ভাপার দাম হাজার টাকা, লাভের অংশ যায় মসজিদ, মাদরাসা ও এতিমখানায়

ঢাকা, বুধবার   ১৯ জানুয়ারি ২০২২,   ৫ মাঘ ১৪২৮,   ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

ভাপার দাম হাজার টাকা, লাভের অংশ যায় মসজিদ, মাদরাসা ও এতিমখানায়

শরীফ ইকবাল রাসেল, নরসিংদী ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:৩১ ১৫ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৯:৩১ ১৫ জানুয়ারি ২০২২

পিঠার স্বাদের বৈচিত্রের কারণে সন্ধ্যার পরপরই প্রতিদিন নরসিংদী শহরের জেলখানার মোড়ে জমে উঠে পিঠাপ্রেমীদের ভিড়। 

দীর্ঘ ১০ বছর ধরে ভাপা পিঠা বিক্রি করে আসছেন মালেক মিয়া নামে এক পিঠা ব্যবসায়ী। এই পিঠা বিক্রির লাভের এক-তৃতীয়াংশ অর্থ তুলে দিচ্ছে মসজিদ, মাদরাসা ও এতিমখানায়। আরেক অংশ দিয়ে চালাচ্ছেন সংসার। তার দোকানের প্রতিটি ভাপা পিঠা বিক্রি হয় ২০ টাকা থেকে ১ হাজার টাকা। 

আরো পড়ুন >>> জানালা ছাড়াই ঢুকবে আলো, মুসল্লিরা উপভোগ করবে রোধ-বৃষ্টি

শীতের সন্ধ্যা নামতেই অন্ধকার যত বাড়ে ততই তাকে চারপাশ থেকে ঘিরে ধরেন পিঠাপ্রেমীরা। 

নরসিংদী সদর উপজেলার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে ভেলানগর জেলখানা মোড় ওভারব্রিজের নিচে মালেক মিয়ার দুই জোড়া চুলায় বসানো বিশেষ পাতিলের ভাঁপ উড়ছে। শীত এখন পুরোপুরি। সন্ধ্যা নামতেই বেড়ে যায় পিঠাপ্রিয় মানুষের আনাগোনা। সন্ধ্যার পর থেকে বেচাকেনা চলে রাত নয়টা পর্যন্ত। 

আরো পড়ুন >>> দিনাজপুরে গভীর রাতে শীতার্তদের বাড়িতে গিয়ে কম্বল বিতরণ করলেন এমপি

আতপ চালের গুঁড়া, খেজুরের গুড় ও নারকেলের পাশাপাশি মালাই, সুগন্ধি পোলাও চাল, কিসমিস, খেজুর, পেস্তাবাদাম, কাঠবাদাম, কাজুবাদাম ও মাওয়া ইত্যাদি উপাদান দিয়ে তৈরি করা হয় এই সুস্বাদু ভাপা পিঠা। তার দোকানে হরেক রকম পিঠা ও ভিন্ন ভিন্ন দামের কারণে এখানে প্রতিবছরই এমন ভিড় চোখে পড়ে। 

দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করে পিঠা কিনতে পেরে খুশি ক্রেতারাও। চাহিদা অনুসারে ২০ টাকা থেকে শুরু করে প্রতিটি ভাপা পিঠার দাম হয় ১ হাজার টাকা পর্যন্ত। 

আরো পড়ুন >>> জেঁকে বসেছে শীত, বাড়ি বাড়ি কম্বল পৌঁছে দিলেন ইউএনও

পিঠা বিক্রেতার দাবি, পিঠার স্বাদের বৈচিত্রের কারণেই দৈনিক তিন ঘণ্টায় ৮ থেকে ১০ হাজার টাকার পিঠা বিক্রি করতে পারেন মালেক মামা। 

মালেক মিয়া জানান, শীতের সময় পিঠা বিক্রি ছাড়া বছরের বাকি সময় সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত অটোরিকশা ও সন্ধ্যা থেকে রাত পর্যন্ত পান সিগারেট বিক্রি করে তার সংসার চালান।  

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে

English HighlightsREAD MORE »