খুলনায় ট্রেনের টিকিট কালোবাজারিতে জড়িত ৫ কর্মকর্তা

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০৭ জুলাই ২০২২,   ২২ আষাঢ় ১৪২৯,   ০৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

Beximco LPG Gas

খুলনায় ট্রেনের টিকিট কালোবাজারিতে জড়িত ৫ কর্মকর্তা

খুলনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৪৪ ১৮ মে ২০২২  

খুলনা রেলস্টেশন- ফাইল ছবি

খুলনা রেলস্টেশন- ফাইল ছবি

ট্রেনের টিকিট কালোবাজারে বিক্রির অভিযোগে খুলনা রেলস্টেশনের পাঁচজন কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে জিডি হয়েছে। সোমবার খুলনা রেলস্টেশনের মাস্টার মানিক চন্দ্র সরকার খুলনা রেলওয়ে থানায় জিডি করেন। বিষয়টি বুধবার জানাজানি হয়।

অভিযুক্তরা হলেন- টিএক্সআর বায়তুল ইসলাম, আইডব্লিউ অফিসের মো. জাফর মিয়া, তোতা মিয়া, সহকারী স্টেশন মাস্টার মো. আশিক আহম্মেদ ও সহকারী স্টেশন মাস্টার মো. জাকির হোসেন।

জিডিতে উল্লেখ করা হয়, ঐ পাঁচজন সরাসরি টিকিট কালোবাজারির সঙ্গে জড়িত। এছাড়া বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতাদের নামে ভুয়া চাহিদা দিয়ে টিকিট গ্রহণ করেন তারা। টিকিট না পেলে বহিরাগত লোক ডেকে এনে সংঘবদ্ধভাবে স্টেশন মাস্টারকে হেনস্তা করার জন্য চাপ সৃষ্টি করেন। সম্প্রতি তাদের টিকিটের চাহিদা এত বেড়েছে যে টিকিট না পেলে স্টেশন ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ, মারধরের মতো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটানোর পাঁয়তারা করছে তারা।

জিডিতে আরো উল্লেখ করা করা হয়, প্রকৃতপক্ষে বর্তমানে রেলের কোনো ভিআইপি টিকিট সংরক্ষিত নেই। কিন্তু অভিযুক্তরা সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে এ ধরনের কর্মকাণ্ডে লিপ্ত আছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে টেলিফোনে জানানো হয়েছে এবং স্টেশনে শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা বজায় রাখার স্বার্থে জিডির আবেদন করা হয়েছে। যদি স্টেশনে কোনো প্রকার ক্ষয়ক্ষতি, অগ্নিসংযোগ, ভাঙচুর বা প্রাণহানি ঘটে সেজন্য অভিযুক্ত পাঁচ ব্যক্তিসহ সংশ্লিষ্ট নির্দেশ দাতারা দায়ী থাকবে।

খুলনা রেলস্টেশনের মাস্টার মানিক চন্দ্র সরকার জানান, ঐ পাঁচজন অনেকদিন ধরে টিকিট কালোবাজারি করছে। অতিষ্ঠ হয়ে তিনি জিডি করতে বাধ্য হয়েছেন।

খুলনা জিআরপি থানার ওসি মোল্লা মো. খবির আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, অভিযোগের বিষয়টি আদালতের নির্দেশনা সাপেক্ষে তদন্ত করা হবে। এরই মধ্যে আদালতের অনুমতি চাওয়া হয়েছে। তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর

English HighlightsREAD MORE »