১৬ বছর ধরে ‘নৌকা কাটিং’, আইভীর টানে নুরুল এখন নারায়ণগঞ্জে

ঢাকা, শনিবার   ০১ অক্টোবর ২০২২,   ১৫ আশ্বিন ১৪২৯,   ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

Beximco LPG Gas

১৬ বছর ধরে ‘নৌকা কাটিং’, আইভীর টানে নুরুল এখন নারায়ণগঞ্জে

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:২৮ ১৬ জানুয়ারি ২০২২  

নুরুলের মাথায় নৌকা কাটিং

নুরুলের মাথায় নৌকা কাটিং

আওয়ামী লীগের প্রতি ভালোবাসা তার দীর্ঘদিনের। আর এ ভালোবাসা থেকে ১৬ বছর ধরেই নৌকার ডিজাইনে মাথার চুল কাটাচ্ছেন। সুযোগ পেলেই ছুটে যান নৌকার পক্ষের যেকোনো প্রচারণায়।

বলছি নৌকার সমর্থক কিশোরগঞ্জের ভৈরবের নুরুল ইসলামের কথা। এবার তিনি আইভীর টানে ছুটে এসেছেন নারায়ণগঞ্জে। রোববার নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে দেখা মেলে নুরুল ইসলামের।

তার দাবি, আওয়ামী লীগকে মনে-প্রাণে ধারণ করেন। ভালোবাসেন নৌকা প্রতীককে। এজন্য নিজের মাথায় নৌকা আকৃতির চুলের কাটিং দিয়েছেন।

নুরুল ইসলাম বলেন, আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়রপ্রার্থী সেলিনা হায়াত আইভীর টানে ছুটে এসেছি। ২০০৬ থেকেই আমার মাথায় নৌকা আকৃতির চুলের কাটিং করি। আমি এখানকার ভোটার নই। আমি দোয়া নিতে আসছি আর প্রচারণা করতে আসছি।

নুরুল বলেন, আমার নৌকা মার্কা আইভী পাচ্ছেন, আমার আনন্দ হচ্ছে। টিভিতে দেখি আইভী কথা বলছেন, এরপর আমি আর বাড়িতে থাকতে পারলাম না। রেলগাড়িতে চড়ে চলে এসেছি।

তিনি বলেন, আইভীকে বিজয়ী করে জয়ের মালা পরিয়ে আমার জায়গায় চলে যাব। ইনশাআল্লাহ বিজয়ী করবোই।

রোববার সকাল থেকে নারায়াণগঞ্জ সিটি নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলছে। এতে নৌকা প্রতীকের সেলিনা হায়াত আইভীর মূল প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে রয়েছেন হাতি মার্কার তৈমূর আলম খন্দকার। দুজনই ভোট দিয়ে জয়ের বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

এদিন সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত টানা ভোটগ্রহণ চলবে। নির্বাচনে মেয়রসহ ৩৭টি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১৮৯ প্রার্থী। এর মধ্যে মেয়র পদে সাতজন, ২৭টি ওয়ার্ডে ১৪৮ জন সাধারণ কাউন্সিলর ও ৯টি সংরক্ষিত নারী আসনে ৩৪ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মোট ৫ লাখ ১৭ হাজার ৩৫৭ জন ভোটার ১৯২টি ভোটকেন্দ্রের ১৩৯৬টি ভোটকক্ষে নিজেদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ৫৯ হাজার ৮৩৪ ও নারী ভোটার ২ লাখ ৫৭ হাজার ৫১৯। তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার রয়েছেন চারজন।

রিটার্নিং কর্মকর্তা মাহফুজা আক্তার জানান, ১৯২টি ভোটকেন্দ্রের প্রতিটিতে একজন এসআইয়ের নেতৃত্বে রয়েছেন পাঁচজন করে পুলিশ সদস্য। এছাড়া আটজন পুরুষ ও চারজন নারী আনসার সদস্য নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছেন। নির্বাচনে পুলিশের ২৭টি ইউনিট স্ট্রাইকিং ফোর্স, পুলিশের মোবাইল টিম ৬৪টি, প্রতি টিমে সদস্য পাঁচজন। বিজিবির ১৪ প্লাটুন সদস্য মোতায়েন রয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর

English HighlightsREAD MORE »