‘ভাই আমাদের আর ভাঙা ঘরে থাকতে হবে না’

ঢাকা, শনিবার   ০১ অক্টোবর ২০২২,   ১৫ আশ্বিন ১৪২৯,   ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

Beximco LPG Gas

‘ভাই আমাদের আর ভাঙা ঘরে থাকতে হবে না’

সোহাগ হাফিজ, বরগুনা ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৫:৩৭ ৩ মার্চ ২০২২  

হাদিসুর রহমান আরিফের মৃত্যুতে তার বাড়িতে চলছে শোকের মাতম (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

হাদিসুর রহমান আরিফের মৃত্যুতে তার বাড়িতে চলছে শোকের মাতম (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

ইউক্রেনে আটকে থাকা বাংলাদেশি জাহাজ ‘বাংলার সমৃদ্ধি’তে রকেট হামলায় নিহত ইঞ্জিনিয়ার মো. হাদিসুর রহমান আরিফের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। হাদিসুরের ভাই মো. তারেক জানান, বুধবার সকালেও হাদিসুর ফোনে বলেন, ‘ভাই আমাদের আর ভাঙা ঘরে থাকতে হবে না। বাড়িতে এসেই যেভাবে হোক ঘরের কাজ ধরবো।’

নিহত হাদিসুরের বাড়ি বরগুনার বেতাগী উপজেলার হোসনাবাদ ইউনিয়নের কদমতলা বাজার এলাকায়। তিনি ওই এলাকার চেয়ারম্যান বাড়ির বাসিন্দা মো. আবদুর রাজ্জাক (অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক) ও আমেনা বেগম দম্পতির বড় ছেলে। পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ছেলেকে হারিয়ে পাগলপ্রায় মা-বাবা। ছেলের লাশ দেশে আনার জন্য সরকারের কাছে আকুতি জানিয়েছেন তারা।

নিহত নাবিকের স্বজনরা জানান, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনের অলভিয়া বন্দরে নোঙর করা অবস্থায় ২৯ জন ক্রুসহ আটকা পড়ে বাংলাদেশি জাহাজ এমভি বাংলার সমৃদ্ধি। ওইদিনই বাড়িতে আটকে পড়ার খবর জানান হাদিসুর রহমান আরিফ। এরপর থেকে আর কোনো যোগাযোগ হয়নি পরিবারের সঙ্গে। ওই এলাকায় মোবাইল নেটওয়ার্কে সমস্যা থাকায় তার স্বজনরা একাধিকবার কল দিয়েও তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেনি।

আরো পড়ুন: নোয়াখালীতে পুলিশের ওপর হামলা, বিএনপির ১৭৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

পরে বুধবার রাতে স্বজনদের সঙ্গে কথা বলার জন্য নেটওয়ার্কের সিগন্যাল পেতে জাহাজের কেবিন থেকে ব্রিজে আসে হাদিসুর। এর কিছুক্ষণ পরেই জাহাজটি লক্ষ্য করে রকেট হামলা চালায় রাশিয়ান সেনারা। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান হাদিসুর।

এদিকে পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ছেলেকে হারিয়ে পাগলপ্রায় মা-বাবা। ছেলের লাশ দেশে আনার জন্য সরকারের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন তারা। 

নিহত হাদিসুরের ছোটভাই তারেক হোসাইন বলেন, মৃত্যুর একটু আগেও ভাইয়া আমাদের সঙ্গে কথা বলেছেন। ফোনে ভাইয়া বলে ‘আমাদের আর ভাঙা ঘরে থাকা লাগবে না। বাড়িতে এসেই যেভাবে হোক ঘরের নির্মাণকাজ ধরব।

তারেক আরও বলেন, ভাইয়ের মৃত্যুর খবর শুনে বাবা বাকরুদ্ধ হয়ে বসে আছেন, মা বারবার মূর্ছা যাচ্ছেন। ভাইয়ার অনেক স্বপ্ন ছিলো এলাকার মধ্যে সবচেয়ে সুন্দর একটা বাড়ি করার। কিন্তু ভাগ্য আর সায় দিলো না, বিদেশে গিয়ে লাশ হলো। এক নজর হলেও আমি আমার ভাইয়ার লাশটা শুধু দেখতে চাই। 

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ সময় বুধবার রাত ৯টা ২৫ মিনিটে ইউক্রেনের বন্দরে থাকা পণ্যবাহী জাহাজ ‘বাংলার সমৃদ্ধি’তে রকেট হামলা চালায় রাশিয়ান সেনারা। এতে জাহাজের থার্ড ইঞ্জিনিয়ার হাদিসুর রহমান আরিফ অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যান। বাকি ২৮ জন নিরাপদে রয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ মেরিন একাডেমির কমান্ড্যান্ট সাজিদ হুসাইন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম

English HighlightsREAD MORE »