খুলনায় ৩টি ইজিবাইকসহ চোর চক্রের ৮ সদস্যকে গ্রেফতার

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১৯ মে ২০২২,   ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯,   ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩

Beximco LPG Gas

খুলনায় ৩টি ইজিবাইকসহ চোর চক্রের ৮ সদস্যকে গ্রেফতার

খুলনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:২১ ২৮ জানুয়ারি ২০২২  

গ্রেফতারকৃত চোরচক্রের সদস্যরা

গ্রেফতারকৃত চোরচক্রের সদস্যরা

খুলনায় ৩টি ইজিবাইকসহ চোর চক্রের ৮ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার খানজাহান আলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রবীর কুমার বিশ্বাস এ তথ্য জানান।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন মহামগরীর গল্লামারী লাইন্স  স্কুল সংলগ্ন আবু তালেব শরিফের ছেলে তাজুল শরিফ (৩৫), খানজাহান আলী থানার গিলাতলা দক্ষিন পাড়ার ওহিদ শেখের ছেলে মোঃ সোহেল রানা(১৯), নড়াইল নড়াগাতির সিদ্দিক শিকদারের ছেলে বিপুল শিকদার(৩০) , টুঙ্গিপাড়ার নিলফা গ্রামের দবির মোল্লার ছেলে রনি মোল্লা, নড়াইল নড়াগাতির ওহাব মোল্লার ছেলে চুন্নু মোল্লা(২৮), নড়াইল কালিয়া গ্রামের কেরামত খন্দকারের ছেলে তুহিন খন্দকার (৪০) খুলনার তেরখাদার নলিযার চর এলাকার এলাহী শেখের ছেলে মিঠু শেখ (৩৫) , এবং নড়াইলের মৃত নুর মোঃ মোল্লার ছেলে মহাসিন মোল্লা(৪০)।

খানজাহান আলী থানার ওসি প্রবীর কুমার বিশ্বাস জানান, গ্রেফতারকৃতরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে তারা বিভিন্নস্থান থেকে যাত্রীবেশে অভিনব কৌশলে দীর্ঘদিন ধরে এ কাজ করে আসছিলো। তাদের নামে বিভিন্ন থানায় চুরিসহ নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার মামলা রয়েছে। শুক্রবার দুপরে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। তাদের কাছ থেকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য উদ্ধারের জন্য আদালতে রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) ভুক্তভোগী দৌলতপুর থানা এলাকার মধ্যডাঙ্গা গ্রামের শহিদুল ইসলামের স্ত্রী রনজিতা বেগম খানজাহান আলী থানায় মামলা করেন।

এছাড়া ইজিবাইক চুরির অন্য মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ২০২১ সালের ২৭ ডিসেম্বর গল্লামারী থেকে ইজিবাইক রিজার্ভ করে ২ জন পুরুষ ও ১ জন নারী গিলাতলা জাহানাবাদ চিড়িয়াখানায় যান। সেখানে গিয়ে ইজিবাইক চালক সাকিবের (১৯)  মোবাইলে বিকাশে টাকা এনে সন্ধ্যার দিকে যাত্রীবেশী চোরচক্র নিজেরা জুস খায় এবং ইজিবাইক চালককে জুস খাইয়ে অচেতন করে ফুলতলার বেজেরডাঙ্গায় ফেলে রেখে ইজিবাইক নিয়ে পালিয়ে যায়।

এলাকাবাসী ইজিবাইক চালককে উদ্ধার করে ফুলতলা উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করে তার স্বজনদের খবর দেয়। এ ঘটনায় ইজিবাইক চালক সাকিবের বাবা শহিদুল ইসলাম ১২ জানুয়ারি খানজাহান আলী থানায় জিডি করেন। খানজাহান আলী থানার ওসি প্রবীর কুমার বিশ্বাস ও সেকেন্ড অফিসার এসআই শতদল এর তদারকিতে একাধিক চুরির ঘটনায় পুলিশ চোরদের গ্রেফতার ও রহস্য উদঘাটনের জন্য খানজাহান আলী থানা পুলিশের চৌকস দল অভিযান শুরু করে।

খানজাহান আলী থানার এএসআই ইস্তিয়াক, এএসআই নিতিশ বিশ্বাস অত্যাধুনিক তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে ইজিবাইক চোর সিন্ডিকেট চক্রের প্রধান তাজুল শরিফকে প্রথমে আটক করে, পরে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে নগরীর বিভিন্ন স্থান থেকে ইজিবাইক সিন্ডিকেট চক্রের সদস্যদের আটক ও ৩টি চোরাইকৃত ইজিবাইক উদ্ধার করে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ

English HighlightsREAD MORE »