদ্মাসেতু। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য বৃহস্পতিবার রাতে সড়কপথে আরিচা ঘাট হয়ে ঢাকার গাবতলীতে পৌঁছেন ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার পশ্চিম নৈকাঠি গ্রামের মো. মোজাম্মেল হক তালুকদার। 

বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে রাজাপুরের মেডিকেল মোড় থেকে দূরপাল্লার গাড়িতে করে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা করেন তিনি। উন্নত চিকিৎসার জন্য শ্যালককে সঙ্গে নিয়ে দূরপাল্লার যাত্রীবাহী বাসের যাত্রী হয়ে আসনে চেপে বসেন। 

বাসটি বরিশাল নথুল্লাবাদ টার্মিনালে গেলে কর্তৃপক্ষের নিদের্শনায় বাস পরিবর্তন করতে হয়। সেখান থেকে ৩০ মিনিট অপেক্ষা করে সাড়ে ১০টায় যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা করে। বাসটি আকা-বাঁকা সড়কের সঙ্গে তাল মিলিয়ে হেলেদুলে চলতে থাকে। আরিচা ঘাটের দৌলতদিয়া প্রান্তে গিয়ে পৌছে রাত আড়াইটার দিকে। বাস ও অন্যান্য পরিবহনের চাপ বেশি থাকায় মূল ঘাট থেকে ৫ কিলোমিটারেরও বেশি দূরে রেখে অপেক্ষার প্রহর গুণতে শুরু করে। 

সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ফেরিতে ওঠার সৌভাগ্য লাভ করে যাত্রীরা। ঘণ্টা খানেক পর পাটুরিয়া ঘাটে গিয়ে সাড়ে ৯টার দিকে তীরে ভিড়ে ফেরি। সাড়ে ১১টার দিকে গাবতলী বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে পৌছে। শনিবার রাতে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে রোববারে পদ্মা হয়ে ঝালকাঠি ফেরার মানসিক প্রস্তুতি নেয় মোজাম্মেল হোসেন ও তার সঙ্গী। ঢাকার সায়েদাবাদ পৌছে সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে। 

পদ্মাসেতু

পদ্মা পারাপারে মানুষের আগ্রহ বেশি থাকায় বাস কাউন্টারগুলোতেও ছিলো যাত্রীদের প্রচণ্ড ভিড়। বাস কর্তৃপক্ষ যাত্রীদের চাপ সামাল দিতে প্রতি ঘণ্টায় বাস ছাড়ার ব্যবস্থা করেন। ৯টায় দিকে টিকিট মিলে সোয়া ১২টার গাড়িতে, তখন শর্ত থাকে ‌গাড়ির টাইম সোয়া ১২টায়। গাড়ি আসতে দেরি হতে পারে তখন কারো কোনো ওজর আপত্তি চলবে না। কি আর করার, পদ্মা যেহেতু দেখতেই হবে তাই ৪৪৫ টাকা টিকিট মূল্য থাকলেও যাত্রীদের কাছ থেকে রাখা হয়েছে ৪৫০ টাকা করে। টিকিট নিয়ে যাত্রী ছাউনীতে অপেক্ষা করা। 

সাড়ে ৩ ঘণ্টা অপেক্ষার পর বাস সাড়ে ১২ টার দিকে সায়েদাবাদ টার্মিনাল ছাড়ে। পদ্মা ব্রিজে গাড়িটি উঠতেই যাত্রীদের সেই উচ্ছ্বাস, আনন্দ আর উপভোগ। ১২ কিলোমিটার পদ্মা ব্রিজ পার হলো ১০ মিনিটেই। সব যাত্রীই তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন দিয়ে ভিডিও ও স্থিরচিত্র  ধারণ করে। ব্রিজ পার হলে দৃষ্টি নন্দন অনন্য শৈলীর স্থাপনায় নির্মিত একটি মসজিদ সবার দৃষ্টি কাড়ে। খুবই অল্প সময়ের মধ্যে বরিশালের নথুল্লাবাদে গিয়ে বাসটি থামে ও যাত্রীদের নামিয়ে দেয় বিকেল ৪টায়। সেখান থেকে ৩ দফায় গাড়ি পরিবর্তন করে রাজাপুরের পশ্চিম নৈকাঠি গ্রামের নিজ বাড়িতে গিয়ে পৌছেন বিকেল সাড়ে ৫টায়। 

পদ্মাসেতু

মোজাম্মেল হোসেন তালুকদার জানান, বাড়ি থেকে ডাক্তার দেখানোর জন্য রওনা দিলে ঢাকায় গিয়ে পৌছতে সময় লাগে ১৬ ঘণ্টা কিন্তু ঢাকা থেকে ফিরে নিজ বাসায় পৌছতে সময় লেগেছে মাত্র সাড়ে ৫ ঘণ্টা।

তিনি জানান, পদ্মাসেতুতে যতক্ষণ গাড়ি ছিলো ততক্ষণ মহাকাশে বিমানে চড়ার আনন্দ উপভোগ করেছি। কিন্তু যখনই ব্রিজ পার হওয়া শেষ হয়েছে তখনই কিছুটা নাগোর দোলায় চড়ার মতো শুরু হয়েছে। রাস্তাটি সংস্কার করলে হয়তো আরো ঘণ্টাখানেক সময় কম লাগতো। 
 
ঢাকা থেকে আসা ওই বাসের আরেক যাত্রী রাসেল খান বলেন, ‘গাড়িটি দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে ঢাকা থেকে ছেড়ে মাত্র সাড়ে ৪ ঘণ্টায় বরিশাল পৌঁছে। পথে কিছু জায়গায় কিছুটা সমস্যা হয়েছে। তবে যদি রাস্তাগুলো আরো উন্নতমানের করা যায় তাহলে দুর্ঘটনার শঙ্কা কম হবে।’

গাড়ির চালক আলী হোসেন বলেন, ‘আমরা যে পদ্মাসেতু পাড়ি দিয়েছি তা এখনো মনে হচ্ছে না। স্বপ্ন দেখছি মনে হচ্ছে। ঢাকা থেকে বরিশাল যে সময়ে আসছি এর চেয়ে বেশি সময় ঘাটে প্রতিদিন বসে থাকি।’

তিনি বলেন, ‘আমরা খুব আনন্দিত। এখন যাত্রীদের আরো বেশি সেবা দিতে পারবো। তবে কিছু জায়গায় রাস্তাগুলো একটু সমস্যা আছে। পুরো রাস্তাটা ফোর লেন ও অপ্রয়োজনীয় স্পিড ব্রেকার মুক্ত হলে আরো ভালো সেবা দিতে পারবো।’ 

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে

English HighlightsREAD MORE »