নিজের উপস্থিত বুদ্ধিতে ৪ অপহরণকারীর হাত থেকে প্রাণে বাঁচলো শিশুটি

ঢাকা, সোমবার   ২৩ মে ২০২২,   ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯,   ২১ শাওয়াল ১৪৪৩

Beximco LPG Gas

নিজের উপস্থিত বুদ্ধিতে ৪ অপহরণকারীর হাত থেকে প্রাণে বাঁচলো শিশুটি

মেহেরপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০২:৪৯ ১৬ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ০৬:২৩ ১৬ জানুয়ারি ২০২২

শিশু পারভেজের চিৎকার শুনে ছুটে এসে উদ্ধার করে স্থানীয় কিছু যুবক

শিশু পারভেজের চিৎকার শুনে ছুটে এসে উদ্ধার করে স্থানীয় কিছু যুবক

মেহেরপুরের গাংনীতে নিজের উপস্থিত বুদ্ধি খাটিয়ে অপহরণকারীর হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে পারভেজ হোসেন নামে ১২ বছরের এক শিশু। অপহরণকারীর মোটরসাইকেল থেকে ঝাঁপ দিয়ে নিজের প্রাণ বাঁচিয়েছে সে।

শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে গাংনী বাজারে চাঞ্চল্যকর এ ঘটনা ঘটে।

শিশু পারভেজ হোসেন ঐ উপজেলার আযান গ্রামের স্কুলপাড়া এলাকার ফারুক হোসেনের ছেলে। সে গাংনী বাজারের কাজল বস্ত্রালয়ের কর্মচারী।

পারভেজ বলে, এশার আযানের আগে আকাশ নামে দোকানের আরেক কর্মচারীর স্যান্ডেল খোঁজার জন্য বাইরে আসি। শহরের আমিরুল মার্কেটের সামনে হঠাৎ এক বৃদ্ধ লোক ‘বাবু শোনো তো’ বলে আমাকে ডাক দেয়। আমি তার কাছে যেতেই আমার মুখে রুমাল গুঁজে, চোখ বন্ধ করে মোটরসাইকেলে তুলে ফেলে। তারা চারজন ছিল।

সে আরো বলে, আমাকে নিয়ে তারা হাসপাতাল বাজারের দিকে রওনা দেয়। হাসপাতাল বাজারে পেছন থেকে একজন নেমে যায়। পেছনে বসে থাকা লোকটি আমার মুখ চেপে ধরে রাখে। এরপর বাঁশবাড়িয়ার কলোনি রাস্তা থেকে সাহারবাটি এলাকার দিকে রওনা দেয়। হঠাৎ কিছু লোককে মাঠের মধ্যে দেখে আমি জোরে চিৎকার দিয়ে উঠি। চিৎকার দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মোটারসাইকেল স্লো হয়ে গেলে আমি ঝাঁপ দেই।

গাংনী ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম জানান, কিছু ছেলে মাঠের ওদিক থেকে হেঁটে আসছিল। হঠাৎ শিশুটি চিৎকার করে বাঁচানোর জন্য বলে। পরে ঐ ছেলেগুলো তাড়া করলে মোটরাসইকেল আরোহী দুইজনের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয়। এরপর তারা হত্যার হুমকি দিয়ে মোটরসাইকেল নিয়ে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা পারভেজকে উদ্ধার করে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে শিশুটিকে নিয়ে যায়।

গাংনী থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক জানান, শিশুটিকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য গাংনী হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর

English HighlightsREAD MORE »