চার ছেলের জন্মের আনন্দ মুহূর্তেই হয়ে গেল বিষাদ, জানেন না মা

ঢাকা, সোমবার   ২৩ মে ২০২২,   ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯,   ২১ শাওয়াল ১৪৪৩

Beximco LPG Gas

চার ছেলের জন্মের আনন্দ মুহূর্তেই হয়ে গেল বিষাদ, জানেন না মা

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০১:০৯ ২৪ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ০১:৫৫ ২৪ জানুয়ারি ২০২২

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে একসঙ্গে চার নবজাতক প্রসব করেন কামরুন নাহার সুমু। তবে চার সন্তানই ছিল প্রিম্যাচিউর। এজন তাদের কাউকে বাঁচানো যায়নি। এতে শোকে পাথর চার সন্তানের বাবা ও তার সহকর্মী ও স্বজনরা। আর হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে থাকা মা সুমু জানেন না তার চার মানিক আর নেই। 

রোববার চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের কর্মচারী শাহ আলমের স্ত্রীর কোলজুড়ে আসে চার ছেলে সন্তান।

শাহ আলম বলেন, ২০২১ সালের এপ্রিলে আমাদের বিয়ে হয়। হঠাৎ জ্বর আসায় গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে সুমু। এরপর তাকে প্রথমে বন্দর হাসপাতাল ও পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাই। চমেক হাসপাতালের ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে একসঙ্গে চারটি ছেলে সন্তান প্রসব হয়। এর মধ্যে প্রথমটি মৃত ছিল। পরের তিনটি জীবিত ছিল। কিন্তু পাঁচ মাসের হওয়ায় তাদের বাঁচানো সম্ভব হয়নি।

তিনি আরো বলেন, চার সন্তানের নাম চার খলিফার নামে রেখে বন্দর কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

বন্দর সিবিএ সাধারণ সম্পাদক মো. নায়েবুল ইসলাম ফটিক বলেন, শাহ আলমের পরিবারে চারটি নবজাতকের জন্ম হলেও কাউকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি। বিষয়টি অত্যন্ত শোকের।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ

English HighlightsREAD MORE »