এবার নেত্রকোণায় একসঙ্গে স্বপ্ন-পদ্মা-সেতু’র জন্ম
15-august

ঢাকা, মঙ্গলবার   ০৯ আগস্ট ২০২২,   ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯,   ১০ মুহররম ১৪৪৪

Beximco LPG Gas
15-august

এবার নেত্রকোণায় একসঙ্গে স্বপ্ন-পদ্মা-সেতু’র জন্ম

নেত্রকোণা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:২২ ২৪ জুন ২০২২   আপডেট: ২০:২৩ ২৪ জুন ২০২২

নেত্রকোণায় একসঙ্গে জন্ম নেয়া স্বপ্ন-পদ্মা ও সেতু- ছবি: সংগৃহীত

নেত্রকোণায় একসঙ্গে জন্ম নেয়া স্বপ্ন-পদ্মা ও সেতু- ছবি: সংগৃহীত

নেত্রকোণা শহরের মুক্তারপাড়া সেন্ট্রাল প্রাইভেট হাসপাতালে একসঙ্গে তিন সন্তান জন্ম দিয়েছেন এক প্রসূতি। নবজাতকদের নাম রাখা হয়েছে স্বপ্নের পদ্মাসেতুর সঙ্গে মিলিয়ে- স্বপ্ন, পদ্মা ও সেতু।

বৃহস্পতিবার রাতে হাসপাতালের চিকিৎসক আফরিন সুলতানা অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে ওই তিন শিশুর প্রসব করান। নবজাতক ও তাদের মা সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

সেন্ট্রাল প্রাইভেট হাসপাতালের ম্যানেজার মো. এনামুল লতিফ বলেন, জেলার মোহনগঞ্জ উপজেলার মাঘান শিয়াধার ইউনিয়নের খুরশিমুল দাসপাড়া গ্রামের প্রসূতি রুমেনা আক্তার হাসি বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তাদের হাসপাতালে ভর্তি হন। পরে হাসপাতালের চিকিৎসক আফরিন সুলতানা অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে ওই তিন শিশুর প্রসব করান।

রুমেনা আক্তার হাসির স্বামী শেখ সাদী জানান, পাঁচ বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। মোহনগঞ্জ উপজেলার মাঘান শিয়াধার ইউনিয়নের খুরশিমুল দাসপাড়া গ্রামে তাদের বাড়ি হলেও তারা স্থায়ীভাবে মোহনগঞ্জ পৌর শহরে বসবাস করেন। এর আগে তাদের কোনো সন্তান হয়নি। বৃহস্পতিবার তার স্ত্রীর প্রসব বেদনা শুরু হলে তাকে নেত্রকোনা শহরের সেন্ট্রাল প্রাইভেট হাসপালে ভর্তি করা হয়। পরে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে তিন সন্তানের জন্ম হয়। শখ করে তিনি সন্তানদের নাম রেখেছেন স্বপ্ন, পদ্মা ও সেতু।

হাসপাতালের চিকিৎসক আফরিন সুলতানা বলেন, স্বপ্ন, পদ্মা, সেতু ও তাদের মা সুস্থ রয়েছেন। তাদের কোনো সমস্যা নেই। শিশুরা স্বাভাবিকভাবেই মায়ের বুকের দুধ খাচ্ছে।

এর আগে, নারায়ণগঞ্জে একসঙ্গে তিন সন্তানের জন্ম দেন এক নারী। ঐ দম্পতি শখ করে তাদের সন্তানের নাম রাখেন স্বপ্ন, পদ্মা ও সেতু। বিষয়টি ব্যাপকভাবে আলোচিত হয়। স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নবজাতকদের শুভেচ্ছা জানান এবং তাদের জন্য উপহারসামগ্রী পাঠান। পরে বরিশালেও একসঙ্গে তিন সন্তানের জন্ম হয়, তাদেরও নাম রাখে হয়- স্বপ্ন, পদ্মা, সেতু।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর

English HighlightsREAD MORE »